চাঁদপুর, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৮ রজব ১৪৪৪  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   আগামী নির্বাচনে অনেক চমক অপেক্ষা করছে
  •   ১৭ দিন পর করোনায় একজনের মৃত্যু, শনাক্ত ১০
  •   জাপানি দুই শিশু মায়ের জিম্মায় থাকবে
  •   হাজীগঞ্জের আমির হোসেনের প্রতারণার শিকার হয়ে সৌদি আরবে বহু প্রবাসী যুবক নিঃস্ব
  •   কোস্টগার্ডের অভিযানে ৪৪০ কেজি জাটকা মাছ জব্দ

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০০:০০

কচুয়ায় হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
কচুয়া ব্যুরো ॥

হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে কচুয়া উপজেলার কাদলা গ্রামের বাসিন্দা জয়নাল আবেদীন। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমি অত্যন্ত দরিদ্র-নিরীহ লোক। স্ত্রী ও সন্তানাদি নিয়ে আমার ৬ সদস্যদের পরিবার। কোনো রকমে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। একই বাড়ির শহিদ গং আমার বাড়ির অংশের কিছু সম্পত্তি ক্রয় করার প্রস্তাব দেয়। কিন্তু প্রস্তাবকৃত সম্পত্তি বিক্রি করলে ঘর-দরজা নিয়ে আমাকে বেকায়দায় পড়তে হবে। তাই এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রভাবশালী শহিদ গং আমার ওপর চটে বসে। শহিদ গং নানা সমস্যা সৃষ্টি করে আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদেরকে বিভিন্নভাবে হয়রানির কাজে লিপ্ত হয়। গত ৬ নভেম্বর আমার একটি গাছের ডাল কাটলে উক্ত ডাল শহিদের জমিতে পড়ে। জমিতে এ ডাল পড়াকে কেন্দ্র করে শহিদ গং আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়ে বেদম মারধর করে। এক পর্যায়ে আমাকে হত্যা করার চেষ্টা করে। তাছাড়াও আমার স্ত্রী ও মেয়েদেরকে মারধর করাসহ শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে।

এ ঘটনা নিয়ে আমার মেয়ে শাহিনুরের জামাই শাহপারান (তারেক) বাদী হয়ে চাঁদপুরের বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এ মামলা দায়েরের একদিন পর ১০ নভেম্বর শহিদের স্ত্রী নাছিমা বেগম বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দায়ের করে। এই মামলায় আমার জামাই শাহপরানকেও আসামী করা হয়। পুলিশ ১২ নভেম্বর জামাই শাহপরানকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। অদ্যাবধি সে জেল হাজত খাটছে। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে, ৬ নভেম্বর গাছের ডাল কাটার সময় আমার মেয়ের জামাই শাহপারান আমার বাড়িতেই ছিলো না। তাকে সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

জয়নাল আবেদীন আরো দাবি করেন যে, শহিদ গং মিথ্যা মামলা দায়ের করা ছাড়াও বর্তমানে জয়নাল আবেদীন গংকে বিভিন্ন ভয়-ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। এ অবস্থায় জয়নাল আবেদীন ও তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। জয়নাল আবেদীন মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ শহিদ গংয়ের হাত থেকে প্রাণে রক্ষা পাওয়ার জন্যে আকুল আবেদন জানাচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে জয়নাল আবেদীনের সাথে ছিলেন তার স্ত্রী আমেনা ও মেয়ে তানিয়া।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়