চাঁদপুর, সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০
jibon dip
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৩-সূরা নাজম


৬২ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৩২। উহারাই বিরত থাকে গুরুতর পাপ ও অশ্লীল কার্য হইতে, ছোটখাট অপরাধ করিলেও। তোমার প্রতিপালকের ক্ষমা অপরিসীম ; আল্লাহ তোমাদের সম্পর্কে সম্যক অবগত, যখন তিনি তোমাদিগকে সৃষ্টি করিয়াছিলেন মৃত্তিকা হইতে এবং যখন তোমরা মাতৃগর্ভে ভ্রূণরূপে ছিলে। অতএব তোমরা আত্ম-প্রশংসা করিও না, তিনিই সম্যক জানেন মুত্তাকী কে।


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


ন্যায়পরায়ণ বিজ্ঞ নরপতি আল্লাহর শ্রেষ্ঠ দান এবং অসৎ মূর্খ নরপতি তার নিকৃষ্ট দান।


 


ফটো গ্যালারি
কচুয়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ
নিজস্ব প্রতিনিধি ॥
১৭ জুন, ২০১৯ ০২:৫১:১১
প্রিন্টঅ-অ+


 কচুয়ায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। ১৫ জুন শনিবার সকাল ১০টায় ৭৫নং শ্রীরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ইউপি মেম্বার মানিক হোসেনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী। এ সময় বিক্ষোভকারীরা জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম দীর্ঘদিন বিভিন্ন অনৈতিক কাজের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি প্রতিনিয়ত বিদ্যালয়ের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে বদলি বাণিজ্য ও বিভিন্ন দালালি করার জন্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসে চলে যান। কচুয়ার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকদের সাথে গালমন্দ ও উগ্র আচরণ করেন।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জনৈক সহকারী শিক্ষিকার সাথে জাহাঙ্গীর আলমের আপত্তিকর যুগল ছবি ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ‘কচুয়ায় শিক্ষিকার সাথে প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ভাইরাল’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

শনিবার এ ঘটনা এলাকার অভিভাবকসহ বিভিন্ন মহলে জানাজানি হলে সচেতন অভিভাবকমহল ক্ষুব্ধ হয়ে শ্রীরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সমবেত হয় এবং জাহাঙ্গীর আলমের এ ধরনের অনৈতিক কর্মকা-ের বিচারের দাবি জানান ।

এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা জানান, জাহাঙ্গীর আলম অসুস্থতার অজুহাত দেখিয়ে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে বাড়ি চলে গেছেন।

এ ব্যাপারে কচুয়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার এএইচএম শাহরিয়ার রসুল জানান, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল খায়ের মিয়া বিষয়টি আমাকে অবহিত করেছেন। জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা আফরোজ জানান, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৪২১২
পুরোন সংখ্যা