চাঁদপুর, বুধবার ৩ এপ্রিল ২০১৯, ২০ চৈত্র ১৪২৫, ২৬ রজব ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, কিংবদন্তীতুল্য সমাজসেবক আলহাজ্ব ডাঃ এম এ গফুর আর বেঁচে নেই। আজ ভোর ৪টায় ঢাকার শমরিতা হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন।ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন।বাদ জুমা পৌর ঈদগাহে জানাজা শেষে বাসস্ট্যান্ড গোর-এ-গরিবা কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৮-সূরা ফাত্হ্

২৯ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মাদানী

১২। না, তোমরা ধারণা করিয়াছিলে যে, রাসূল ও মু’মিনগণ তাহাদের পরিবার-পরিজনের নিকট কখনই ফিরিয়া আসিতে পারিবে না এবং এই ধারণা তোমাদের অন্তরে প্রীতিকর মনে হইয়াছিল; তোমরা মন্দ ধারণা করিয়াছিলে, তোমরা তো ধ্বংসমুখী এক সম্প্রদায়।





 


মৃত্যু আরেক জীবন, সম্মানের সঙ্গে আমরা তার কাছে মাথা নত করি।              

-আলেকজান্ডার।


কাউকে অভিশাপ দেওয়া সত্যপরায়ণ ব্যক্তির উচিত নয়।





 


ফটো গ্যালারি
ফ্রিজের দরদাম
মিন্টু হোসেন
০৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


গরম চলে আসছে, বাড়ছে ফ্রিজের চাহিদা। রেফ্রিজারেটর বা ফ্রিজ এখন প্রতিটি বাড়ির অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে। স্মার্ট জীবনযাপনের অংশ হিসেবে ফ্রিজও হয়ে উঠেছে স্মার্ট বা আধুনিক। ফ্রিজ কিনতে গেলে এখন সবাই স্মার্ট ফ্রিজ বেছে নিচ্ছেন। খাবারের গুণগত মান যেন ঠিক থাকে স্মার্ট ফ্রিজের অনন্য বৈশিষ্ট্য সেটাই। স্মার্ট ফ্রিজ বলতে ফ্রিজে বাড়তি সুবিধার কথা মাথায় রাখছে মানুষ। এখন শুধু খাবার ঠান্ডা রাখার সুবিধা না দেখে তা বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে কি না, খাবারে বরফ জমায় কি না এসব বিষয় বিবেচনা করে মানুষ। রাজধানীর কয়েকটি দোকান ঘুরে দেখা গেল, এখন বাজারে নানা ব্র্যান্ডের ফ্রিজ আছে। একেক ফ্রিজের বৈশিষ্ট্য একেক রকম আর দামেও আছে ভিন্নতা।



 



স্যামসাং ইলেকট্রনিকস বাংলাদেশের কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকস বিভাগের প্রধান শাহরিয়ার বিন লুৎফর বলেন, দেশে অত্যাধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তির রেফ্রিজারেটর এনেছে স্যামসাং। এখন দৈনন্দিন জীবনে রেফ্রিজারেটর হচ্ছে মৌলিক একটি পণ্য। পরিবারের অন্য সদস্যের মতো এটিরও উচিত একইভাবে আমাদের যত্ন নেওয়া। টুইন কুলিং প্লাস ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া ফিল্টারের মতো উদ্ভাবনী ফিচারের মাধ্যমে সাত দিন পর্যন্ত খাবার সতেজ রাখে স্যামসাং রেফ্রিজারেটর। দেশের বাজারে স্যামসাং বাংলাদেশের টিএমএস, এসবিএস ও আপরাইট ক্যাটাগরির মোট ৩০টি মডেলের রেফ্রিজারেটর রয়েছে। ৫৮ হাজার ৯০০ থেকে ৪ লাখ ৯৯ হাজার ৯০০ টাকা দাম পর্যন্ত ফ্রিজ রয়েছে।



 



ঘরের ফ্রিজে যোগ হচ্ছে নতুন নতুন প্রযুক্তিঘরের ফ্রিজে যোগ হচ্ছে নতুন নতুন প্রযুক্তিট্রান্সকম ইলেকট্রনিকসের সহকারী ব্র্যাঞ্চ ম্যানেজার মো. আবুল বাশার বলেন, স্মার্ট ফ্রিজ মানে এখন উন্নত সুবিধার ফ্রিজ। এখনকার অনেক ফ্রিজেই ইনভার্টার প্রযুক্তি আছে। এতে ৫টি মোড কাজ করে। এর মধ্যে একটিতে ওপরে ডিপ আর নিচে নরমাল সুবিধা থাকে। এতে টুইন কুলিং প্লাস প্রযুক্তির সুবিধা থাকে। প্রয়োজনে ওপরের ডিপ কনভার্ট করে পুরোটাই নরমাল করে ফেলা যায়। কেউ বাসার বাইরে গেলে দীর্ঘ সময়ের জন্য এনার্জি সেভিং মোড চালু করে রাখতে পারেন। তখন চাইলে শুধু ডিপ চালু রাখতে পারবেন। এভাবে ৫টি মোডে ফ্রিজ কাজ করে। এ ছাড়া ফ্রিজের নকশা ও গড়নও গুরুত্বপূর্ণ।



 



স্মার্ট ফ্রিজগুলো এমনভাবে তৈরি হয়, যাতে মরিচা পড়বে না। এতে ফাইবার, ধাতব ও প্লাস্টিক উপাদান ব্যবহার করা হয়। ফ্রিজে আগে একটা ফ্যানে নরমাল মোড চালু করা যেত। এখন টুইন কুলিংয়ের কারণে কমপ্রেসরের ওপর চাপ কমেছে। একাধিক ফ্যান ব্যবহৃত হচ্ছে। আলাদা চেম্বারে আলাদা ফ্যান ব্যবহার করা হয়।



স্মার্ট ফ্রিজের বৈশিষ্ট্য কী?



