চাঁদপুর, বুধবার ২৯ মে ২০১৯, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৩ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৪। ‘তোমরা তোমাদের শাস্তি আস্বাদন কর, তোমরা এই শাস্তিই ত্বরান্বিত করিতে চাহিয়াছিলে।’

১৫। সেদিন নিশ্চয় মুত্তাকীরা থাকিবে প্রস্রবণ বিশিষ্ট জান্নাতে,


assets/data_files/web

একটা হাত পরিষ্কার করতে অন্য একটা হাতের সাহায্য দরকার।


-সিনেকা।


 


 


ব্যভিচারী হইতে ঈমান দূরে পলায়ন করে, কিন্তু সে ব্যভিচার ত্যাগ করিলেই ঈমান আবার তাহার নিকট প্রত্যাবর্তন করিবে।


ফটো গ্যালারি
ঘরে বসে ক্লিক করলেই ঈদের টিকিট
তুসিন আহম্মেদ
২৯ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ। নাড়ির টানে পরিবার নিয়ে দেশের বাড়ি যাবেন অনেকেই। কিন্তু তার আগে নামতে হবে টিকিট সংগ্রহের লড়াইয়ে। লাইনে না দাঁড়িয়েও কয়েক ক্লিকেই ঘরে বসে কেনা যায় বাস, ট্রেন, লঞ্চ ও বিমানের টিকিট।



ওয়েবসাইটের মাধ্যমে : বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট



যঃঃঢ়://িি.িবংযবনধ.পহংনফ.পড়স-এ ঢুকতে হবে। ঢুকলেই একটি পেজে দুটি অপশন থাকবে একটি সাইন ইন, অন্যটি সাইন আপ। যাদের আইডি খোলা আছে তারা ই-মেইল, পাসওয়ার্ড, সিকিউরিটি কোড দিয়ে সাইন ইন করে আইডিতে ঢুকবেন। যাদের আইডি খোলা নেই, তাদের নতুন আইডি খুলতে সাইন আপে ক্লিক করে নিবন্ধন করে নিতে হবে।



 



ওয়েবসাইট থেকে টিকিট কাটতে চাইলে 'চঁৎপযধংব ঞরপশবঃ' অপশনে ক্লিক করুন। ক্লিক করলে একটি পেজে ঢুকবেন। সেখানে 'ঝঃধঃরড়হ ভৎড়স' এবং 'ঝঃধঃরড়হ ঃড়' বাছাই করবেন। ভ্রমণের দিনক্ষণ বাছাই করবেন। এবার ক্লাস বাটনে ক্লিক করবেন। আপনার যে ধরনের টিকিট দরকার, সেটা বাছাই করবেন। সবশেষে 'ংবধৎপয ঃৎধরহ' বাটনে ক্লিক করতে হবে।



 



ট্রেন বাছাইকরণ : আপনি যে তারিখে যে রুটে বাছাই করেছেন, সেই রুটে এক বা একাধিক ট্রেন আছে। কোনটা কখন ছাড়বে, সব দেখা যাবে ওয়েবসাইটে। এখন যে ট্রেনে ভ্রমণ করতে চান, সেটার অপশনে কতজন প্রাপ্তবয়স্ক, কতজন বাচ্চা-এসব বাছাই করবেন। সর্বোচ্চ চারজন বাছাই করতে পারবেন। প্রাপ্তবয়স্ক, বাচ্চাসহ মোট চারজনের বেশি টিকিট আপনাকে দেয়া হবে না।



 



টিকিট বাছাইকরণ : এবার আসা যাক টিকিট বাছাইকরণে। এতে দুটি অপশন থাকবে : 'অঁঃড় ঝবষবপঃরড়হ' ও 'ঝবধঃ ঝবষবপঃরড়হ'। যদি অটো সিলেকশন সিলেক্ট করেন, সার্ভার কম্পিউটারে যেসব টিকিট পাওয়া যাবে, সেখান থেকে যে কোনো আসন দিয়ে দেবে। কিন্তু সিট সিলেকশনে ক্লিক করলে নিজের পছন্দ অনুযায়ী আসন বেছে নিতে পারবেন।



