চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ৩৩ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   হাজীগঞ্জের শিশু আরাফ হত্যায় তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড
  •   কল্যাণপুর ইউপির জেলে চাল আত্মসাৎ, দুই গুদাম সিলগালা
  •   মা আর স্ত্রীকে বুঝিয়ে দেয়া হলো দুই ভাইয়ের লাশ
  •   বাকিলা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভিম ধ্বসে ৩ ছাত্রী গুরুতর আহত
  •   আশিকাটিতে খাটের নিচে গৃহবধূর লাশ ॥ স্বামী পলাতক

প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০

এমনটি কি ভালো নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্যে ?
অনলাইন ডেস্ক

আমরা চুঙ্গা ফুঁকিয়ে কারো মনোরঞ্জনের জন্যে এ কথা বলতে চাই না যে, দেশের সর্বত্র ও চাঁদপুর জেলার সর্বত্র চলমান ইউপি নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হয়েছে। তবে ভালোকে ভালো, কালোকে কালো, সাদাকে সাদা বলার নীতিতে এ কথা স্বীকার করতেই হয় যে, ইউপি নির্বাচনের চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ অন্যান্য ধাপের চেয়ে চাঁদপুরে তুলনামূলকভাবে ভালো হয়েছে। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা বিদ্রোহী কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নিকট বেশি পরাজিত হয়েছেন, সে বিবেচনায় এ নির্বাচনকে ভালো বলা হয়নি। চাঁদপুরে এ দু ধাপের নির্বাচনে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের ব্যাপকতা, সহিংসতা, কেন্দ্র দখলের প্রবণতা তুলনামূলক কম ছিলো বলে ভোটগ্রহণের সুষ্ঠু পরিবেশ ছিলো এবং সেজন্যে অনেক বেশি ভোটার স্বাচ্ছন্দ্যে ভোট দিতে পেরেছে। এর পেছনে স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আইন প্রয়োগকারী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনী সমূহের সদস্য-কর্মকর্তাদের সুষ্ঠু দায়িত্ব পালনের অবদান রয়েছে বলে পর্যবেক্ষক মহল দাবি করেন।

চাঁদপুর কণ্ঠে গতকাল ফরিদগঞ্জের বয়োবৃদ্ধ এক ভোটারের সরল অভিব্যক্তি নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রথম পৃষ্ঠায় অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে ছাপা হয়েছে, যার শিরোনাম হয়েছে ‘আগে কইতো ভোট শেষ, এবার কইলো ভোট দিতে আইয়েন’। প্রতিবেদনটিতে তার মতো আরো অনেক ভোটারের সন্তুষ্টি স্থান পেয়েছে। প্রকাশিত আরেকটি সংবাদের শিরোনাম হয়েছে ‘ফরিদগঞ্জে দল করেছে বহিষ্কার, ভোটার দিয়েছে পুরস্কার’। উপরোক্ত দুটি সংবাদে অধিকাংশ পাঠকের মন ভরলেও আরেকটি সংবাদে মন কিন্তু অনেক খারাপ হয়েছে। এ সংবাদটির শিরোনাম হয়েছে ‘সংবাদ সম্মেলনে এক প্রার্থীর অভিযোগ : ফরিদগঞ্জে রাত পেরোতেই পাল্টে গেল ফলাফল শীট’।

এ সংবাদে লিখা হয়েছে, ফরিদগঞ্জ উপজেলাধীন গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের একটি ওয়ার্ডের সদস্য পদে ফলাফল শীট পাল্টে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। নির্বাচনের দিন (৫ জানুয়ারি ২০২২) বুধবার রাতে চার দফা ভোট গণনাশেষে হারুনুর রশিদ জমাদারকে বিজয়ী ঘোষণা করে স্বাক্ষরিত ফলাফল শীট হস্তান্তর করেন প্রিজাইডিং অফিসার। রাত পেরোতেই বৃহস্পতিবার সকালে ফলাফল পাল্টে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল আহাদকে বিজয়ী দেখানো হয়। এমন অভিযোগে ওইদিন বিকেলে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সংক্ষুব্ধ সদস্য প্রার্থী হারুনুর রশিদ জমাদার।

ফরিদগঞ্জে স্মরণকালের মধ্যে অনুষ্ঠিত একটি ভালো নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্যে ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের দক্ষিণ ধানুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার, রিটার্নিং অফিসার বা তার কার্যালয়ের কেউ সংশ্লিষ্ট কিনা সেটি অবশ্যই তদন্ত করা দরকার। এক্ষেত্রে ফরিদগঞ্জের ইউএনও’র পদক্ষেপই যথেষ্ট হতে পারে বলে আমরা মনে করি। আশা করি তিনি ত্বরিৎ সে পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়