চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ জিলকদ ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   অধ্যাপক    কামরুজ্জামান সাহেবের স্মরণ সভা  ও মিলাদ
  •   চাকুরি ক্ষেত্রে ক্যাডেটদের মতই বিএনসিসির সমান সুযোগ রয়েছে
  •   ফরিদগঞ্জে স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে অনশন
  •   মেঘনা নদীতে অভিযান চালিয়ে তিনটি বাল্কহেডসহ ৬ শ্রমিক আটক
  •   গাঁজাসহ যুবক আটক

প্রকাশ : ২২ জুন ২০২২, ০০:০০

সহপাঠীর জন্য সহমর্মিতা যেন চিরায়ত
অনলাইন ডেস্ক

একই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একই শ্রেণীতে যারা পড়ে, তারা পরস্পরকে সহপাঠী (ক্লাসমেট) গণ্য করে। আবার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একই বছরে একই শ্রেণীতে যারা পড়ে, তারা প্রতিষ্ঠানের ভিন্নতা সত্ত্বেও পরস্পর পরস্পরকে ইয়ারমেট বলে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। এদের প্রত্যেকের মধ্যে একটা গভীর বন্ধন মৃত্যুর পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত সাধারণত অটুট থাকে। সহোদর ভাই-বোনের সম্পর্কের চেয়ে ক্লাসমেট ও ইয়ারমেটদের সম্পর্কের গভীরতা অনেক ক্ষেত্রেই বেশি দেখা যায়। চাঁদপুরে তো ক্লাসমেট-ইয়ারমেটদের সংগঠন এসএসসি ও সমমান ১৯৮৬ ব্যাচ, ১৯৮৮ ব্যাচ ও ১৯৯২ ব্যাচসহ অন্যান্য ব্যাচের কর্মতৎপরতা মুগ্ধতা সৃষ্টির মতোই। প্রায়শই এসব ব্যাচের কর্মতৎপরতার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এরা শুধু পুনর্মিলনী, আনন্দ ভ্রমণসহ নানা বিনোদনমূলক কাজই করে না, এরা সহপাঠী ও ইয়ারমেটদের অসুস্থতা ও নানাবিধ সমস্যায় পাশে দাঁড়ানোসহ বিভিন্ন রকম কল্যাণকর কাজ করছে। এসবের পেছনে নির্মল বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কই ভিত্তি হিসেবে মূল ভূমিকা রাখছে এবং সেজন্যে অর্থের সংস্থানও হচ্ছে স্বতঃস্ফূর্তভাবে।

সহপাঠী ও ইয়ারমেটদের গভীর বন্ধনের বিষয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে থাকাকালীন যতোটা অনুভূত হয়, কর্মজীবনে তথা পেশাগত জীবনে এসে তারচে’ অনেক বেশি অনুভূত হয়। এর পেছনে নস্টালজিয়া বেশি প্রভাব ফেলে। শিক্ষা জীবনের অবাধ আনন্দ-উচ্ছলতায় আংশিকভাবে হলেও অবগাহন করা যায় ক্লাসমেট ও ইয়ারমেটদের সান্নিধ্যে, যেমনটি অন্য কোনোভাবে সম্ভব নয়।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াকালীন এক সহপাঠী আরেক সহপাঠীর জন্যে নানা সীমাবদ্ধতায় ইচ্ছে থাকলেও অনেক কিছু করতে পারে না। অসুস্থতা, দারিদ্র্য, দুর্যোগ-দুর্বিপাক, বিপদসহ নানা দুঃসময়েও সরব-সক্রিয় ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে পারে না, হতে চাইলেও বাধার সম্মুখীন হয়। এমন বাস্তবতাতেও হাজীগঞ্জের দেশগাঁও জয়নাল আবেদিন উচ্চ বিদ্যালয়ের পাঁচশ’ শিক্ষার্থী তাদের নিখোঁজ সহপাঠী ও সতীর্থ সামিয়া ইসলাম কাসফির জন্যে মানববন্ধন করেছে, যেটির খবর চাঁদপুর কণ্ঠসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ফলাও করে ছাপা হয়েছে। এটি অত্যন্ত ইতিবাচক, সময়োচিত ও কিছুটা সাহসিকতাপূর্ণও বটে।

হাজীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহেল মাহমুদ জানিয়েছেন, জনৈক বখাটে শাওন কর্তৃক অষ্টম শ্রেণীতে পড়ুয়া কাসফির অপহরণের অভিযোগটি আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। তাকে উদ্ধারে আমরা জেলা ও জেলার বাইরে অভিযান অব্যাহত রেখেছি। আমরা মনে করি, এ অভিযানে যদি সাফল্য আসে, তাহলে উক্ত বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন সার্থকতায় পর্যবসিত হবে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়