আসন বাছাইকরণ : সিট সিলেকশনে ক্লিক করলে আপনাকে নির্ধারণ করা বগির বা বগিগুলোর আসন পরিকল্পনা দেখাবে। যেসব আসন কালো দেখবেন, সেগুলো কাউন্টারের জন্যে নির্ধারিত। যেসব আসন লাল ও সবুজ, সেগুলো অনলাইনের জন্যে। লাল মানে এসব আসন এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে, সবুজগুলো এখনো কেনা যাবে। এসব থেকে আপনার পছন্দমতো আসন বা আসনগুলো বাছাই করবেন। বাছাই করলে পাশের ছোট্ট ট্যাবে আপনার আসনগুলোর নম্বর, ভাড়া, ভ্যাট, সার্ভিস চার্জসহ মোট ভাড়া দেখাবে। এরপর আপনার লিঙ্গ (পুরুষ বা নারী), বয়স এগুলো সিলেক্ট বা পূরণ করবেন। অটো সিলেকশন করলে তারাই আপনাকে দেখাবে কয়টি আসন আছে, ভাড়া কত। তবে কোন বগি, কোন আসন এসব দেখাবে না। এরপর লিঙ্গ, বয়স সিলেক্ট বা বাছাই করুন। ভ্রমণের ১০ দিন আগে থেকে ৪৮ ঘণ্টা আগ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে আসন বাছাই করতে পারবেন। ভ্রমণের ৪৮ ঘণ্টা আগে থেকে ভ্রমণের পূর্বমুহূর্ত পর্যন্ত সিট সিলেকশন বা বাছাইকরণ অপশন থাকবে না। তখন আপনাকে অটো সিলেকশনে যেতে হবে।



 



টিকিট কাটার সময় : টিকিট কেনার সময় সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা। রাত ১০টার পর টিকিট কাটার চেষ্টা করলে ব্যর্থ হবেন।



পেমেন্ট : টিকিটের বিল মেটাতে পারবেন ভিসা, মাস্টারকার্ড, আমেরিকান এঙ্প্রেস, ডিবিবিএল নেঙ্াস, ডিবিবিএল মোবাইল ব্যাংকিং থেকে। যেটা দিয়ে ভাড়া মেটাবেন, সেটাতে ক্লিক করবেন। একবার টিকিট কাটলে আগামী সাতদিন একই কার্ড থেকে টিকিট কাটতে পারবেন না। যদি কাটেন তাহলে আপনার টাকা কেটে রেখে দেবে, কিন্তু কোনো টিকিট দেবে না।



এরপর ই-মেইলে ঢুকলে বাংলাদেশ রেলওয়ে থেকে একটি মেইল আসবে। সঙ্গে একটি পিডিএফ ফাইল থাকবে। এখানে ডাউনলোড প্রিন্ট আউট অপশন আছে। পছন্দমতো পিডিএফ ডাউনলোড বা প্রিন্ট আউট করুন। যদি কাউন্টার থেকে টিকিটের হার্ডকপি নিতে চান তাহলে মোবাইল নম্বর এবং টিকিটের পিন নম্বর একটা কাগজে লিখে কাউন্টারে দিন, তারা আপনাকে টিকিট দেবে।



যার নামে আইডি খোলা হয়েছে, টিকিটও তার নামেই হবে। যদি তিনি ভ্রমণ করেন, তাহলে শুধু পিডিএফের প্রিন্ট কপি নিয়েই ভ্রমণ করতে পারবেন, কাউন্টার থেকে টিকিট তোলা লাগবে না। কিন্তু অন্য কেউ এই পিডিএফ দিয়ে ভ্রমণ করতে পারবে না। এক্ষেত্রে তাকে কাউন্টার থেকে টিকিট তুলতে হবে।



 



অ্যাপেও কাটা যাবে ট্রেনের টিকিট : অবশেষে নিজেদের মোবাইল অ্যাপ এনেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ওয়ান স্টপ মোবাইল অ্যাপ 'রেলসেবা'। প্রথমে এই ঠিকানা যঃঃঢ়ং://ঢ়ষধু.মড়ড়মষব.পড়স/ংঃড়ৎব/ধঢ়ঢ়ং/ফবঃধরষং?রফ=পড়স.পহংনফ.ৎধরষংযবনধ থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। আপাতত শুধু অ্যান্ড্রোয়েড সংস্করণে রয়েছে অ্যাপটি। তবে কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে আইওএস সংস্করণও আনা হবে শিগগিরই। অ্যাপটি ডাউনলোডের পর ইনস্টল করে চালু করলে লগইন অপশন দেখা যাবে। যদি রেলসেবা অ্যাপে আপনি নিবন্ধন করে থাকেন তাহলে ফোন নম্বর ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে। আর আগেই যদি আপনি বাংলাদেশ রেলের ই-সেবা ওয়েবসাইট নিবন্ধন করে থাকেন তাহলে সেই আইডি ব্যবহার করে লগইন করতে পারবেন। আর যদি অ্যাপটি নিবন্ধন না করে থাকেন তাহলে নতুন করে সাইন আপ বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপর নতুন একটি পেজ চালু হবে। সেখানে নাম, ফোন নম্বর, আইডির পাসওয়ার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। তারপর আপনার ফোনে একটি কোড যাবে। সেই কোডটি অ্যাপে সাবমিট করলেই আইডিটি তৈরি হয়ে যাবে।



