চাঁদপুর। বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮। ৪ আশ্বিন ১৪২৫। ৮ মহররম ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪১-সূরা হা-মীম আস্সাজদাহ,

৫৪ আয়াত, ৬ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।



৪০। যারা আমার আয়াতসমূহকে বিকৃত করে তারা আমার অগোচরে নয়। শ্রেষ্ঠ কে? যে ব্যক্তি জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত হবে সে, না যে কিয়ামতের দিন নিরাপদে থাকবে সে! তোমাদের যা ইচ্ছা কর; তোমরা যা কর তিনি তার দ্রষ্টা।

৪১। যারা তাদের নিকট কুরআন আসার পর তা প্রত্যাখ্যান করে (তাদের কঠিন শাস্তি দেয়া হবে;) এটা অবশ্যই এক মহিমাময় গ্রন্থ।

৪২। কোন মিথ্যা এতে অনুপ্রবেশ করবে না-অগ্র হতেও নয়, পশ্চাৎ হতেও নয়। এটা প্রজ্ঞাবান, প্রশংসনীয় আল্লাহর নিকট হতে অবতীর্ণ।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন



 


বেদনা থেকে যে আনন্দের উৎপত্তি সে আনন্দের তুলনা নেই।                 


-টমাস ফুলার।


যে শিক্ষিত ব্যক্তিকে সম্মান করে, সে আমাকে সম্মান করে।



 


ফটো গ্যালারি
ফরিদগঞ্জে ইসকনের উদ্যোগে রাধাষ্টমীর ধর্মীয় আলোচনা
ইসকন সারাবিশ্বে সনাতন ধর্মের বাণী প্রচার করছে
সুভাষ চন্দ্র রায়
ফরিদগঞ্জ ব্যুরো
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ফরিদগঞ্জে আন্তর্জাতিক ভাবনামৃত সংঘ (ইসকন)-এর সংগঠন শ্রী শ্রী হরেকৃষ্ণ রামহট্ট সংঘের উদ্যোগে শ্রীমতি রাধা ঠাকুরাণীর আবির্ভাব তিথি রাধাষ্টমী মহোৎসব উদ্যাপিত হয়েছে। ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরস্থ শ্রী শ্রী লক্ষ্মী নারায়ণ জিউর আখড়ায় দু' দিনব্যাপী এ উৎসবের প্রথমদিন গত রোববার বিকেলে কীর্তন মেলা, সন্ধ্যা ৬টায় সংকীর্তন সহযোগে গঙ্গা আবাহন। এরপর তুলসী আরতি, গৌর আরতি ও নৃসিংগ আরতি। রাতে কৃষ্ণকথামৃত আলোচনা করেন হাজীগঞ্জ ইসকন মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রীপাদ সুখময় কানাই দাসাধিকারী। পরে অধিবাস কীর্তনের পর লিখন সরকারের পরিচালনায় বৈদিক নৃত্য পরিবেশিত হয়।



সোমবার রাধাষ্টমীর অভিষেক, ভোগারতির পর শ্রীমতি রাধারাণীর মহিমা নিয়ে আলোচনা করেন ইসকন কচুয়া মন্দিরের পরিচালক শ্রীপাদ নিমাই হরিদাস ব্রহ্মচারী। পরে দুপুরে কয়েক হাজার ভক্তের মাঝে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়। রাতে ধর্মীয় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।



শ্রী শ্রী হরেকৃষ্ণ রামহট্ট সংঘের ফরিদগঞ্জ শাখার সভাপতি দিলীপ কুমার দাসের সভাপতিত্বে ও সহ-সভাপতি লিটন কুমার দাসের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি ও চাঁদপুর জেলা চেম্বারের সহ-সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, ইসকন সারাবিশ্বে আজ সনাতন ধর্মের বাণী প্রচার করছে। এই যুগের মহানাম হরেকৃষ্ণ.. প্রচার করছে। আমাদের দায়িত্ব তাদের সহযোগিতা করা। তিনি বলেন, প্রতিটি সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষের কর্তব্য প্রতিদিন গীতা পড়া। তাহলে আমাদেরকে আর কোনো অসুর শক্তি রূপে থাকা সমাজ বিরোধীরা আঘাত করতে পারবে না। প্রতিদিন নূ্যনতম একটি শ্লোক পড়া উচিত।



বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তমাল কৃষ্ণ ঘোষ, জেলা জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি গোপাল চন্দ্র সাহা, হাজীগঞ্জ ইসকন মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রীপাদ সুখময় কানাই দাসাধিকারী, উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি হিতেশ চন্দ্র শর্মা, সম্পাদক লিটন কুমার দাস, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তপন মজুমদার, সাংগঠনিক সম্পাদক নারায়ণ রবিদাস এবং উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রবীর চক্রবর্তী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন শ্রীশ্রী হরেকৃষ্ণ রামহট্ট সংঘের ফরিদগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক শ্রী গুরু করুণানিধি দাস গনেশ।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩২৯৩২৯
পুরোন সংখ্যা