বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   ড্রেজার ধ্বংস করাসহ মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
  •   শাহরাস্তিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন
  •   ফরিদগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ছাত্রলীগের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী
  •   হাজীগঞ্জ পৌরসভা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত
  •   ভুয়া দুদক কর্মকর্তা সেজে চাঁদা দাবি

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০২২, ০০:০০

কচুয়ায় গণধর্ষণের শিকার ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ॥ আটক ১
মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ॥

কচুয়ায় গণধর্ষণের শিকার হয়েছে সপ্তম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রী। এ ঘটনায় মোঃ রাছেল (৩০) নামের এক যুবককে আটক করেছে কচুয়া থানা পুলিশ।

ছাত্রীটির পিতা কচুয়া উত্তর ইউনিয়নের তেতৈয়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তি জানান, গত শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আমার এক নাতনিকে খাবার দিতে যায় আমার মেয়ে। দুপুর ১টার দিকে খাবার দিয়ে সিএনজি অটোরিকশা যোগে বাড়ি ফেরার পথে তেতৈয়া গ্রামের মাদ্রাসা বাড়ির বাকি মিয়ার ছেলে মোঃ রাছেল, নুরুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ (৩৫) ও একই গ্রামের খামার বাড়ির আবু মিয়ার ছেলে মোঃ হাছান (২৫) ওই সিএনজিতে জোরপূর্বক উঠে ভয়-ভীতির মাধ্যমে আমার মেয়েকে জিম্মি করে খিড্ডা বাজারের পশ্চিম পাশে রোকসানা বেগমের পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তার পরনের উড়না দিয়ে মুখ বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। মেয়েটির জ্ঞান ফিরে এলে সে বাড়িতে এসে আমাদেরকে বিষয়টি অবগত করে।

ঘটনাটি স্থানীয়রা রফাদফা করতে ব্যর্থ হলে রোববার ছাত্রীটি ও তার পিতা কচুয়া থানা পুলিশের শরণাপন্ন হয়। পুলিশ ভিকটিমের দেয়া তথ্যানুসারে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে রাছেলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

কচুয়া থানার ওসি মোঃ মহিউদ্দিন জানান, ভিকটিমের দেয়া তথ্যানুসারে আমরা রাছেলকে আটক করেছি। অপর দু’জনকে আটকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সোমবার ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষাসহ তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়। এ ব্যাপারে কচুয়া থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়