 



যেভাবে কিনবেন টিকিট : প্রথমে অ্যাপের 'ঢ়ঁৎপযধংব' অপশনে যেতে হবে। তারপর 'ভৎড়স ংঃধঃরড়হ' অপশনে ক্লিক করে ড্রপ ডাউন মেন্যু থেকে কোন স্টেশন থেকে যাবেন নির্ধারণ করতে হবে। যদি স্টেশন না থাকে তাহলে সার্চ বাটন থেকে কিওয়ার্ড লিখে স্টেশন খুঁজে পাওয়া যাবে। একই পদ্ধতিতে কোথায় যাবেন তা নির্ধারণ করতে হবে 'ঃড় ংঃধঃরড়হ' অপশন থেকে। এরপর 'লড়ঁৎহবু ফধঃব' থেকে কোন তারিখ যাবেন নির্ধারণ করে 'ংবধৎপয ঃৎধরহ' বাটন চাপতে হবে। তাহলে ট্রেনের তালিকা পাওয়া যাবে। সেখান থেকে যে ট্রেনের টিকিট কাটা যাবে দেখা যাবে। সেখানে 'ংবষবপঃ পষধংং' অপশনে ক্লিক করে কোন ধরনের আসন নেবেন তা নির্ধারণ করতে হবে। তারপর 'ধফঁষঃ' ও 'পযরষফ' অপশন থেকে টিকিটের ধরন ও সংখ্যা নির্ধারণ করতে হবে। তারপর 'ংবষবপঃ ংবধঃ' অপশনে ক্লিক করতে হবে। এরপর আসন নির্বাচন করতে হবে। তারপর নতুন একটি পেজে টিকিটের সম্পর্কে বিস্তারিত দেখা যাবে। সেখান থেকে 'ঢ়ধু হড়'ি বাটনে ক্লিক করতে হবে। তাহলে অনলাইনের পেমেন্ট অপশনগুলো দেখা যাবে। ভিসা, মাস্টারকার্ড, এমেঙ্ কার্ড এবং বিকাশের মাধ্যমে অর্থ পরিশোধ করা যাবে। ফিরতি মেইল ও এসএমএসে টিকিট কনফারমেশন পাবেন গ্রাহকরা।



 



বাসের টিকিট



বিডিটিকেটস ডটকম : অনলাইনে অনেক মাধ্যমে বাসের টিকিট কাটা যায়। এর মধ্যে একটি 'বিডিটিকেটস ডটকম' (যঃঃঢ়ং://নফঃরপশবঃং.পড়স)। এখান থেকে দেশের ৬০০টিরও বেশিসংখ্যক রূটে চলাচলকারী শীর্ষস্থানীয় ২০টিরও বেশি বাস সার্ভিসের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন।



রুট বাছাই করার পরই সেই রূটে চলাচলকারী সব বাসের তালিকা চলে আসবে। তারপর গ্রাহক তার ভ্রমণের তারিখ, যাত্রাস্থল ও গন্তব্যস্থল এবং ভ্রমণের জন্যে বাস সার্ভিস বাছাই করার পর টিকিটের ভাড়া ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড অথবা বিকাশ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন। টিকিট কিনতে ব্যবহার করা যাবে ভিসা, মাস্টারকার্ড, বিকাশ, ডিবিবিএল, শিওর ক্যাশ, ব্র্যাক ব্যাংক, রকেট, আমেরিকান এঙ্প্রেস, আইপে, ইউপে।



টিকিট কেনা নিশ্চিত হয়ে গেলে গ্রাহকের মোবাইল ফোনে একটি নিশ্চিতকরণ এসএমএসে যাবতীয় তথ্যসহ টিকিটের রেফারেন্স নাম্বার পেঁৗছে যাবে এবং গ্রাহক সেই এসএমএসটি দেখিয়েই তার যাত্রা শুরু করতে পারবেন।



কোনো গ্রাহক টিকিট বাতিল করতে চাইলে পোর্টালে থাকা 'ক্যান্সেলেশন' বাটনে ক্লিক করতে হবে। সহজ একটি রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় টিকিট কেনার সময় প্রাপ্ত টিকিটের নম্বর এবং পিন নম্বর দিয়ে টিকিট বাতিল করা যাবে।



