সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২১ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   হুমকির মুখে ১৪ নং ওয়ার্ডের পরিবেশ
  •   চাঁদপুরে মাদকবিরোধী অভিযানে ইয়াবাসহ ১ জন আটক
  •   উপজেলা প্রেসক্লাব হাইমচবের নির্বাচন তফসিল ঘোষণা
  •   ইতালি সরকার ৮০ হাজার শ্রমিক নেবে
  •   মোস্তাক হায়দার চৌধুরীর জানাজা সোমবার বাদ জোহর

প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৬

হাজীগঞ্জের পৃথক দুটি তদন্ত চলছে

পরিস্থিতি স্বাভাবিক : ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার

কামরুজ্জামান টুটুল
পরিস্থিতি স্বাভাবিক : ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার

গত কয়েকদিনে গুজব আতঙ্ক আর অনাকাঙ্খিত ঘটনার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আজ সোমবার ভোর থেকে উপজেলা প্রশাসনের জারিকৃত আদেশটি প্রত্যাহার করে নেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। বুধবার রাতের ঘটনায় প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে তদন্ত কাজ চলমান রয়েছে।

জানা যায়, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় আগের জারিকৃত ১৪৪ ধারার আদেশ প্রত্যাহার করে নেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোমেনা আক্তার। এর আগে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নতুন করে সংঘাত এড়াতে এবং উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১৪৪ ধারা জারি করে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।

এদিকে জেলা প্রসাসকের গঠিত কমিটি ও পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের গঠিত পৃথক তদন্ত কমিটির সংশ্লিষ্টরা ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী,স্বাক্ষীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে কথা বলেছেন। কমিটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করে বিশ্লেষন করাসহ সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে লিখিত ও মৌখিক তথ্য সংগ্রহ করছেন বলে জানা গেছে।

জেলা প্রশাসনের গঠিত ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন সরোয়ারকে প্রধান করা হয়েছে। এ কমিটির অন্যরা হলেন, হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ ও ফরিদগঞ্জ সার্কেল), উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাজীগঞ্জ, জেলা ইসলামী ফাউন্ডেশনের ডিডি (উপ-পরিচালক)। এই কমিটিকে ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে

পুলিশের তদন্ত কমিটি ৩ সদস্যের প্রধান হলেন, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) মো. ইকবাল হোসেন। এ কমিটির অন্যরা হলেন : পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার খন্দকার নূর রেজওয়ানা পারভিন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়। এই কমিটিও ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করবেন।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দিনে কুমিল্লায় কুরআন আবমানার জেরে একই দিন রাত আনুমানিক আটটার দিকে হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়কের দিক থেকে হাজীগঞ্জ বাজারে দিকে একটি মিছিল আসে। মিছিলটি বাজার প্রদক্ষিণ করে পশ্চিম বাজারস্থ শ্রী শ্রী রাজা লক্ষ্মী নারায়ন জিউর আখড়ায় অবস্থিত পূজামন্ডপে সামনে আসলে মিছিল থেকে কে বা কারা পূজামন্ডপের গেইটের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। এতে ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ মিছিলকারীদের প্রতিরোধের চেষ্টা করলে পুলিশের উপর ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। এর পরে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়লে চারজন নিহত অপর ৪ জন আহত হয়। এছাড়াও মিছিলকারীদের ইট-পাটকেলের আঘাতে ১৭ জন পুলিশসহ পথচারী আহত হয়েছেন। সেদিন রাত থেকে পুরো হাজীগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। ১৪৪ ধারা চলাকালে ২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বিজিবি, র‌্যাব ও গোয়েন্দা পুলিশের টহলসহ বিভিন্ন পূজা মন্ডপে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়