চাঁদপুর, শুক্রবার ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


 


 


 


আনন্দ এমন একটা ফল যা অনুন্নত দেশে দুষ্প্রাপ্য। -জন কেনড্রিক।


 


 


 


 


প্রত্যেক কওমের জন্য একটি পরীক্ষা আছে আর আমার উম্মতদের পরীক্ষা তাদের ধন-দৌলত।


 


 


ফটো গ্যালারি
রোটারী অঙ্গনের এক ধ্রুবতারা ডাঃ নূরুর রহমান, পিএইচএফ
২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা রোটাঃ আলহাজ্ব ডাঃ নূরুর রহমান পিএইচএফ ছিলেন চাঁদপুরের সর্বজনশ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব । একজন চিকিৎসক হিসেবে সুখ্যাতির পাশাপাশি চাঁদপুরের অরাজনৈতিক ও সমাজকল্যাণমূলক কর্মকা-ে তিনি ছিলেন অগ্রণী ভূমিকায় অবর্তীর্ণ। তাঁর জীবদ্দশায় এক্ষেত্রে তাঁর কোনো জুড়ি ছিলো না। ডাঃ নূরুর রহমান ১৯২৭ সালে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের পশ্চিম সকদী দারোগা বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। নবম শ্রেণীতে পড়ার সময় তাঁর পিতা আবদুর রহমান অকালে মৃত্যুবরণ করলে তিনি কঠিন জীবন সংগ্রামের মুখোমুখি হন। নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও ঐকান্তিক আগ্রহে তিনি পড়ালেখা চালিয়ে যান। তাঁর ছাত্রজীবন কাটে ডি.এন. উচ্চ বিদ্যালয়, কোলকাতা প্রেসিডেন্সী কলেজ, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ ও ঢাকা মেডিকেল কলেজে। তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান দখল করে এমবিবিএস পাস করেন এবং সেনাবাহিনীতে চাকুরি লাভ করেন। কিন্তু সে চাকুরি তিনি করেননি। তিনি ব্যাপৃত হলেন নিজ এলকার মানুষের চিকিৎসাসেবায়। ১৯৫৪ সাল থেকে শুরু করে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ প্রায় ৪৩ বছর তিনি জেনারেল প্র্যাকটিশনার হিসেবে সুনামের সাথে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন।



১৯৭০ সালে চাঁদপুর রোটারী ক্লাব প্রতিষ্ঠা করে সমাজসেবার ক্ষেত্রে সক্রিয় বিচরণ শুরু করেন। তিনি চাঁদপুরের সবচে' ভালো ও গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের রোটারী ক্লাবে অন্তর্ভুক্ত করে চাঁদপুরের সমাজসেবার ক্ষেত্রে নূতন দিগন্ত উন্মোচন করেন। সাপ্তাহিক ও ভ্রাম্যমাণ দাতব্য চিকিৎসালয় পরিচালনা করে তিনি গরিব-দুঃস্থ-অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হন। তিনি পাঁচটি আর.আই. কনভেনশনে যোগদান করেন। মফস্বল জেলা শহর চাঁদপুরে অবস্থিত একটি রোটারী ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা হলেও রোটারী জেলা-৩২৮০ বাংলাদেশ-এ তাঁর ছিলো ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা ও সদর্প পদচারণা। তিনি জেলা গর্ভনর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে রোটারী বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। ১৯৯৬ সালে সারা বিশ্বের একশ'জন সৌভাগ্যবান রোটারিয়ানদের অন্যতম হিসেবে রোটারী আন্তর্জাতিক পদক 'ঝবৎরাপব অনড়াব ঝবষভ' লাভ করে বিরল সম্মানে ভূষিত হন।



ডাঃ নূরুর রহমান চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের জন্যে ছিলেন নিবেদিতপ্রাণ। তিনি ৬টি রোটারী বর্ষে এই ক্লাবের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করে বিরল রেকর্ড স্থাপন করেন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় চাঁদপুর শহরের স্ট্র্যান্ড রোডে (বর্তমান কবি নজরুল সড়কে) চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের স্থায়ী ঠিকানা হিসেবে 'রোটারী ভবন' নির্মিত হয়।



রোটারী অঙ্গনের বাইরেও ডাঃ নূরুর রহমান তাঁর সাংগঠনিক দক্ষতার পরিচয় দেন। তিনি চাঁদপুর রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট ও বিএমএ চাঁদপুর শাখার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া জাতীয় অন্ধকল্যাণ সংস্থা, চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতি, বিএভিএস, শিল্পকলা একাডেমী, সাহিত্য একাডেমী, চাঁদপুর ক্লাব, আধূনিক (আমরা ধূমপান নিবারণ করি) ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানেও গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। ডাঃ নূরুর রহমান চাঁদপুর শহরের হাজী মহসিন রোডে ডি.এন. হাই স্কুলের পাশে নির্মিত নিজ বাসভবন 'রিপোজে' বসবাস করতেন। এখানে তিনি ১৯৯৭ সালের ২১ জানুয়ারি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ ক্যান্সারে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৭০ বছর। তিনি স্ত্রী ফাতেমা রহমান, দু'পুত্র, চার কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁকে চাঁদপুর পৌর গোরস্থানে চির সমাহিত করা হয়।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৮৬৩৩
পুরোন সংখ্যা