চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২ জুলাই ২০১৯, ১৮ আষাঢ় ১৪২৬, ২৮ শাওয়াল ১৪৪০
jibon dip
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩২। উহারাই বিরত থাকে গুরুতর পাপ ও অশ্লীল কার্য হইতে, ছোটখাট অপরাধ করিলেও। তোমার প্রতিপালকের ক্ষমা অপরিসীম ; আল্লাহ তোমাদের সম্পর্কে সম্যক অবগত, যখন তিনি তোমাদিগকে সৃষ্টি করিয়াছিলেন মৃত্তিকা হইতে এবং যখন তোমরা মাতৃগর্ভে ভ্রূণরূপে ছিলে। অতএব তোমরা আত্ম-প্রশংসা করিও না, তিনিই সম্যক জানেন মুত্তাকী কে।


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


ন্যায়পরায়ণ বিজ্ঞ নরপতি আল্লাহর শ্রেষ্ঠ দান এবং অসৎ মূর্খ নরপতি তার নিকৃষ্ট দান।


 


ফটো গ্যালারি
জুলাইয়ের ৩য় সপ্তাহে জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরুর সম্ভাবনা
চৌধুরী ইয়াসিন ইকরাম
০২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জুলাইয়ের ৩য় সপ্তাহে শুরু হতে যাচ্ছে অষ্টাদশ জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। জেলার ৮ উপজেলার ক্রীড়া সংস্থার দলগুলো নিয়ে এ টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হবে। টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ৭৫ হাজার ও রানার আপ দল পাবে ৫০ হাজার টাকা। সর্বশেষ জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে মতলব উত্তর উপজেলা ও রানার আপ হয় চাঁদপুর সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা দল।



চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল উপ-কমিটির কর্মকর্তারা টুর্নামেন্ট উপলক্ষে ইতিমধ্যে অংশ নেওয়া দলগুলোর সাথে আলাপ করেছেন। প্রতিটি দলই খেলার জন্যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার দলগুলো স্থানীয়, ঢাকার ও দেশের বাইরের খেলোয়াড়দের সাথে আলাপ-আলোচনা অব্যাহত রেখেছে। তবে প্রতিটি দলই চাচ্ছে যে, জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে যেনো স্থানীয় ফুটবলারদের সুযোগ দেয়া হয় বেশি। উপজেলা দলের কর্মকর্তারা মনে করছেন যে, জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে স্থানীয় ফুটবলারদের খেলার সুযোগ দিলে ভালো হবে।



এ টুর্নামেন্ট উপলক্ষে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সিনিয়র ও জুনিয়র ফুটবলারগণ ইতিমধ্যে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন। প্রতিদিনই চাঁদপুর স্টেডিয়াম, আউটার স্টেডিয়াম ও উপজেলার বিভিন্ন মাঠে খেলোয়াড়রা অনুশীলন করছেন। শনিবার বিকেলে ক্রীড়া কণ্ঠের পক্ষ থেকে কচুয়া, শাহরাস্তি ও মতলব দক্ষিণের কয়েকজন ফুটবলারের সাথে মুঠোফোনে জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট নিয়ে কথা হলে তারা বলেন, ভাই আমরা শুনেছি যে, জুলাই মাসে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় স্টেডিয়ামে ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হবে। বর্তমানে বৃষ্টির মৌসুম চলছে। তারপরও আমরা এখন প্রতিদিনই অনুশীলন করে যাচ্ছি। চাঁদপুরে এখন আর আগের মতো খেলাধুলার আয়োজন করছে না জেলা ক্রীড়া সংস্থা। আমাদের জেলা স্টেডিয়ামের দায়িত্বে রয়েছেন জেলা প্রশাসক স্যার এবং আমরা জেনেছি যে ফুটবল উপ-কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন পুলিশ সুপার স্যার। আমরা জেলার শীর্ষস্থানীয় এই দুই কর্মকর্তার কাছে দাবি করবো, জেলা ও উপজেলার খেলোয়াড়দের খেলার মান উন্নয়নের জন্যে তাঁরা যেনো নিয়মিত স্টেডিয়ামে কিংবা উপজেলা পর্যায়ে খেলাধুলার আয়োজন করেন।



জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সিনিয়র ও জুনিয়র ফুটবলারদের নিকট আসন্ন ফুটবল লীগ উপলক্ষে জানতে চাইলে তারা বলেন, জেলা পর্যায়ে মাঝে মাঝে ফুটবল লীগ ও টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। বেশ কয়েক বছর আগে জেলা ক্রীড়া সংস্থা ফুটবলের উন্নয়নের লক্ষ্যে উদীয়মান ফুটবলারদেরকে নিয়ে মাসব্যাপী আবাসিক ফুটবল ক্যাম্পের ব্যবস্থা করেছিলো। সেই ক্যাম্প থেকে বিভিন্ন উপজেলার অনেক উদীয়মান ফুটবলার সৃষ্টি হয়েছে। ওই সময়ের ক্যাম্পে থাকা বেশ ক'জন ফুটবলার বর্তমানে ঢাকার বেশ ক'টি ক্লাবে খেলছেন। বেশ কয়েক বছর হয়ে গেলেও সেই আবাসিক ফুটবল ক্যাম্পের ব্যবস্থা করেনি জেলা ক্রীড়া সংস্থা। অথচ কয়েক বছর পর পরই জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী কমিটি নতুনভাবে গঠন করা হয়। আগের কমিটির চেয়ে বর্তমান জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যকরী কমিটি অনেক শক্তিশালী। চাঁদপুর স্টেডিয়ামে বেশি বেশি খেলার আয়োজন করা এ কমিটির পক্ষেই সম্ভব।



জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের বিষয় নিয়ে মুঠোফোনে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল উপ-কমিটির সম্পাদক আলহাজ্ব শাহির হোসেন পাটওয়ারীর সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি বলেন, আমরা সহসাই জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল উপলক্ষে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি পুলিশ সুপারের সাথে বসবো। কিভাবে খেলার আয়োজন করা যায় এবং খেলোয়াড়রা কিভাবে খেলতে পারবে সেই বিষয়ে আলোচনা করা হবে। আলোচনা শেষে জানিয়ে দেয়া হবে যে, কবে থেকে শুরু হচ্ছে অষ্টাদশ জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। তবে এবারের টুর্নামেন্টে স্থানীয় ফুটবলারদের প্রাধান্য দেয়া হবে বেশি। প্রতিটি দলেই যাতে স্থানীয় ফুটবলারগণ সুযোগ পায় খেলার আগে সেইভাবেই খেলার নিয়মাবলি তৈরি করা হবে।



জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুর সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করছি জুলাই মাসের ৩য় সপ্তাহে জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করার। দেশের পরিস্থিতি এবং প্রাকৃতিক পরিবেশ ভালো থাকলেই এই খেলা শুরু করা সম্ভব। এবারের জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে স্থানীয় ফুটবলাররা যেনো বেশি খেলতে পারে আমরা কমিটির নেতৃবৃন্দের কাছে সেই সুযোগ সৃষ্টিতে আবেদন করবো।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৪০২৫
পুরোন সংখ্যা