চাঁদপুর, সোমবার ২০ জানুয়ারি ২০২০, ৬ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জমাদউলি আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • মতলব উত্তরের আমিরাবাদ এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের মুল বেড়িবাঁধে মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬১-সূরা সাফ্ফ


১৪ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১৩। এবং তিনি দান করিবেন তোমাদের বাঞ্ছিত আরও একটি অনুগ্রহ : আল্লাহর সাহায্য ও আসন্ন বিজয়; মু'মিনদিগকে সুসংবাদ দাও।


 


 


 


 


প্রাচীন মহিলার দেহের গহনা অবশ্যই খাদবিহীন হবে।


-জুভেনাল।


 


 


কৃপণ ব্যক্তি খোদা হতে দূরে লোকসমাজে ঘৃণিত, দোজখের নিকটবর্তী।


 


ফটো গ্যালারি
বমির বিভিন্ন কারণ ও প্রতিকার
ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়া
২০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বমি করেনি বা বমির ভাব হয়নি কখনো এমন মানুষ পৃথিবীতে নেই বললেই চলে। খাদ্য গ্রহণ এবং চলাফেরা বা বিভিন্ন রোগ-ব্যাধির কারণে মানুষের বমি ভাব বা বমি হয়ে থাকে। বমি কোনো রোগ নয় বরং রোগ বা শারীরবৃত্তীয় সমস্যার উপসর্গ মাত্র।



পাকস্থলী ও অন্ননালীর মাংসপেশীর সম্মুখদিকে অগ্রসরমান ও মলদ্বার অভিমুখী একটা নিজস্ব গতি আছে যাকে পেরিস্টালসিস বলে। পেরিস্টালসিসের কাজই হলো গৃহীত খাদ্যদ্রব্যের অপাচ্য অংশ এবং পরিপাকের শেষে উৎপন্ন বর্জ্য অংশকে মলাকারে পরিপাকতন্ত্রের বাইরে বের করে দেয়া। কিন্তু রোগ বা কোন জীবাণুর সংক্রমণ বা কোন হরমোন ও শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তনের প্রতিক্রিয়ায় এই সম্মুখগামী পেরিস্টালসিস পরিবর্তিত হয়ে উল্টোমুখী গতি লাভ করে। ফলে বমি বা বমির ভাব তৈরি হয় এবং গৃহীত অর্ধপাচ্য বা অপাচ্য খাদ্যাংশ ও পিত্তরস মুখের মাধ্যমে বাইরে নিক্ষিপ্ত হয়। এই প্রক্রিয়াকেই বমি বলে অভিহিত করা হয়। মস্তিষ্কের মেডুলা অবলংগাটাতে এরিয়া পোস্ট্রেমা নামক স্থানে বস্নাড ব্রেইন ব্যারিয়ারের বাইরে কেমোরিসেপ্টার ট্রিগার জোন নামে একটা কেন্দ্র আছে, যা বমনকেন্দ্র নামে পরিচিত। কোন কারণে এই বমনকেন্দ্র উত্তেজিত হলেই বমির সূচনা হয়।



 



বমির কারণে ঝুঁকি ও ক্ষতি :



ডিহাইড্র্রেশন বা পানিশূন্যতা।



সোডিয়াম, ক্লোরাইড,পটাশিয়াম, বাইকার্বোনেট জাতীয় ইলেকট্রোলাইটের ঘাটতি ও ভারসাম্যহীনতা।



ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম জাতীয় মিনারেলের ঘাটতি।



রক্তের ভলিয়ুম কমে গিয়ে রক্তচাপ কমে যাওয়া।



রক্তের পালস্ বা নাড়ি ক্ষীণ হয়ে আসে।



মাথা ঘোরাতে পারে।



তীব্র বমিতে অন্ননালীর ভেতরের দেয়াল ছিঁড়ে যেতে পারে। তবে তা বিরল।



বয়স ও লিঙ্গভেদে বিভিন্ন কারণে বমি হতে পারে। শিশুদের বমি হয় নিম্নোক্ত কারণে, যেমন :



ভাইরাস সংক্রমণ।



ফুড পয়জনিং বা খাদ্যে বিষক্রিয়া।



দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যে অ্যালার্জি।



গতি ভীতি বা যানবাহনযাত্রা।



অতিরিক্ত খাদ্য খাওয়ানো।



অতিরিক্ত ও তীব্র কাশি।



উচ্চমাত্রার জ্বর ও তদজনিত অসুস্থতা।



হেপাটাইটিস ও জন্ডিস।



তীব্র অ্যাপেন্ডিসাইটিস।



ক্ষুদ্রান্ত্রের নালীপথ আটকে যাওয়া।



মাথায় আঘাত বা ইনজুরি।



সাধারণত বমি বমি ভাব বা বমি হওয়ার সময় হতে বমির কারণ নিরূপণ করা যায়। যদি খাদ্য গ্রহণের অব্যবহিত পরে হয় তবে বমির কারণ খাদ্যে বিষক্রিয়া বা সালমোনেলা জীবাণুর সংক্রমণ,গ্যাসট্রাইটিস বা পাকস্থলী ও অন্ননালীর ভিতরের দিকের দেয়ালের আলসার বা ক্ষত হয়েছে বলে ধরে নেয়া যায়। খাদ্য গ্রহণের পরে আট ঘন্টা পর্যন্ত সময়ের ব্যাপ্তিতে খাদ্যে বিষক্রিয়াজনিত কারণে বমির সূচনা হতে পারে।



