ঢাকা। রোববার ১৩ জানুয়ারি ২০১৯। ৩০ পৌষ ১৪২৫। ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • ফরিদগঞ্জের মনতলা হাজী বাড়ির মোতাহের হোসেনের ছেলে ফাহিম মাহমুদ (৩) নিজ বাড়ির পুকুরে ডুবে মারা গেছেন। ||  শনিবার সকালে ফাহিমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক। || 
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৫-সূরা জাছিয়া :

৩৭ আয়াত, ৪ রুকু, মক্কী

২৯। এই আমার লিপি, ইহা তোমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিবে সত্যভাবে। তোমরা যাহা করিতে তাহা আমি লিপিবদ্ধ করিয়াছিলাম।

৩০। যাহারা ঈমান আনে ও সৎকর্ম করে, তাহাদের প্রতিপালক তাহাদিগকে দাখিল করিবেন স্বীয় রহমতে। ইহাই মহাসাফল্য

 


assets/data_files/web

সৌভাগ্যবান হওয়ার চেয়ে জ্ঞানী হওয়া ভালো।        


-ডাবলিউ জি বেনহাম।


স্বভাবে নম্রতা অর্জন কর।



 


ফটো গ্যালারি
শাহরাস্তিতে আওয়ামী লীগ নেতার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন
ভুয়া মানবাধিকার কর্মীর শাস্তি দাবি
মোঃ ফারুক চৌধুরী ও মোঃ মঈনুল ইসলাম কাজল
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শাহরাস্তিতে আওয়ামী লীগ নেতার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১১ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল ১১টায় চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের কালিয়াপাড়া বাজার এলাকায় স্থানীয় কয়েকশ' এলাকাবাসী এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন শাহরাস্তি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান মিন্টু, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও কাউন্সিলর মুকবুল আহম্মেদ, মেহের উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মনির হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ মফিজুল ইসলাম, বিএনপি নেতা মোঃ মন্টু, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হোসেন প্রমুখ।



বক্তারা আজ রোববারের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন এবং তার ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মাজহারুল ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তিসহ মামলার বাদী ভুয়া মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক, প্রভাষক ও ডাক্তার পরিচয়দানকারী সামছুল আলম সুজনের শাস্তি দাবি করেন।



মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কামরুজ্জামান মিন্টু বলেন, মানবাধিকার কর্মী পরিচয় দিয়ে সামছুল আলম সুজন সমাজে নানা অপকর্ম করে আসছে। এলাকাবাসী তার নির্যাতনে অতিষ্ট। সুজন কখনো কখনো বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পরিচয় দিয়ে জনগণকে হয়রানি ও হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। মূলত সে জামায়াত-শিবিরের একনিষ্ঠ কর্মী। সরকারের গুচ্ছগ্রামে বসবাস করে সে সাধারণ গুচ্ছগ্রামবাসীর সম্পত্তি দখল করে তাদের হয়রানি করছে। তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, তার অপকর্ম বন্ধ না হলে সাধারণ গ্রামবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করলে তার দায়-দায়িত্ব আমরা নেবো না।



এলাকাবাসী জানায়, সামছুল আলম সুজন এলাকার সাধারণ জনগণের বিরুদ্ধে প্রায় ৫০টির অধিক মামলা করে বিভিন্নভাবে হয়রানি করে আসছে। সুজনের দায়ের করা একটি মামলায় গত ৯ জানুয়ারি রাতে শাহরাস্তি থানা পুলিশ নিজ বাসা থেকে আওয়ামী লীগ নেতা ও তার ছেলেকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। আমরা ওই প্রতারক সুজনের শাস্তি এবং আটককৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৬৩৫৬১
পুরোন সংখ্যা