চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ জিলকদ ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   কচুয়ায় অগ্নিকাণ্ডে বসতঘর পুড়ে ছাই
  •   বাংলাদেশে ঈদুল আজহা ১০ জুলাই
  •   ডাকাত সন্দেহে কোস্টগার্ডের হামলায় নিখোঁজ ১ : আহত ২
  •   হাজীগঞ্জে নবজাতকের লাশ উদ্ধার
  •   অধ্যাপক    কামরুজ্জামান সাহেবের স্মরণ সভা  ও মিলাদ

প্রকাশ : ২১ জুন ২০২২, ০০:০০

হঠাৎ বিধবা ও এতিম হওয়াদের প্রসঙ্গে

হঠাৎ বিধবা ও এতিম হওয়াদের প্রসঙ্গে
অনলাইন ডেস্ক

স্বাভাবিক মৃতু বলতে আমরা বুঝি, কোনো দুর্ঘটনায় মৃত্যু না হয়ে পরিণত বয়সে রোগে-শোকে ভুগে পরিবারের সদস্যদের মাঝে কিংবা তাদের সেবা-শুশ্রূষায় হাসপাতালে বা অন্য কোথাও কারো চিরতরে চোখ বুঁজে ফেলা। অকাল মৃত্যু বলতে বুঝি, একেবারে স্বল্প বয়সে কোনো কারণে কারো মৃত্যু হওয়া। অস্বাভাবিক মৃত্যু বলতে বুঝি, কারো কোনো না কোনো দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু। এ মৃত্যু কারো যে কোনো বয়সেই হতে পারে।

কোনো বিবাহিত পুরুষের অকাল মৃত্যু/অস্বাভাবিক মৃত্যুতে তার স্ত্রী আকস্মিকভাবে বিধবা হয়ে যায় এবং তার সন্তানরা একেবারে শিশু-বয়সে এতিম হয়ে যায়। যদি ওই পুরুষটি দিনমজুর, কোনো যানবাহনের চালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী হন, নিম্ন বেতনভুক হন, সঞ্চয়ী না হন, প্রয়োজনীয় সম্পদের মালিক না হন, তাহলে তার বিধবা স্ত্রী বাবাহারা সন্তানদের নিয়ে অর্ধাহার-অনাহারসহ চরম দারিদ্র্য সর্বোপরি হতাশার অন্ধকারে নিপতিত হন। যেমনটি হয়েছেন হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের সদ্য প্রয়াত মোয়াজ্জিনের স্ত্রী-সন্তানরা। এভাবে চাঁদপুরের বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কতো বিবাহিত পুরুষের অকাল/অস্বাভাবিক মৃত্যুতে প্রায় প্রতিদিন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী বৈধব্যবরণ করে এবং শিশু সন্তানরা এতিম হয়ে অসহায়ত্বের শিকার হয় এটি নিয়ে বিভিন্ন থানা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের সহযোগিতায় কেউ জরিপ করেছে বা করছে কিনা সেটা জানা না গেলেও এ সংক্রান্ত পরিসংখ্যান প্রকাশ হওয়া জরুরি বলে আমরা মনে করি। এতে তাদের পাশে আত্মীয়স্বজনের বাইরে সরকারি/বেসরকারি সংস্থার লোকজনের দাঁড়াবার তাগিদ তৈরি হতে পারে বলে আমাদের বিশ্বাস।

গত ১৯ জুন রোববার ছিলো বিশ্ব বাবা দিবস। এদিনে সন্তানরা বাবাকে বিশেষভাবে মূল্যায়ন করে, শুভাশিস জানায়, অভিনন্দন জানায়। অথচ সেদিনই যদি কোনো সন্তান বাবার অকাল মৃত্যু বা অস্বাভাবিক মৃত্যুর কথা শোনে, তাহলে শোক ও কারুণ্য কোন্ পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছে সেটা কি ভাবা যায়! অথচ এমন ঘটনাই ঘটেছে শাহরাস্তিতে। এদিন দুপুর দেড়টায় এ উপজেলার সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের শোরশাক গ্রামের পশ্চিম পাড়ার মৃত আবুল কাশেমের পুত্র মোঃ জামাল হোসেন (৩৫) নামে এক অটোবাইক চালক দুর্ঘটনাজনিত কারণে মারা যান। তিনি অটোবাইক চালিয়ে শোরশাক থেকে সূচীপাড়া যাওয়ার পথে ধামরা গ্রামের পুলের পাশে বৃষ্টিভেজা কাঁচা রাস্তায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে পড়ে যান। ঘটনার সাথে সাথেই তিনি মারা যান। তিনি ছিলেন তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তাকে হারিয়ে তিন সন্তান নিয়ে দুচোখে অন্ধকার দেখছেন তার স্ত্রী মৌসুমী। তিনি গভীর শোকে আচ্ছন্ন হয়ে বলেন, জীবিকার সন্ধানে বেরিয়ে আমার স্বামী লাশ হয়ে ফিরলো। আমার ২ কন্যা ও এক পুত্র সন্তানকে দেখার কেউ রইলো না।

আমরা মনে করি, এই দেখার কেউ হোক সরকার। সরকার তার সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় অনেক ধরনের ভাতাই দিচ্ছে। অকাল বিধবা হওয়াদের মধ্যে যারা চরম অসহায়ত্ব ও দারিদ্র্যের শিকার হয়, তাদেরকে ভাতা দেয়ার বিষয়টি পেতে পারে অগ্রাধিকার। আর এতিমদের পাশে দাঁড়াতে পারে ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়। এছাড়া দেশে বিদ্যমান এনজিওগুলোর মধ্যে কোনো না কোনোটি অকাল বিধবা ও এতিম হওয়াদের পুনর্বাসন সংক্রান্ত প্রকল্প গ্রহণ করলে আমাদের বিশ্বাস, তারা দেশী-বিদেশী দাতা কিংবা দাতা সংস্থা থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ পাবে। আমরা অকাল বিধবা ও এতিম হওয়াদের ব্যাপারে সরকার, এনজিও, দাতা সংস্থাকে বিশেষভাবে ভেবে দেখার জন্যে অনুরোধ জানাচ্ছি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়