চাঁদপুর, শনিবার ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭, ১৯ জিলকদ ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • মতলব উত্তরের আমিরাবাদ এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের মুল বেড়িবাঁধে মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭১-সূরা নূহ্


২৮ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২৬। নূহ আরও বলিয়াছিল, 'হে আমার প্রতিপালক! পৃথিবীতে কাফিরগণের মধ্য হইতে কোন গৃহবাসীকে অব্যাহতি দিও না।


২৭। তুমি উহাদিগকে অব্যাহতি দিলে উহারা তোমার বান্দাদিগকে বিভ্রান্ত করিবে এবং জন্ম দিতে থাকিবে কেবল দুষ্কৃতকারী ও অধিকার।


 


 


 


মৌনতা নিরপেক্ষতার উত্তম পন্থা।


-শ্যামলচন্দ্র দত্ত।


 


 


 


 


যার দ্বারা মানবতা উপকৃত হয়, তিনিই মানুষের মধ্যে শ্রেষ্ঠ।


 


 


ফটো গ্যালারি
ফরিদগঞ্জে মামলার বাদী ও তার ছেলের উপর আসামীর হামলা
স্টাফ রিপোর্টার
১১ জুলাই, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চলমান লকডাউনের সুযোগের সদ্ব্যবহার করে আদালতের জারি করা ১৪৫ ধারা অমান্য করে তালাবদ্ধ দোকান ঘরে মালামাল ঢুকিয়ে দোকান চালু ও মামলার বাদী ও তার ছেলের উপর হামলা এবং বসতঘর ভাংচুর করার ঘটনা ঘটেছে। মরিয়ম বেগম নামে এক গৃহবধূ এমন অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশের অস্পষ্ট ভূমিকার কারণে প্রতিপক্ষ এই ঘটনা ঘটাতে দুঃসাহস দেখিয়েছে বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরের কাছিয়াড়া গ্রামের কালিরবাজার চৌরাস্তার নিকটে।



আদালতে দায়েরকৃত অভিযোগে প্রকাশ, কাতার প্রবাসী আঃ রাজ্জাক মিয়ার সাথে তার ভাই লুৎফুর রহমান সুমনের জমিসংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। আঃ রাজ্জাক পিতা হেদায়েত উল্যার ভাগ-বাঁটোয়ারা এবং তার দুই বোনের কাছ থেকে হেবানামা দলিল মূলেসহ মোট ৪ শতক জমিতে মাটি ভরাট করে সামনে দোকানঘর ও পিছনে বসতঘর নির্মাণ করে।



মরিয়ম বেগম জানান, তার স্বামী-সন্তানসহ দীর্ঘদিন এখানে বসবাস করছেন। গত দুই বছর পূর্বে তিনি কাতার চলে যান। তারপর থেকে তিনি ওই স্থানে বসবাস ও দোকান ভাড়া দিয়ে সংসার চালাচ্ছেন। তার দেবর লুৎফুর রহমান সুমন দোকান ঘরের একটিতে ভাড়াটিয়া হিসেবে ছিলো। গত ১৪ মার্চ শনিবার হঠাৎ করে তার দেবর লুৎফুর রহমান সুমন দোকানঘর নিজের বলে দাবি করলে থানা পুলিশের শরণাপন্ন হয়ে কোনো সুরাহা না হওয়ায় গত ১৯ মার্চ বৃহস্পতিবার চাঁদপুর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তিনি বাদী হয়ে ১৪৫ ধারা জারির জন্য আবেদন করলে আদালত ওই ভূমিতে ১৪৫ ধারা জারি করে। পরে থানা পুলিশ নোটিস করে দোকানঘরটি তালাবদ্ধ থাকা অবস্থায় ১৪৫ ধারার নোটিস জারি করে।



মরিয়ম বেগম জানান, পরবর্তীতে করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন পরিস্থিতির সুযোগে গত ১৮ এপ্রিল রাতে তার দেবর লুৎফুর রহমান সুমন একদল লোকজনসহ তার বসতঘরে প্রবেশ করে তাকে মারধর ও আটকে রেখে দোকান ঘরের পেছনের অংশে নূতন করে বেড়া নির্মাণ করে। বিষয়টি তাৎক্ষণিক থানা পুলিশকে অবহিত করলেও তারা সময়ক্ষেপণ করে যাওয়ার সুযোগে তাদের কাজ সমাপ্ত করে চলে যায়। পরদিন রোববার সকালে তার দেবর পুনরায় আদালতের নির্দেশ অমান্য করে তালাবদ্ধ দোকানঘর খুলে কাঠের রেকসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র ভেতরে নিয়ে দোকান চালু করে। এ সময় বারবার পুলিশকে জানালেও তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।



গত ৬ জুলাই লুৎফুর রহমান সুমন ওয়ারেন্টের আসামী হয়ে স্বেচ্ছায় আপস মীমাংসা হওয়ার জামিন আবেদন করে। ম্যাজিস্ট্রেট ৭ দিনের মধ্যে আপস মীমাংসা হওয়ার নির্দেশনা দিয়ে তাকে জামিন দেন। পরদিন ৭ জুলাই আসামী লুৎফুর রহমান সুমন জামিনে এসে মামলার বাদী মরিয়ম বেগম, তার ছেলে নাঈমুর রহমান নিলয়কে সাবল ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। এমনকি বসতঘর ভাংচুর করে। হামলায় মরিয়ম বেগম রক্তাক্ত হন। এমনকি হত্যার উদ্দেশ্যে গলা টিপে ধরে ও তল পেটে আঘাত করে। তাদের ডাকচিৎকার শুনে লোকজন এগিয়ে এসে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এমনকি আসামী লুৎফুর রহমান সুমন মরিয়ম বেগমের ভাই ইসমাইল ও ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে।


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৩৯,৩৩২ ২,৯২,০১,৬৮৫
সুস্থ ২,৪৩,১৫৫ ২,১০,৩৫,৯২৬
মৃত্যু ৪,৭৫৯ ৯,২৮,৬৮৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭০৭৬৮০
পুরোন সংখ্যা