চাঁদপুর, শুক্রবার ৮ নভেম্বর ২০১৯, ২৩ কার্তিক ১৪২৬, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


০৩। যাহারা নিজেদের স্ত্রীগণের সহিত যিহার করে এবং পরে উহাদের উক্তি প্রত্যাহার করে, তবে একে অপরকে স্পর্শ করিবার পূর্বে একটি দাস মুক্ত করিতে হইবে, ইহা দ্বারা তোমাদিগকে উপদেশ দেওয়া যাইতেছে। তোমরা যাহা কর আল্লাহ তাহার খবর রাখেন।


 


 


 


assets/data_files/web

গণতন্ত্রের উৎসবের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে এর নির্বাচন।


-এইচ. জি. ওয়েলস।


 


 


অতিথি সৎকারকারীর অসুবিধা উৎপাদন করিয়া অতিথির বেশিদিন অবস্থান করা উচিত নয়।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
বিএনপির বিপ্লব ও সংহতি দিবসের আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ
দেশ ও গণতন্ত্র রক্ষায় খালেদা জিয়ার মুক্তির বিকল্প নেই
মিজানুর রহমান
০৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করেছে জেলা বিএনপি। গতকাল ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ভোরে এ উপলক্ষে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। বিকেল ৩টার পর থেকে দিবসটি উপলক্ষে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা শহরের দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে উপস্থিত হন। সেখানে বিকেল ৪টার সময় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।



আলোচনা সভায় চাঁদপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডঃ সলিম উল্লাহ সেলিমের সভাপতিত্বে ও মুনির চৌধুরীর পরিচালনায় দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুব আনোয়ার বাবলু, দেওয়ান সফিকুজ্জামান, আক্তার হোসেন মাঝি, অ্যাডঃ হারুনুর রশিদ, জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডঃ মিজানুর রহমান, জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী অ্যাডঃ মনিরা চৌধুরী, জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাদল, জেলা কৃষক দলের সভাপতি এনায়েত উল্লাহ খোকন, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক ফয়সাল আহমেদ বাহার ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ইমান হোসেন গাজী।



উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শাহনেওয়াজ খান, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ শামসুল ইসলাম মন্টু, সহ-সভাপতি অ্যাডঃ জাকির হেসেন ফয়সাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি অ্যাডঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ উদ্দিন আহমেদ পলাশ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম কাজী জুয়েল, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ নূরুল আমিন খান আকাশ, পৌর যুবদল সভাপতি শাহনুর বেপারী, জেলা মৎস্যজীবী দলের সভাপতি মোঃ মোস্তফা কামাল, পৌর মৎস্যজীবী দলের সভাপতি জিলানী, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা মাসুদ মাঝি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, পৌর শ্রমিক দলের সভাপতি ফরিদ মস্তানসহ বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী।



নেতৃবৃন্দ তাঁদের বক্তব্যে বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। শহীদ জিয়ার কল্যাণেই আজ আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনা করে ক্ষমতা ভোগ করছে। অথচ জিয়ার অবদান অস্বীকার করে আজ ইতিহাস বিকৃত করা হচ্ছে। বর্তমান সরকার ইতিহাস বিকৃতির মাধ্যমে এ দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের অবদানকে মুছে ফেলতে চাইছে, যা সফল হবে না। এই অবৈধ সরকারকে বিদায় করে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। তাই দেশ ও গণতন্ত্র রক্ষায় খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আমরা মাঠে নেমেছি। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমরা মাঠের আন্দোলনে আছি এবং থাকবো, ইনশাআল্লাহ। কারণ দেশ ও গণতন্ত্র রক্ষায় খালেদা জিয়ার মুক্তির বিকল্প নেই।



অন্যান্য দিনের মতো বিএনপির এই কর্মসূচি পালনের সময়ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিলো।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৪৮২৫৪
পুরোন সংখ্যা