 



বড়দের বমির কারণ সমূহ :



গতি ভীতি বা সমুদ্র্র অসহনীয়তা।



গর্ভাবস্থা : হিউম্যান কোরিওনিক গোনাডোট্রপিক হরমোনের প্রভাবে গর্ভকালীন বমি হয়। কখনো কখনো প্রথম গর্ভকালীন সকালের দিকে অতিরিক্ত বমি বমি হয়। এ অবস্থাকে হাইপার ইমেসিস গ্র্যাভিডেরাম বলে।



হাইডাটিডিফর্ম মোল : সন্তান ধারণক্ষম নারীদের হাইডাটিডিফরম মোল নামের রোগ হলেও হিউম্যান কোরিওনিক গোনাডোট্রপিক হরমোনের প্রভাবে গর্ভকালীন বমির ন্যায় বমি হয়।



ঔষধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া : বিশেষত ক্যান্সার রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত ঔষধ, তীব্র বেদনানাশক মরফিন-প্যাথেডিন জাতীয় ঔষধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় বমি হয়।



তীব্র ব্যথা যেমন : পেটের ব্যথা, বুকের ব্যথা ইত্যাদি।



মাইগ্রেন পেইন।



উচ্চ রক্তচাপ।



নিম্ন রক্তচাপ।



টেনশন হেডেক।



মস্তিষ্কে টিউমার বা ব্রেন টিউমার।



মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ ও জমাট বাঁধা।



রক্তে অঙ্েিজন স্বল্পতা ও কার্বন মনো অঙ্াইড বৃদ্ধি।



হেড ইনজুরি।



তীব্র চোখ ব্যথা।



পিত্তথলির প্রদাহজনিত বমি।



হেপাটাইটিস বা যকৃত বা লিভারের প্রদাহ ও জন্ডিস।



খাদ্যে বিষক্রিয়া।



গ্যাস্ট্রোএন্টেরাইটিস।



অতিরিক্ত আহার।



দুর্গন্ধ বা অপ্রীতিকর গন্ধের প্রতিক্রিয়া।



হার্ট অ্যাটাক বা মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন।



অ্যাপেন্ডিসাইটিস ও বার্স্ট অ্যাপেন্ডিঙ্।



ইক্টোপিক প্রেগন্যান্সি বা অস্থানিক গর্ভসঞ্চার।



ইন্টেস্টাইনাল অবস্ট্রাকশন।



স্ট্র্যাঙ্গুলেটেড হার্নিয়া।



পোস্ট অপারেটিভ বেদনানাশকের প্রতিক্রিয়া।



কতিপয় ক্যান্সার ও ক্যান্সারের কেমোথেরাপীর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।



বুলিমিয়া।



সাইকোলজিক্যাল ডিজঅর্ডার।



গ্যাস্ট্রিক আউটলেট অবস্ট্রাকশন।



তীব্র কনস্টিপেশন ইত্যাদি।



অতিরিক্ত বমির কারণে কখনো কখনো অন্ননালীর ভিতরের দেয়াল ছিঁড়ে যেতে পারে যা 'মেলরী-ওয়েইজ্ ছেঁড়া' বলে পরিচিত। সম্পূর্ণ অন্ননালী ছিঁড়ে গেলে তাকে বোয়েরহাভ-সিন্ড্রোম বলে। এটি একটি মেডিকেল ইমার্জেন্সি।



 



বমির চিকিৎসা :



সংশ্লিষ্ট কারণের সঠিক নিরূপণ ও তা অপনোদন।



খাওয়ার স্যালাইন বা প্রয়োজনে শিরাপথে স্যালাইন প্রদানের মাধ্যমে ডিহাইড্রেশন সংশোধন করা।



বমি নিরোধক ঔষধ সেবন।



যাদের গ্যাস্ট্রাইটিস বা গ্যাস্ট্রিক আলসার আছে তারা নিয়মিত ডমপেরিডন সেবন।



পরিমিত আহার।



 



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৩৯,৩৩২ ২,৯২,০১,৬৮৫
সুস্থ ২,৪৩,১৫৫ ২,১০,৩৫,৯২৬
মৃত্যু ৪,৭৫৯ ৯,২৮,৬৮৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২০২৩৬
পুরোন সংখ্যা