মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর, ২০২২  |   ২৭ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   নদীতে যৌথ অভিযান হবে এবং যথাযথ শক্তভাবে হবে : জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান
  •   শেখ ফরিদ আহমেদ মানিকের সুস্থতা কামনায় মসজিদে দোয়া
  •   হাসপাতাল হলো ময়লার ভাগাড়
  •   মায়ের বুকে শিশুর মৃত্যু?
  •   পানিতে ডুবে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০২২, ২০:০৯

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ১৭ মাসে ৭ বার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন

দীর্ঘ অভিজ্ঞতা ও ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের দিক নির্দশনা অনুযায়ী চেষ্টা করছি আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে : আব্দুর রশীদ

দীর্ঘ অভিজ্ঞতা ও ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের দিক নির্দশনা অনুযায়ী চেষ্টা করছি আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে : আব্দুর রশীদ
গোলাম মোস্তফা

চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ যোগদানের পর থেকেই শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং চাঁদপুর সদর উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির স্বাভাবিক রাখতে একজন দক্ষ ও অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ পুলিশ কর্মকর্তায় পরিচয় দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী চাঁদপুরের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা ও পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) নির্দেশনায় সদর মডেল থানা এলাকা কে অপরাধমুক্ত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন ওসি আব্দুর রশীদ।

এজন্য নানান কৌশল অবলম্বন করে অল্পদিনের মধ্যেই সকল মহল ও সাধারণের জনগণের নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছেন। ফলে চাঁদপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে একের পর এক সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছেন। ওসি মুহাম্মদ আবদুর রশিদের নেতৃত্বে থাকা চাঁদপুর সদর মডেল থানায় কর্মরত ইন্সপেক্টর, এসআই, এএসআই ও নারী-পুরুষ পুলিশ সদস্যরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় তাঁর দিক নির্দেশনায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

মুহাম্মদ আবদুর রশীদ ২০২১ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী চাঁদপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বা ওসি হিসেবে যোগদান করেন। তিনি যোগদানের পর চাঁদপুর সদর মডেল থানায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গতবাধা কাজ থেকে বের হয়ে আধুনিকতার সাথে তাল মিলিয়ে ব্যাপক পরিবর্তন করে পুরো জেলার মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সুনাম অর্জনে কাজ করে চলছেন চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ।

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারী মাস থেকে ২০২২ সালের আগষ্ট মাস পর্যন্ত ১৭ মাসে তিনি ৭ বার চাঁদপুর জেলার ৮টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বা ওসি হিসেবে সফলতা অর্জন করেন।

জেলার পুলিশের মাসিক মূল্যায়ন সভায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের মধ্যে এটিই জেলার প্রথম কোনো থানার দায়িত্ব প্রাপ্ত ওসিদের মধ্যে তিনিই প্রথম কোনো ব্যক্তি। যিনি বা যে নিজের দক্ষতা অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে একজন চৌকস অফিসার হিসেবে ১ বছর ৭ মাসে ৭ বার একই ব্যক্তি শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন অক্ষুণ্ণ রেখে নিজের সুনাম ধরে রাখার ও রেকর্ড অব্যাহত রাখা কর্মকর্তার।

সর্বশেষ গতকাল ৭ আগষ্ট চাঁদপুর জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় জেলা পুলিশে কর্মরত কর্মকর্তাদের পেশাগত কাজে আরো উদ্যোগী হওয়ার জন্য বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের চালু হওয়া এই বিশেষ কর্ম পদ্ধতির সভায় তাঁকে ৭ম বারের মতো চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রশীদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন জেলা পুলিশের অভিভাবক পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ পিপিএম বার।

তিনি সদর মডেল থানার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এই থানা এলাকায় ইতিমধ্যে যে কটি হত্যার ঘটনা ঘটেছে। সে ঘটনাগুলোর ক্লু উদঘাটনে এবং হত্যার রহস্য উদঘাটনে কাজ করতে গিয়ে কখনো ঘটনার ২৪ ঘন্টা বা ১দিন, কখনো ৪৮ ঘন্টা বা ২দিন, কখনো ৭২ ঘন্টা বা ৩দিন হত্যা রহস্য উদঘাটন এবং মুল আসামী আটক করতে সক্ষম হয়েছেন। শুধু তাই নয়, মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রশীদ এই সদর মডেল থানায় যোগদানের পর ১৭ মাসের মধ্যে ২ টি ঈদ অর্থাৎ পবিত্র ঈদুল আজহা ও ঈদূল ফিতরে এই উপজেলার আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে সক্ষম হয়েছেন। যা ছিলো অতীতের সকল রেকর্ড কে ভঙ্গ করার ইতিহাস।

দপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আবদুর রশিদ বলেন, চাঁদপুর জেলার পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) স্যারের নির্দেশনায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও চাঁদপুর সদর উপজেলাবাসীর নিবিঘ্নে জীবনযাপন করার জন্য সবসময় কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিংসহ সকল সামাজিক অপরাধ নির্মূলে আমরা বদ্ধপরিকর। আমি আমার দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে সকল অপরাধ দমনে ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় চাঁদপুর সদর উপজেলা বাসীসহ সকল জনসাধারণের কাছে সহযোগিতা কামনা করছি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়