চাঁদপুর, শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৮ রমজান ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫১-সূরা সূরা তূর

৪৯ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৭। মুত্তাকীরা তো থাকিবে জান্নাতে ও আরাম-আয়েশে,

১৮। তাহাদের প্রতিপালক তাহাদিগকে যাহা দিবেন তাহারা তাহা উপভোগ করিবে এবং তাহাদের রব তাহাদিগকে রক্ষা করিবেন জাহান্নামের ‘আযাব হইতে’।


assets/data_files/web

নতুন দিনই নতুন চাহিদা এবং নতুন দৃষ্টিভঙ্গীর উদয় করে। -জন লিডগেট।


ক্ষমতায় মদমত্ত জালেমের জুলুমবাজির প্রতিবাদে সত্য কথা বলা ও মতের প্রচারই সর্বোৎকৃষ্ট জেহাদ।


ফটো গ্যালারি
হাজীগঞ্জে ১০৪০ টাকা মণে প্রান্তিক কৃষকদের ধান নিলেন ইউএনও
কামরুজ্জামান টুটুল
২৪ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


১,০৪০ টাকা মণ দরে হাজীগঞ্জে প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকদের কাছ থেকে সরকারিভাবে ধান ক্রয় করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া। এ ধান ক্রয়ের মধ্য দিয়ে ধান সংগ্রহ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। চলতি বছর হাজীগঞ্জে ২৭৩ টন বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। সংগৃহীত ধান উপজেলা খাদ্য গোডাউনে রাখা হবে।



ধান সংগ্রহকালে ইউএনও বৈশাখী বড়ুয়া চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, যাদের কৃষি কার্ড আছে, তাদের কাছ থেকে লক্ষ্য মাত্রা অনুযায়ী বোরো ধান ক্রয় করা হবে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয় ইতিমধ্যে আগ্রহী কৃষকদের তালিকা করেছে। এ তালিকার বাইরে আগ্রহী কৃষকরা ধান বিক্রি করতে চাইলে তাদের কাছ থেকেও নিয়ম অনুযায়ী আমরা ধান ক্রয় করবো।



উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নয়নমণি সূত্রধর জানান, প্রতি মণ বোরো ধান ১,০৪০ টাকা (প্রতি কেজি ২৬টাকা) করে ক্রয় করছে সরকার। এ কার্যক্রম আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত চলবে। একজন প্রান্তিক কৃষক সর্বোচ্চ ৩ টন (৮১ মণ) ধান বিক্রয় করতে পারবেন।



এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আব্দুল মান্নান, খাদ্য পরিদর্শক ও উপজেলা খাদ্য গোডাউনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বর্ধনসহ অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তা ও প্রান্তিক কৃষকগণ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৮৯২৫৫
পুরোন সংখ্যা