চাঁদপুর, শনিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • মতলব উত্তরের আমিরাবাদ এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের মুল বেড়িবাঁধে মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৯-সূরা হাশ্‌র


২৪ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


৮। এই সম্পদ অভাবগ্রস্ত মুহাজিরগণের জন্য যাহারা নিজেদের ঘরবাড়ি ও সম্পত্তি হইতে উৎখাত হইয়াছে। তাহারা আল্লাহর অনুগ্রহ ও সন্তুষ্টি কামনা করে এবং আল্লাহর ও তাঁহার রাসূলের সাহায্য করে। উহারাই তো সত্যাশ্রয়ী।


 


 


যে খেলায় কেউ জিততে পারে না সেটাই সবচেয়ে খারাপ খেলা।


-টমাস ফুলার।


 


 


কৃপন ব্যক্তি খোদা হতে দূরে লোকসমাজে ঘৃণিত, দোজখের নিকটবর্তী।


 


 


ফটো গ্যালারি
এক কিশোর মুক্তিযোদ্ধা
রুহুল আমিন রাকিব
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


হঠাৎ করে একদিন রাতের অাঁধারে রাশেদের গ্রামে ঢুকে পড়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। শুরু হলো সম্মুখযুদ্ধ। সেই যুদ্ধে রাশেদ নিজেও উপস্থিত হয়। নিজের জীবন বাজি রেখে সঙ্গী ভাইদের সঙ্গে নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে শত্রুদের ওপর



 



মা আমি চললাম, তুমি আমার জন্য কোনো চিন্তা করো না। আমার জন্য দোয়া করিও মা। আমি দেশ স্বাধীনের মিছিলে চললাম। তুমি ভাত রেঁধে রাখিও। ওই যে আমার লাল মুরগিটা আছে না! দুই দিন ধরে ডিম পাড়তাছে, মা আমার জন্য একটা ডিম তেল দিয়ে ভাজি করে রাখিও। আমি সকাল হওয়ার আগে ফিরে আসব, তার পরে ভাত খাব। একনাগাড়ে কথাগুলো বলল কিশোর রাশেদ। রাশেদের মা মনিরা বেগম বার বার ডাকার পরও পিছু ফিরল না।



 



রাশেদের একটাই কথা-মা তুমি আমার জন্য কোনো চিন্তা করো না! আমি সকাল হওয়ার আগে ফিরে আসব। রাশেদ সদ্য কিশোর বয়সে পা দিয়েছে। কত হবে বয়স! ষোলো কিংবা সতেরো। ঠোঁটের ওপরে সবেমাত্র লোম গজিয়েছে। গ্রামের এক দাদুর রেডিওতে খবরে শুনছে- দেশে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আক্রমণ করেছে। ঢাকা শহরজুড়ে শুধু লাশের মিছিল। দু-এক দিনের মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলায়ও আক্রমণ করবে। দেশ বাঁচাতে, দেশের মানুষকে বাঁচাতে, মা-বোনের ইজ্জত বাঁচাতে সারাদেশে মুক্তিযুদ্ধের ডাক এসেছে বাংলাদেশের গর্বিত পিতা শেখ মুজিবের জ্বালাময়ী ভাষণ শুনে।



 



শত শত নারী-পুরুষ রাজপথে নামতে থাকে। যার যা কিছু আছে শত্রুর মোকাবিলা করতে তাই নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বানে সাড়া দিয়ে ঘর ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসে লাখো মুক্তিকামী বাঙালি।



 



দেশ স্বাধীনের ডাকে সাড়া দিয়ে সেদিন রাতের অাঁধারে বাড়ি থেকে রাস্তায় নেমে আসে রাশেদ। লাখো মানুষের মিছিলে কণ্ঠ মিলিয়ে এগিয়ে চলে সামন পথে। মিছিল এসে দাঁড়ায় কুড়িগ্রামের রাজপথে। সবাই মিলে শপথ করে নিজের জীবন বাজি রেখে হলেও দেশকে শত্রুমুক্ত করবে। শরীরে একবিন্দু তাজা রক্ত থাকা অবস্থায় চুল পরিমাণ ছাড় দেওয়া হবে না হানাদারবাহিনীকে। মিছিল শেষে গঠন করা হয় মুক্তিবাহিনী। দেশকে স্বাধীন করতে, মা-বোনের ইজ্জত রাখতে, লাল সবুজের পতাকার জন্য মুক্তিবাহিনীতে নাম দেয় কিশোর রাশেদ। বাবা-মায়ের অজান্তে মুক্তিবাহিনীর সঙ্গে ঘুরে বেড়ায় গ্রামের পর গ্রাম। বুকভরা সাহস নিয়ে এগিয়ে চলে শত্রুর মোকাবিলা করতে। এমন করে চলল বেশ কয়েক দিন। হঠাৎ করে একদিন রাতের অাঁধারে রাশেদের গ্রামে ঢুকে পড়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। শুরু হলো সম্মুখযুদ্ধ। সেই যুদ্ধে রাশেদ নিজেও উপস্থিত হয়। নিজের জীবন বাজি রেখে সঙ্গী ভাইদের সঙ্গে নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে শত্রুদের ওপর। সেদিন সারারাত প্রচ- গোলাগুলি হয়। বাতাসে ভাসে মানুষ পোড়ার গন্ধ! ফজরের আজানের পরে থেমে যায় গোলাগুলির শব্দ। হানাদার বাহিনীর ভয়ে অস্থির থাকা, গ্রামের নিরীহ মানুষগুলো একে একে বেরিয়ে আসে ঘর ছেড়ে। রাশেদের বাবা-মাও এগিয়ে আসেন। হন্তদন্ত হয়ে খুঁজতে থাকেন প্রিয় ছেলে রাশেদকে। আশপাশে তাকিয়ে দেখেন আগুনে পুড়ছে কয়েকটা লাশ। রাশেদের বাবা-মা চিৎকার করে এগিয়ে যায় ওই দিকে। তবে আগুনে পোড়া লাশ দেখে কোনোভাবে চেনার উপায় নেই কোনটা তার ছেলের লাশ। সেদিনে ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় রাশেদের মা মনিরা বেগম। আজও অপেক্ষায় আছেন ছেলের ফিরে আসার পথ চেয়ে। বাংলার আকাশে যখন পতপত করে ওড়ে লাল সবুজের পতাকা। তখন মনিরা বেগম আনমনে হেসে ওঠেন! বাড়ির ওপর দিয়ে যখন মুক্ত-স্বাধীন ধানশালিকের ঝাঁক উড়ে যাওয়া দেখে আপন মনে বিড়বিড় করে কী যেন বলেন। কে জানে হয়তো ছেলেকে খুঁজে ফেরেন ওই মুক্ত-স্বাধীন পাখির দলে, নয়তো লাল সবুজের ওই স্বাধীন পতাকায়।



 



 



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৩৯,৩৩২ ২,৯২,০১,৬৮৫
সুস্থ ২,৪৩,১৫৫ ২,১০,৩৫,৯২৬
মৃত্যু ৪,৭৫৯ ৯,২৮,৬৮৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২২৪৫
পুরোন সংখ্যা