চাঁদপুর, বুধবার ১৫ মে ২০১৯, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৯ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্


৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


১৯। মৃত্যু যন্ত্রণা সত্যই আসিবে; ইহা হইতেই তোমরা অব্যাহতি চাহিয়া আসিয়াছ।


২০। আর শিঙ্গায় ফুৎকার দেওয়া হইবে, উহাই শাস্তির দিন।


 


 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


দয়া ঈমানের প্রমাণ; যার দয়া নেই তার ঈমান নেই।


 


ফটো গ্যালারি
ফরিদগঞ্জে মালিক সমিতির নামে চাঁদা আদায় বন্ধ হলেও পৌর টোলের নামে চাঁদা আদায় হচ্ছে বাড়তি রেটে
স্টাফ রিপোর্টার
১৫ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ফরিদগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডসহ উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও অস্থায়ী স্ট্যান্ডে মালিক সমিতি এবং শ্রমিক কল্যাণ ফান্ডের নামে চাঁদা আদায় করা হচ্ছিল অনেক দিন যাবৎ। পুলিশ সুপারের নির্দেশে সম্প্রতি ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রকিব এসব সমিতির নামে চাঁদা আদায় বন্ধ করে দিয়েছেন। ফলে প্রতি মাসে বাস স্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা চাঁদা আদায় বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশের এমন উদ্যোগে খুশি অটোরিঙ্া, সিএনজিচালিত অটোরিঙ্াসহ সকল গাড়ীর চালক। তারা জানান, মালিক সমিতি ও শ্রমিক কল্যাণ ফান্ডের নামে এসব চাঁদা ভাগ-বাঁটোয়ারা হতো। পেঁৗছতো রাজনৈতিক নেতাদের হাতেও। কিন্তু শ্রমিকদের কল্যাণে কিছুই হতো না। আমাদের শ্রমের বিনিময়ে নেয়া অর্থের হরিলুট চলতো।



কিন্তু পুলিশ মালিক সমিতি ও শ্রমিক কল্যাণ ফান্ডের চাঁদা আদায় বন্ধ করলেও পৌর বাস স্ট্যান্ডসহ বাজারগুলোতে নির্ধারিত হারের বাইরে চাঁদা আদায় থেকে তাদের রেহাই মিলছে না। যদিও ইজারাদারের দাবি তিনি পৌর কর্তৃপক্ষের দেয়া টোল চার্ট অনুযায়ী টাকা আদায় করছেন।



জানা গেছে, ফরিদগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃপক্ষ পূর্ববর্তী বছরে বাস (বড়) ১৫ টাকা, মিনি বাস, মাইক্রো, অটোরিঙ্া, সিএনজি অটোরিঙ্া, ট্রাক/ট্রাক্টর/পিকআপ ১০ টাকা করে টোল আদায়ের নির্দেশনা দেয়। কিন্তু ১৪২৬ বাংলা বর্ষে পৌর বাস্টস্ট্যান্ডসহ বাজারে টোল আদায় বৃদ্ধির জন্যে জেলা প্রশাসক বরাবর গত ১৮ এপ্রিল নতুন টোল আদায়ের চার্টসহ পৌর মেয়র মাহফুজুল হক আবেদন করেন। যা এখনো অনুমোদন হয় নি। নূতন টোল আদায়ের তালিকা অনুসারে বাস (বড়) ২০ টাকা, মিনি বাস, অটোরিঙ্া, সিএনজি অটোরিঙ্া, ট্রাক/ট্রাক্টর/ পিকআপ ১৫ টাকা এবং মাইক্রো ১০ টাকা করে নির্ধারণ করা হয়। পৌর কর্তৃপক্ষের নতুন টোল চার্ট অনুমোদনের আগেই ইজারাদার কর্তৃক মনোনীত লোকজন নতুন হারে টাকা আদায় করতে শুরু করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।



রোববার বিকেলে উপজেলা সদর ও বাসস্ট্যা- এলাকার সিএনজি অটোরিঙ্া চালকরা জানায়, তাদের কাছ থেকে গত দুই/তিনদিন পূর্বে থেকে ১৫ টাকা হারে টাকা আদায় করা হচ্ছে। রিসিটে ১৫ টাকার স্থলে হাতে ১০ টাকা লেখা হলেও টাকা আদায়ের পরিমাণ ১৫ টাকাই চলছে। অন্যদিকে পৌর এলাকার ভাটিয়ালপুর চৌরাস্তা এলাকায় চলছে আরেক কাহিনী। নতুন ইজারাদার শাহআলম পাঠানের রিসিট ব্যবহার না করে পুরানো ইজারাদার ফিরোজ আলম পাটওয়ারীর নামের রিসিট দিয়ে বেশি হারে চাঁদা আদায় চলছে। গত ১২ মে তারিখের কাটা একটি রিসিটে দেখা গেছে চাঁদার হার লেখা রয়েছে ৪০ টাকা।



সাধারণ চালকদের দাবি, তারা নিয়মের বাইরে চাঁদা দিতে অপারগ। পৌর কর্তৃপক্ষ বা বাজার ইজারদার কর্তৃক নির্ধারিত হারেই তারা চাঁদা দিতে চায়। এজন্যে তারা পুলিশী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।



এ ব্যাপারে বর্তমান ইজারাদার শাহআলম পাঠান জানান, তিনি নিয়ম মেনেই টোল আদায় করছেন। কাউকেই নির্ধারিত হারের বাইরে টাকা না দেয়ার জন্যে তিনি অনুরোধ জানান।



পৌরসভার সচিব একেএম খোরশেদ আলম জানান, আমরা নতুন টোল চার্টের জন্যে ডিসি বরাবর আবেদন করেছি। তা এখনো অনুমোদন হয়নি। তাই আগের তালিকা অনুসারে ইজারাদারকে টোল আদায় করতে নির্দেশনা দিয়েছি।



এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রকিব জানান, তিনি ইতিমধ্যেই পৌরসভা থেকে পৌর বাসস্ট্যান্ড বাজার এলাকার জন্যে নির্ধারিত টোল আদায়ের তালিকা সংগ্রহ করেছেন। বাড়তি অর্থ আদায়ের অভিযোগ পেলে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৮২৩৫৪
পুরোন সংখ্যা