চাঁদপুর, শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ মহররম ১৪৪৪  |   ৩১ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   ফরিদগঞ্জে কিশোর বলাৎকারের শিকার
  •   বাবুরহাট মতলব পেন্নাই সড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১
  •   আগামীতে হরতালের চেয়েও বৃহৎ কর্মসূচি আসবে : মানিক
  •   চাঁদপুরে পুলিশের অভিযানে ৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ১
  •   চাঁদপুর পদ্মা নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৫ নৌ ডাকাত গ্রেফতার

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০

শামীম হাসান ॥

কুয়াশায় আচ্ছাদিত সকাল আর ঘাসের ডগায় জমা শিশির কণা প্রকৃতিতে আভাস দিচ্ছে শীতের আগমনী বার্তার। সারাদেশের ন্যায় ফরিদগঞ্জেও বইছে শীতের আমেজ। এতে করে ইতিমধ্যে ফরিদগঞ্জ বাজারে শুরু হয়ে গেছে বিভিন্ন ফুটপাতের ব্যবসায়ীদের গরম কাপড় বিক্রি। উপজেলা পরিষদের প্রবেশপথের সম্মুখ রাস্তার দুই পাশে শীতের পোশাক বিক্রেতারা কাপড়ের পসরা সাজিয়ে বসেছে। এতে ক্রেতারা হয়ে উঠেছেন পোশাক কেনায় ব্যস্ত। দাম তুলনামূলক কম বলে ফুটপাতেই ভিড় দেখা যাচ্ছে সবচেয়ে বেশি।

সরেজমিনে ২ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) পুরো বাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজারে রাস্তার দুই পাশে ১৫টিরও অধিক ভ্রাম্যমাণ শীতের দোকান। যাতে বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা থেকে ৫শ' টাকার পোশাক।

বাজারের মার্কেটগুলোর বিভিন্ন দোকানগুলোতে চাদর ও ব্লেজার, উলের তৈরি স্যুয়েটার, ছোটদের গরম কাপড়ের সেট, কান টুপিসহ আরও ভিন্ন রকমের শীতের পোশাক তুলতে দেখা গেছে। কয়েকটি দোকানে দেখা যায় ব্লেজার, স্যুয়েটার ও জ্যাকেটের পসরা সাজিয়ে বসেছে অনেক দোকানী। এছাড়া ফুল হাত টি-শার্ট, শীতের টুপি, জ্যাকেট, ডেনিম শার্ট, ডেনিম স্যুয়েটার, গলার মাফলারও পাওয়া যাচ্ছে কাপড়ের তৈরি জুতা, ঘরে পরার উলের জুতা ও কম্বল। এসব পোশাকের দামও রয়েছে ক্রেতার সাধ্যের মধ্যে। শীতের এসব পোশাকের পাশাপাশি বাজারে এসেছে বিভিন্ন ধরনের কম্বল। ভিন্ন ডিজাইনের এসব কম্বল বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে দুই হাজার টাকা বা তারও বেশি মূল্যে।

ফুটপাতে পোশাক কিনতে থাকা এক নারী ক্রেতা চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, গত বছরের শীতের পোশাক এবার বাচ্চাকে আর পরানো যাচ্ছে না। তাই গরম কাপড় কিনতে এসেছি। তবে মার্কেটগুলোর তুলনায় এখানে দাম কম হওয়ায় একটু দেখে শুনে এখান থেকেই ভালো পোশাকটি নিচ্ছি। এতে সাধ্যের মধ্যে পরিবারের সকল সদস্যের শীতের পোশাক কিনতে পারছি।

ফুটপাতের শীতের কাপড় বিক্রেতা শরিফ হোসেন জানান, ঢাকা থেকে আমরা লটে কিছু শীতের স্যুয়েটারসহ গরম কাপড় এনেছি। সেগুলো বিক্রি করেছি। শুরুর দিকে দাম কিছুটা কম আছে। বিক্রয় বাড়লে আরো মজুদ বাড়ানো হবে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়