চাঁদপুর, শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • আজ শনিবার সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ঘৃত প্রদীপ প্রজ্জলন উৎসব
বাদল মজুমদার
১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের গুয়াখোলা কুণ্ডের বাড়ি দুর্গা মন্দির প্রাঙ্গণে মন্দির কমিটির সভাপতি চন্দনেশ্বর দত্ত চন্দনের উদ্যোগে ২দিনব্যপী শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ঘৃত প্রদীপ প্রজ্জ্বলন উৎসব গত ১১ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধন করেন দুর্গা মন্দিরের উপদেষ্টা নরেন্দ্র নারায়ণ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, হিন্দু ধর্ম সনাতন ধর্ম, আদি ধর্ম। ব্রহ্মা বিষ্ণু মহেশ্বর ইশ্বরের অংশ। ইশ্বর যুগে যুগে একেক রূপে পৃথিবীতে আবির্ভূত হয়েছেন মায়েদের গর্ভে। সে কারণেই হয়তো পূজা অর্চনার মাধ্যমে মায়েরা হিন্দু ধর্মকে ধরে রেখেছেন। তিনি আরো বলেন, আপনার সন্তানদের ধর্ম শিক্ষা দিন। ধর্ম শিক্ষা দিলে ওই সন্তান কখনো বিপথগামী হবে না। হিন্দু ধর্ম শিক্ষা সু-শৃঙ্খল শান্তির পথে চলতে শিখায়। বাবার জীবনী নিয়ে আলোচনা করেন বিধান চন্দ্র রায়। কীর্তন পরিবেশন করেন পুরাণবাজার শ্রী শ্রী লোকনাথ সংঘের শিল্পীরা।



গত ১২ অক্টোবর দুপুরে বাবার রাজভোগ ও ভক্তদের মাঝে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়। সন্ধ্যায় মন্দির প্রাঙ্গণে শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার উদ্দেশ্যে শত শত ভক্ত নিজ পরিবার এবং দেশ ও জাতির শান্তি কামনায় ঘৃত প্রদীপ প্রজ্জলন করেন।



প্রদীপ প্রজ্জলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক গোপাল সাহা ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন চন্দনেশ্বর দত্ত চন্দন।



 



 



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৯৮-সূরা বায়্যিনাঃ


০৮ আয়াত, ১ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১। কিতাবীদের মধ্যে যাহারা কুফরী করিয়াছিল তাহারা এবং মুশরিকরা আপন মতে অবিচলিত ছিল যে পর্যন্ত না তাহাদের নিকট সুস্পষ্ট প্রমাণ আসিল-


২। আল্লাহর নিকট হইতে এক রাসূল, যে আবৃত্তি করে পবিত্র গ্রন্থ,


 


 


assets/data_files/web

ফুলের আয়ু কত স্বল্প কিন্তু সেই স্বল্প জীবন পরিধিই কত মহিমাময়।


_টমাস উইলসন।


 


 


 


 


 


 


মজুরের গায়ের ঘাম শুকাবার আগে তার মজুরি দিয়ে দাও।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৫,৩৮,০৬২ ১০,৬৪,২৭,১০৩
সুস্থ ৪,৮৩,৩৭২ ৭,৮০,৮৪,৯০৯
মৃত্যু ৮,২০৫ ২৩,২২,০৫৩
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭১৮১৬৯
পুরোন সংখ্যা