সহজ ডটকম : অনলাইনে বাসের টিকিট কেনার আরেকটি বিশ্বস্ত সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সহজ ডটকম। এখান থেকে বাসের টিকিট কিনতে প্রথমে যঃঃঢ়ং://িি.িংযড়যড়ু.পড়স লিংকে যেতে হবে। তারপর হোম পেজের নিচের দিকে 'নুঁ নঁং ঃরপশবঃং' অপশনে যেতে হবে। সেখান থেকে 'ভৎড়স' অপশনে কোথা থেকে যাবেন তা নির্ধারণ করতে হবে। তারপর 'ঃড়' অপশনে কোথায় যাবেন তা নির্ধারণ করতে হবে। তারপর তারিখ নির্ধারণ করে 'ংবধৎপয নঁংবং' অপশনে ক্লিক করলে কোন কোন বাসে আসন পাওয়া যাবে প্রদর্শিত হবে। সেখান থেকে পছন্দমতো বাস নির্ধারণ করতে হবে। তারপর 'ারব িংবধঃং' অপশনে ক্লিক করতে হবে। সেখান থেকে পছন্দসই আসন নির্বাচন করতে হবে। 'পযড়ড়ংব নড়ধৎফরহম ঢ়ড়রহঃ' নির্বাচন করে 'পড়হঃরহঁব' বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর নতুন একটি পেজ চালু হবে। সেখানে যাত্রীর নাম ও তথ্য দিতে হবে। সেখানে কত টাকা বিল হয়েছে তা-ও দেখা যাবে। 'পড়হভরৎস ৎবংবৎাধঃরড়হ' অপশনে ক্লিক করে বিল পরিশোধ করতে হবে। টিকিট কেনা নিশ্চিত হয়ে গেলে গ্রাহকের মোবাইল ফোনে একটি নিশ্চিতকরণ এসএমএসে যাবতীয় তথ্যসহ টিকিটের রেফারেন্স নম্বর পেঁৗছে যাবে এবং গ্রাহক সেই এসএমএসটি দেখিয়ে তার যাত্রা শুরু করতে পারবেন।



সহজ ডটকমের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমেও টিকিট কেনা যাবে। এর জন্যে এই ঠিকানা যঃঃঢ়ং://ঢ়ষধু.মড়ড়মষব.পড়স/ংঃড়ৎব/ধঢ়ঢ়ং/ফবঃধরষং?রফ=পড়স.ংযড়যড়ু.ৎরফবং থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। তারপর অ্যাপটি চালু করে অ্যাপে থাকা 'নঁং' বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপর অনলাইনে টিকিট কেনার মতোই কিনে ফেলা যাবে বাসের টিকিট।



টিকিট কিনতে ব্যবহার করতে পারেন ভিসা, মাস্টারকার্ড, বিকাশ, ব্যাংক এশিয়া, মাই ক্যাশ, ব্র্যাক ব্যাংক, এমটিবি ও নেঙ্াস।



লঞ্চের টিকিট



ঈদে অনেকেই লঞ্চে ঘরে ফিরবেন। এর জন্যে এবার ঈদের টিকিটের জন্যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লঞ্চঘাটে অপেক্ষা করতে হবে না। সহজ ডটকমে পাওয়া যাবে লঞ্চের টিকিট। এর জন্য প্রথমে এই ঠিকানায় যেতে হবে যঃঃঢ়ং://িি.িংযড়যড়ু.পড়স। তারপর হোম পেজের ওপরে থাকা 'ষধঁহপয' অপশনে ক্লিক করতে হবে। এরপর ঠিক বাসের টিকিট কেনার মতোই যাওয়া-আসার সময়, যাত্রীসংখ্যা এবং লঞ্চ নির্ধারণ করে সহজ ডটকম থেকে টিকিট কেনা যাবে। অ্যাপেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে। এছাড়া বিডিটিকেটস ডটকমেও (যঃঃঢ়ং://নফঃরপশবঃং.পড়স) লঞ্চের টিকিট কাটা যাবে। লঞ্চের টিকিট কেনা যাবে ভিসা, মাস্টারকার্ড, বিকাশ, ব্যাংক এশিয়া, মাই ক্যাশ, ব্র্যাক ব্যাংক, এমটিবি, আমেরিকান এঙ্প্রেস, নেঙ্াস ব্যবহার করে।



সূত্র : কালের কণ্ঠ অনলাইন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫১০৭০০
পুরোন সংখ্যা