বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   ড্রেজার ধ্বংস করাসহ মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
  •   শাহরাস্তিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন
  •   ফরিদগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ছাত্রলীগের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী
  •   হাজীগঞ্জ পৌরসভা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত
  •   ভুয়া দুদক কর্মকর্তা সেজে চাঁদা দাবি

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০২২, ০০:০০

ফরিদগঞ্জের গাজীপুর এলাকায় যুবসমাজকে ধ্বংস করা পেশাদার জুয়াড়ি এরা কারা?
নিজস্ব সংবাদদাতা ॥

জুয়া খেলার বিরুদ্ধে এক মূর্তিমান আতঙ্ক ফরিদগঞ্জের গাজীপুর বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক। জুয়ার বিরুদ্ধে তার অব্যাহত প্রতিবাদ আর প্রতিরোধের মুখে পড়ে অনেকটা বেকায়দায় থাকা জুয়াড়িরা এখন ওমর ফারুককে ফাঁসাতে নানা ফন্দি করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ওমর ফারুক। গাজীপুর এলাকায় পেশাদার জুয়াড়ি এরা কারা এমন প্রশ্ন তুলে সচেতন মহল বলছেন, যুব সমাজের স্বার্থে জুয়া খেলার বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর হস্তক্ষেপ অতীব জরুরি।

গাজীপুর বাজার এলাকায় কিছু প্রভাবশালী চিহ্নিত জুয়াড়ি প্রতি রাতেই জমজমাট জুয়া খেলার আসর বসিয়ে পরিকল্পিতভাবে অনেককেই সর্বস্বান্ত করে ছাড়ছেন। এসব জুয়াড়ির মধ্যে রয়েছে সাবেক অসাধু জনপ্রতিনিধি ও অসাধু প্রভাবশালী ব্যক্তি। প্রায় প্রতি রাতেই বিভিন্ন এলাকা থেকে পেশাদার জুয়াড়িদের খবর দিয়ে জুয়া খেলার আসরে বসিয়ে লাখ লাখ টাকার জুয়া খেলেই যাচ্ছে। অবশেষে নিরূপায় হয়ে ওই এলাকারই এক প্রতিবাদী সরকার দলীয় ওমর ফারুক জুয়াড়িদের সকল রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে তা বন্ধের উদ্যোগ নেন। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে ওমর ফারুক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের আইডির মাধ্যমে জুয়ার বিরুদ্ধে নানা স্ট্যাটাস দিয়ে সবাইকে জুয়া খেলার বিরুদ্ধে সোচ্চার করে তোলেন। অবস্থা বেগতিক দেখে এবার জুয়াড়িরা গোপনে নিজের বসত ঘরে বসেই জুয়া খেলার আসর বসাচ্ছে।

এদিকে জুয়া খেলার বিরুদ্ধে ওমর ফারুকের প্রকাশ্য প্রতিবাদ করতে দেখে এবার তাকে ফাঁসাতে জুয়াড়িরা বিভিন্ন ফন্দি করছে বলে তিনি অভিযোগ তুলেছেন। তিনি জানান, জুয়া খেলার বিরুদ্ধে আমার প্রকাশ্যে প্রতিবাদ প্রতিরোধ দেখে জুয়াড়িরা এখন আমাকে নানাভাবে ফাঁসাতে উঠেপড়ে লেগেছে। এলাকার শান্তিপ্রিয় সকল মানুষই চায় গাজীপুর বাজার এলাকা থেকে চিরতরে জুয়া খেলা বন্ধ হোক। তিনি আরো বলেন, এক সময়ে আমি পারিবারিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে খারাপ ছিলাম। এখন স্ত্রী ও ২ সন্তানকে নিয়ে বাকিটা জীবন সুখে-শান্তিতে বসবাস করে জীবদ্দশায় ধর্মীয় কাজ করার পাশাপাশি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে যাবো।

একটি সূত্র জানিয়েছে, এই এলাকায় ক’জন অসাধু লোকের মূল পেশাই জুয়া খেলা। চিহ্নিত জুয়াড়িরা দিনে ছদ্মবেশে ভদ্র মানুষ সেজে রাতে জুয়া খেলায় বসে নিজের অপকর্মটা প্রকাশ করে মাত্র। পরিকল্পিতভাবে জুয়া খেলা বসিয়ে অনেককেই সর্বস্বান্ত করছে তারা।

এ নিয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি শহীদ হোসেন বলেন, যে কোনো জুয়া খেলার বিরুদ্ধে পুলিশ জনস্বার্থে সোচ্চার ভূমিকায় রয়েছে এবং থাকবে। প্রতিটি এলাকাই জুয়া খেলা এবং মাদকমুক্ত রাখতে থানা পুলিশ কঠোর অবস্থানে থেকে কাজ করছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়