চাঁদপুর, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪  |   ২৩ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   ফরিদগঞ্জে কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশন মেধাবৃত্তি পরীক্ষা
  •   হাইমচরে রাতভর পাহারা দিয়েও রক্ষা হয়নি চরের মাটি
  •   বড়স্টেশন মেঘনায়  ট্রলারের ধাক্কায় নিঁখোজ জেলের লাশ পাঁচদিন পর উদ্ধার
  •   মতলব উত্তরে মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় আহত তানভীরও চলে গেলো না ফেরার দেশে
  •   কাল হেলিকপ্টারে মতলব উত্তরে আসছেন ড. এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী

প্রকাশ : ২৮ আগস্ট ২০২২, ০০:০০

লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে জাতীয় শোক দিবস ও গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আলোচনা সভা
স্টাফ রিপোর্টার ॥

চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল ২৭ আগস্ট শনিবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম খান।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইউনুছ শেখের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক রহমান শেখের পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আশ্বাদ মিজি, সহ-সভাপতি আব্দুর রশিদ মিয়া, ছায়েদ আলী আখন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বোরহান খান টেলু, আব্দুল কাদের মিয়া, ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক ও ইউপি সদস্য মোঃ জহির হাওলাদার, যুগ্ম আহ্বায়ক ও ইউপি সদস্য মোঃ ফারুক হোসেন মাঝি, শাহ আলম মাঝি, ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হোসনে আরা বেগম বিউটি, সাধারণ সম্পাদক বিউটি বেগম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ আরিফ শেখ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

আলোচনা সভায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোঃ সেলিম খান বলেন, আগস্ট মাস বাঙালি জাতির জন্য শোক এবং ষড়যন্ত্রের মাস। প্রতিবছর আগস্ট মাস এলেই স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচেয়ে নির্মম হত্যাকাণ্ড এবং ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা একই সুতোয় গাঁথা। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি এই হত্যাকাণ্ডের সাথে সরাসরি জড়িত। খুনিরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে হত্যা করতে চেয়েছিলো। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন এদেশের মানুষ সফল হতে দেয়নি। বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

সেলিম খান আরো বলেন, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সন্ত্রাস বিরোধী শান্তিপূর্ণ সমাবেশে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা করা হয়। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করে আওয়ামী লীগকে হত্যা করতে চেয়েছিল। ওই হামলায় তৎকালীন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেবুন্নেছা আইভী রহমানসহ আওয়ামী লীগের ২৪ জন নেতা-কর্মী নিহত হয়েছেন। স্বাধীনতা বিরোধী ওই চক্রটি আজো দেশ ও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে তাদের চক্রান্ত অব্যাহত রেখেছে। তাদের যেকোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সজাগ এবং ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

সেলিম খান আরো বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে ইতিমধ্যে বিএনপি-জামাত জোটের নেতা-কর্মীরা সাধারণ মানুষ এবং ভোটারদের বিভিন্ন রকম হুমকি দিয়ে আসছে। তিনি হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা কোনো অপশক্তির হুমকি-ধমকিকে ভয় পায় না। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি জামাত জোটের যেকোনো অপতৎপরতা প্রতিহত করতে দলের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান তিনি। আলোচনা সভার শুরুতে মিলাদ ও দোয়া পরিচালনা করেন হযরত মাওলানা আবুল কাশেম বাকী।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়