টুইন কুলিং প্লাস প্রযুক্তি থাকায় দুর্গন্ধ ছড়ায় না, ৭০ শতাংশ আর্দ্রতা বজায় রাখে, স্মার্ট কনভারশন, ডিজিটাল ইনভার্টার প্রযুক্তি, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া প্রটেকটর, বিল্ট-ইন স্ট্যাবিলাইজার, ডোর অ্যালার্ম ও ডিওডোরাইজিং ফিল্টারের মতো সুবিধা থাকে। গতানুগতিক রেফ্রিজারেটরের সাইকেল বা ঘূর্ণনগতি সব সময় একই থাকে। অন্যদিকে স্মার্ট রেফ্রিজারেটরের ডিজিটাল ইনভার্টার টেকনোলজি (ডিআইটি) প্রযুক্তি প্রয়োজন অনুযায়ী ঘূর্ণনগতি পরিবর্তন করতে সক্ষম। কম গতিতেও এটি দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে। এই প্রযুক্তি কম শক্তি খরচ করে স্মার্ট রেফ্রিজারেটরকে সর্বোত্তম পর্যায়ে ঠান্ডা রাখে। গতানুগতিক রেফ্রিজারেটরের তুলনায় স্মার্ট রেফ্রিজারেটর অনেক কম শক্তি খরচ করে। গতানুগতিক রেফ্রিজারেটরের তুলনায় স্মার্ট রেফ্রিজারেটর অনেক কম শব্দ করে।



 



বাজারে এখন হিটাচি, সিঙ্গার, এলজি, তোশিবা, ওয়ার্লপুল, অ্যারিস্টন, সামস্যাং, হায়েস, হায়ার, শার্প, ওয়ালটন, ট্রান্সটেক, ভিশন, মার্সেল, ইকো প্লাস, যমুনা, মাইওয়ান, মিনিস্টার, বস_নানা ব্র্যান্ডের ফ্রিজ পাওয়া যাচ্ছে।



 



ওয়ালটন ও ট্রান্সটেক ফ্রিজ অনেকটা কম দামে পাওয়া যায়। ওয়ালটন ফ্রিজ দেশে তৈরি হয় আর ট্রান্সটেক তৈরি হয় চীনে।



 



বাংলাদেশে স্যামসাংয়ের কয়েকটি মডেলের ফ্রিজ সংযোজন করা হয়। দেশে তৈরি স্যামসাং ফ্রিজগুলোর দাম ৪৩ হাজার ৯০০ থেকে ৫৭ হাজার ৯০০ টাকা। ট্রান্সটেকের দাম ২৫ হাজার থেকে ৪০ হাজার টাকা। ওয়ার্লপুলের ৪০ হাজার থেকে ৫৫ হাজার টাকা। হিটাচি ৫৬ হাজার টাকা থেকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা মূল্যের ফ্রিজ আছে। যেসব ফ্রিজ সরাসরি জাপানে তৈরি সেগুলোর দাম বেশি। এগুলো থাইল্যান্ড থেকেও কিছু মডেল আসে। তবে এ ক্ষেত্রে এনার্জি সেভিংস বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ ও শক্তিশালী কুলিং ব্যবস্থা ও ইনভার্টার প্রযুক্তি ফ্রিজগুলো উন্নত করেছে।



 



ওয়ালটনের কর্মকর্তারা জানান, ২০১৯ সালে দেশের বাজারে ২০ লাখ ফ্রিজ বিক্রির লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। বাজারে ওয়ালটনের নতুন মডেলের ফ্রিজের মধ্যে রয়েছে ৫০১ লিটার ধারণক্ষমতার ব্যাপক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির পাশাপাশি দরজার (সাইড বাই সাইড) নন-ফ্রস্ট রেফ্রিজারেটর। ওয়ালটন রেফ্রিজারেটরের একটির দাম ৫৬ হাজার ৯০০ টাকা। অন্যটির দাম ৬০ হাজার ৯০০ টাকা। এ ছাড়া ১৭ মডেলের ননুফ্রস্ট ফ্রিজের দাম ২৭ হাজার ২০০ থেকে ৬০ হাজার ৯০০ টাকা পর্যন্ত। আর ৭৭ মডেলের ফ্রস্ট ফ্রিজ পাওয়া যাচ্ছে ১০ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ৪০ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে।



 



স্যামসাং কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকসের পণ্য ব্যবস্থাপক শামীম আহসান খান বলেন, ফ্রিজ কেনার আগে রাখার জায়গা ও খাবার সতেজ রাখার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে কিনতে হবে। কুলিং টেকনোলজি ও নন-ফ্রস্টের স্মার্ট ফ্রিজে বরফ খাবারে জমে না। এর বাইরে বিক্রয়োত্তর সেবার বিষয়টিও নিশ্চিত হতে হবে।



 



প্রতিষ্ঠানটির বিপণন বিভাগের প্রধান আশিক ইকবাল বলেন, মানুষের লাইফস্টাইলের সঙ্গে যায় এবং মজার সুবিধা আছে ও দ্রুত ফ্রিজিং হয়, খাবারে দুর্গন্ধমুক্ত অঞ্চল থাকে ও ব্যাকটেরিয়া ফিল্টার আছে, এমন বৈশিষ্ট্য দেখে ফ্রিজ কিনতে হবে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৩৩৮৪৭
পুরোন সংখ্যা