চাঁদপুর, বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
এইউএপির বার্ষিক সম্মেলনে ড. মোঃ সবুর খান
১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও অ্যাসোসিয়েশন অব দি ইউনিভার্সিটিস অব এশিয়া অ্যান্ড প্যাসিফিক (এইউএপি)-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (দ্বিতীয়) ড. মোঃ সবুর খান গত ১১ নভেম্বর থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এইউএপির বার্ষিক সম্মেলনে 'নিরাপদ বিশ্বের জন্য পরিচ্ছন্ন ও সবুজ পরিবেশ' শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন ফিলিপাইনের অ্যাডামসন ইউনিভার্সিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. ক্যাথেরিন কাস্তানেদা।



'ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যাডাপটেশন : দ্য চ্যালেঞ্জিং রোল অব হায়ার এডুকেশন ইনস্টিটিউশনস' প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এইউএপির বার্ষিক সম্মেলন ১০-১৪ নভেম্বর থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। থাইল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় নারিসুয়ান ইউনিভার্সিটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে এশিয়া, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া ও আফ্রিকার ১৫টি দেশের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নির্বাহী কর্মকর্তা ও শিক্ষাবিদরা অংশ নিয়েছেন। সম্মেলনে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি চীন, কঙ্গো, সুদান ও সিঙ্গাপুরের ৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করে।



সম্মেলনে উপস্থাপিত প্রবন্ধে ড. মোঃ সবুর খান জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে কীভাবে কাজে লাগানো যায় সে বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। একইসঙ্গে পরিবেশ রক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কীভাবে অবদান রাখতে পারে, কোর্স কারিকুলাম কীভাবে ঢেলে সাজাতে হবে সেসব বিষয়েও আলোচনা করেন ড্যাফোডিল চেয়ারম্যান। এ সময় তিনি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদাহরণ দিয়ে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়টি এসডিজির লক্ষ্যপূরণে ইতিমধ্যে বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। একটি সুন্দর পৃথিবী গড়ে তোলার স্বার্থে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে বলে জানান তিনি।



 



 



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৭। অতঃপর আমি তাহাদের পশ্চাতে অনুগামী করিয়াছিলাম আমার রাসূলগণকে এবং অনুগামী করিয়াছিলাম মারইয়াম তনয় ঈসাকে, আর তাহাকে দিয়াছিলাম ইঞ্জীল এবং তাহার অনুসারীদের অন্তরে দিয়াছিলাম করুণা ও দয়া। আর সন্নাসবাদ-ইহা তো উহারা নিজেরাই আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য প্রত্যাবর্তন করিয়াছিল। আমি উহাদের ইহার বিধান দেই নাই; অথচ ইহাও উহারা যথাযথভাবে পালন করে নাই। উহাদের মধ্যে যাহারা ঈমান আনিয়াছিল, উহাদিগকে আমি দিয়াছিলাম পুরস্কার এবং উহাদের অধিকাংশই সত্যত্যাগী।


 


 


অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৩৬,৬৮৪ ৫,৫৪,২৮,৫৯৬
সুস্থ ৩,৫২,৮৯৫ ৩,৮৫,৭৮,৭০৩
মৃত্যু ৬,২৫৪ ১৩,৩৩,৭৭৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৫০১৪৯
পুরোন সংখ্যা