চাঁদপুর, বুধবার ১২ জুন ২০১৯, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৮ শাওয়াল ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৯-সূরা হাক্কা ঃ


৫২ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


২৫। কিন্তু যাহার 'আমলনামা তাহার বাম হস্তে দেওয়া হইবে, সে বলিবে, 'হায়! আমাকে যদি দেওয়াই না হইত আমার 'আমলনামা,


২৬। 'এবং আমি যদি না জানিতাম আমার হিসাব।


 


assets/data_files/web

শুধু মাত্র অস্তিত্ব রক্ষার মধ্যে কোনো কৃতিত্ব নেই।


-শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।


 


 


রসূলুল্লাহ (দঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোনো লোকের সঙ্গে ধোকাবাজি করে সে আমার (দলের বা উম্মতের) বাইরে।


ফটো গ্যালারি
মতলব-বাবুরহাট রাস্তার পাশে সরকারি জায়গায় দোকান নির্মাণ উচ্ছেদ মামলা
মতলব ব্যুরো
১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব পৌর এলাকার বরদিয়া আড়ংবাজার সংলগ্ন মতলব-বাবুরহাট পেন্নাই সড়কের পাশে প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে দোকান নির্মাণ করেছে মোবারকদী এলাকার মোঃ সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে ভূমিদস্যু মোঃ বিল্লাল হোসেন।



সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মতলব পৌর এলাকার বরদিয়া আড়ংবাজারের দক্ষিণদিকে খালের ওপর ২টি পাকা দোকান ও ২টি টিনের দোকান ঘর নির্মাণ করেছে। প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ১৮০নং মোবারকদী মৌজার দাগ নং ৩৪০, শ্রেণি খাল, ১নং খতিয়ানে সরকারি জায়গার উপর দোকানঘর নির্মাণ করেছে ভূমিদস্যু মোঃ বিল্লাল হোসেন। বিষয়টি স্থানীয় সচেতন মহল সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে মতলব পৌর ভূমি অফিসে ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ হাবিব উল্লাহ পাটোয়ারী ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মাণে বাধা প্রদান করেন। তবুও ভূমিদস্যু বিল্লাল হোসেন জোরপূর্বক রাতের অন্ধকারে টিনের ও পাকা দোকানঘর নির্মাণ করে।



অবৈধভাবে ঘর উত্তোলনকারী বিল্লাল হোসেনের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, আমি সরকারের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েই ঘর উত্তোলন করেছি। আমার জায়গায় আমি ঘর তুলেছি।



মতলব পৌর ভূমি অফিসে ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ হাবিব উল্লাহ পাটোয়ারী জানান, সরেজমিনে পরিদর্শন করে বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে বিল্লালের নামে পূর্বে একটি উচ্ছেদ মামলা এবং বর্তমানে একটি উচ্ছেদ মামলা হয়।



মতলব দক্ষিণ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নূসরাত শারমিন জানান, কোনো অবস্থাতেই সরকারি জায়গা দখলকারীদেরকে প্রশ্রয় দেয়া হবে না। মোবারকদী এলাকায় সরকারি জায়গার উপর অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ করার বিষয়টি আমি জেনেছি। এ ব্যাপারে উচ্ছেদ মামলা করা হয়েছে। অচিরেই উচ্ছেদ অভিযান চলবে।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫৭৩৬১৮
পুরোন সংখ্যা