চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, কিংবদন্তীতুল্য সমাজসেবক আলহাজ্ব ডাঃ এম এ গফুর আর বেঁচে নেই। আজ ভোর ৪টায় ঢাকার শমরিতা হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন।ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন।বাদ জুমা পৌর ঈদগাহে জানাজা শেষে বাসস্ট্যান্ড গোর-এ-গরিবা কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে।
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৯-সূরা হুজুরাত


১৮ আয়াত, ২ রুকু, 'মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৪। যাহারা ঘরের বাহির হইতে তোমাকে উচ্চস্বরে ডাকে, তাহাদের অধিকাংশই নির্বোধ,


৫। তুমি বাহির হইয়া উহাদের নিকট আসা পর্যন্ত যদি উহারা ধৈর্য ধারণ করিত, তাহাই উহাদের জন্য উত্তম হইত। আল্লাহ ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।


 


 


কোনো বড় কাজই উৎসাহ ছাড়া লাভ হয়নি। -ইমারসন।


 


 


 


নিঃসন্দেহে তিন প্রকার লোকের দোয়া কবুল হয়-পিতার দোয়া, মোসাফিরের দোয়া এবং অত্যাচারিত ব্যক্তির দোয়া।


 


 


ফটো গ্যালারি
সৌদি আরব প্রবাসী শাহরাস্তি ফোরামের প্রতিবাদ সভা
খুনি জহিরুল ইসলামকে ফাঁসির মধ্য দিয়েই সুশাসন বাস্তবায়িত হবে
সৌদি আরব প্রতিনিধি
২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২০:১২
প্রিন্টঅ-অ+


সৌদি আরব প্রবাসী চাঁদপুর শাহরাস্তি ফোরামের উদ্যোগে  কোহিনূর হত্যার বিচার ও খুনিকে গ্রেফতার করার  দাবি জানিয়ে   রিয়াদস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারে   প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।     



সম্প্রতি শাহরাস্তি উপজেলাস্থ পৌর ১১ নং ওয়ার্ড এর  ভাটুনিখোলা বেপারী বাড়িতে গত ১৮ এপ্রিল রাতে   চাচাতো ভাসুর জহিরুল ইসলাম   প্রবাসী আরিফুল ইসলামের স্ত্রী   কোহিনূর বেগম  কে কুপিয়ে হত্যা করে বলে স্থানীয় সুত্রে জানা যায়। 



 আবদুল খালেকের ছেলে,  খুনি জহিরুল ইসলামকে দ্রুত গ্রেফতার করে  ফাশি দেয়ার দাবিতে প্রবাসী শাহরাস্তি ফোরামের পক্ষ থেকে উপজেলা প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।  প্রতিবাদ সভায়  সৌদি আরব প্রবাসী চাঁদপুর শাহরাস্তি ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিশিষ্ট সাংবাদিক ও নাট্যকার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় বলেন, খুনি জহিরুল ইসলামকে দ্রুত ফাশি দেয়ার মধ্য দিয়েই সুশাসন বাস্তবায়িত হবে-   সামাজিক অবক্ষয় দূর করতে হলে আইনের শাসন বাস্তবায়ন করতে হবে,  এবং সকল অপরাধের দ্রুত বিচার করতে হবে,  সন্ত্রাসী, জংগী,হত্যাকারী,  মাদকব্যবসায়ী কারো ভাই, বন্ধু  হতে পারেনা,  এরা দেশের শত্রু, দশের শত্রু, সমাজের শত্রু, জাতীর শত্রু।  এদের পক্ষ নিয়ে কেউ তদবির বা সুপারিশ করলে বুঝে নিতে হবে সেই ব্যাক্তিও দেশের শত্রু। অতএব কাউকে ছাড় দেয়া যাবেনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার দেশ ও সমাজ উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন,  আর সেই কাজকে বাধা গ্রস্থ করতেই কিছু লোক,  খুন,ধর্ষণ,   সন্ত্রাসী, জংগী,  মাদকদ্রব্য বিক্রি করে দেশ ও  সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের পাশাপাশি জনগনকেও সোচ্চার হতে হবে। তাহলেই দেশে অপরাধের সংখ্যা কমে যাবে।



এ সময় উপস্থিত ছিলেন - ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ ভুইয়া,  যুগ্ম সম্পাদক মহসিন মিয়াজি,  রফিকুল ইসলাম,  শাখাওয়াত হোসেন, নজরুল ইসলাম, আবু  সুফিয়ান,ইয়াসিন, মোঃ হাবিব,   রিয়াদ হোসেন প্রমুখ।


আজকের পাঠকসংখ্যা
৯৭৪০৪
পুরোন সংখ্যা