বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   ড্রেজার ধ্বংস করাসহ মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
  •   শাহরাস্তিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন
  •   ফরিদগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ছাত্রলীগের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী
  •   হাজীগঞ্জ পৌরসভা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত
  •   ভুয়া দুদক কর্মকর্তা সেজে চাঁদা দাবি

প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০

মতলবে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো এক মাদ্রাসা ছাত্রী

মতলবে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো এক মাদ্রাসা ছাত্রী
রেদওয়ান আহমেদ জাকির ॥

মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মোল্লার হস্তক্ষেপে ৯ সেপ্টেম্বর শুক্রবার দুপুরে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে নন্দিখোলা মাদ্রাসার নবম শ্রেণির এক ছাত্রী (১৫)।

এলাকাবাসী জানান, গতকাল শুক্রবার দুপুরে ওই ছাত্রীর সঙ্গে কচুয়া উপজেলা সদরের এক যুবকের বিয়ের আয়োজন চলছিলো। বরপক্ষ কনের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়ে বাড়ির কাছাকাছি চলে আসে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মোল্লা বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাহমিদা হক ও সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিনকে জানান।

ইউএনও’র নির্দেশে লোকজন নিয়ে ওই চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে যান এবং বিয়ের আয়োজন বন্ধ করে দেন। ভেঙ্গে দেন বিয়ের প্যান্ডেলও। খবরটি বরপক্ষের কাছে মুঠোফোনে পৌঁছালে বরপক্ষের লোকজন কনের বাড়িতে না গিয়ে বাড়ি ফিরে যান।

ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মোল্লা বলেন, বিয়েটি বন্ধ করার পর মেয়েটিকে সাবালিকা হওয়ার আগে আর বিয়ে দেবেন না বা বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবেন না মর্মে লিখিত অঙ্গীকারনামাও আদায় করেন তার বাবার কাছ থেকে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমিদা হক বলেন, বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক অপরাধ। এর ফলে একটি মেয়ে মানসিক ও শারীরিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। অনিশ্চিত হয়ে পড়ে তার ভবিষ্যৎ জীবন। এর কুফল সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করে উপজেলাকে বাল্যবিবাহমুক্ত করার চেষ্টা করছি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়