চাঁদপুর, বুধবার ৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭, ১৬ জিলকদ ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
অনলাইন ক্লাস নিয়ে এগুচ্ছে গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত কলেজ
প্রবীর চক্রবর্তী
০৮ জুলাই, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


পুরো বিশ্ব এখন করোনার ভয়াল থাবায় ক্ষতবিক্ষত। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের সময় দিনের পর দিন বেড়ে চলছে। ইতিমধ্যেই শিক্ষা জীবন থেকে শিক্ষার্থীদের ঝরে গেছে তিন মাসেরও বেশি সময়। সরকার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সংসদ টিভিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণির জন্য প্রতিদিন অনলাইনে শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখলেও তা অনেকেই ফলো করছে না। ঢাকাকেন্দ্রিক বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পাঠদানের বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে অনলাইনে চালাচ্ছে কার্যক্রম। কিন্তু গ্রামে তা নেই বললেই চলে। জেলা শহরের বাইরে খুব কম প্রতিষ্ঠানই রয়েছে, যারা এসব কাজে যথেষ্ট আগ্রহী। প্রতিষ্ঠান চাইলেও অনেক সময়ে শিক্ষকরা অনলাইনে শ্রেণি শিক্ষা বিষয়ে কিছুটা কম জানার কারণে ততটা আগ্রহী হন না। অন্তত বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এই বিষয়টি সম্পূর্ণই নতুনভাবে করতে হচ্ছে।



ফরিদগঞ্জ উপজেলার অন্যতম সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ সেসব বাধাকে ডিঙ্গিয়ে উচ্চমাধ্যমিক থেকে শুরু করে স্নাতক ও স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রমকে অনলাইনের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে চলছে। কলেজের ৩৮জন শিক্ষক বিষয়ভিত্তিক রুটিন অনুযায়ী তাদের অনলাইনে শ্রেণি শিক্ষা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে সমস্যা হলো : দুর্বল ইন্টারনেট এবং করোনার প্রভাবে কিছুটা আর্থিক দুরবস্থা। এসব সমস্যা কাটিয়ে ইতিমধ্যেই প্রতিষ্ঠানটি তার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের শুধু নয় অন্য প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীদেরও অনলাইনে এই শ্রেণি শিক্ষাগ্রহণ করার সুযোগ দিচ্ছে। ইতিমধ্যেই তারা অনলাইনে পরীক্ষা নেয়ার কথাও ভাবছে। করোনায় পরিস্থিতি প্রতিকূল থাকলেও অনলাইনে পরীক্ষা নেয়ার জন্য তারা আগাম প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে।



কলেজ সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ধীরে ধীরে এগুচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। বিশেষ করে গত ৭/৮ বছরে এইচএসসিতে জেলা পর্যায়ে শীর্ষ দুইয়ে থাকছে কলেজটি। এর একমাত্র কারণ শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিলে বসার আগ্রহ সৃষ্টি করা। তাই করোনাকালীন সময়েও সেই ধারা অব্যাহত রাখতে এপ্রিলের শুরু থেকে কাজ শুরু করে কর্তৃপক্ষ। সেই প্রেক্ষিতে গত ২৩ এপ্রিল থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ অনলাইনে তাদের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে। এর আগেই তারা শিক্ষার্থীদের তাদের মুঠো ফোনের মাধ্যমে অনলাইনে শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রমের বিষয় অবহিত করে। 'অধ্যক্ষ গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ' এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের আইডি থেকে 'আমার ঘরে আমার কলেজ' গ্রুপে প্রথমত উচ্চমাধ্যমিক শ্রেণির জন্য শ্রেণি শিক্ষা শুরু করে। গত ৩০ জুন পর্যন্ত ২১৪টি উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির ক্লাস নিতে সক্ষম হয়। এর মধ্যে ২৩ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল ৩১টি, ১ মে থেকে ১৬ মে ৬১টি, ১৭ মে থেকে ২ মে ২৩টি, ১জুন থেকে ১৫ জুন ৫০টি এবং ১৬ জুন থেকে ২০ জুন পর্যন্ত ৪৯টি ক্লাস সম্পন্ন হয়। প্রথমে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে অনলাইনে ক্লাসে উপস্থিতি ৫৫ ভাগ থাকলেও বর্তমানে তা ৭০ ভাগে এসে পৌঁছেছে।



অপরদিকে উচ্চ মাধ্যমিকে অনলাইনে ভালো সাড়া পেয়ে শিক্ষকদের সহযোগিতায় গত ১ জুন থেকে শুরু হয় স্নাতক(পাস) ও স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির অনলাইন শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম। দুটিতে ইতিমধ্যেই শিক্ষকরা জুন মাসে ৩০টি করে শ্রেণি শিক্ষা নিয়েছে। অনলাইনে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিও ৬৮ ভাগ।



এ ব্যাপারে গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ মোহেবুল্লাহ খান বলেছেন, করোনা ভাইরাস বৈশি্বক সমস্যা। কিন্তু এর কারণে আমাদের থেমে থাকলে চলবে না। আমরা শিক্ষকরা অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়ার মধ্যেই রাখছি। পর্যায়ক্রমে ভাল সাড়া পাচ্ছি। আগস্টে কলেজের শ্রেণি শিক্ষা শুরু করতে না পারলে গুগল ফরমস-এর মাধ্যমে পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।



 



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭১-সূরা নূহ্


২৮ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২০। যাহাতে তোমরা চলাফেরা করিতে পার প্রশস্ত পথে।


২১। নূহ্ বলিয়াছিল, হে আমার প্রতিপালক! আমার সম্প্রদায় তো আমাকে অমান্য করিয়াছে এবং অনুসরণ করিয়াছে এমন লোকের যাহার ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তাহার ক্ষতি ব্যতীত আর কিছুই বৃদ্ধি করে নাই।


 


দুজন চাটুকার একসঙ্গে বেশি দূর ভ্রমণ করতে পারে না।


-জন ব্রো।


 


 


 


বিদ্যার মতো চক্ষু আর নেই, সত্যের চেয়ে বড় তপস্যা আর নেই, আসক্তির চেয়ে বড় দুঃখ আর নেই, ত্যাগের চেয়ে সুখ আর কিছুতেই নেই।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৩৬,৬৮৪ ৫,৫৪,২৮,৫৯৬
সুস্থ ৩,৫২,৮৯৫ ৩,৮৫,৭৮,৭০৩
মৃত্যু ৬,২৫৪ ১৩,৩৩,৭৭৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৬৪০৮০
পুরোন সংখ্যা