চাঁদপুর। বুধবার ১৫ আগস্ট ২০১৮। ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫। ৩ জিলহজ ১৪৩৯
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪০-সূরা আল মু’মিন

৮৫ আয়াত, ৯ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪৫। অতঃপর আল্লাহ তাকে তাদের চক্রান্তের অনিষ্ট থেকে রক্ষা করলেন এবং ফেরাউন গোত্রকে শোচনীয় আযাব গ্রাস করলো।

৪৬। সকালে ও সন্ধ্যায় তাদেরকে আগুনের সামনে পেশ করা হয় এবং যেদিন কেয়ামত সংঘটিত হবে সেদিন আদেশ করা হবে, ফেরাউন গোত্রকে কঠিনতর আযাবে দাখিল কর।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন





 


কোনো মহৎ লোকের জীবনই বৃথা যায় না।

-ডব্লিউ এস ল্যান্ডার।


মজুরের গায়ের ঘাম শুকাবার আগেই তার মজুরি দিয়ে দাও।



 


ফটো গ্যালারি
লক্ষ্মীপুরে জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার ও ফেস্টুন ভাংচুর
বিশেষ প্রতিনিধি
১৫ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নে প্রতিহিংসা-অপরাজনীতির কারণে জাতির জনকের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার ও ফেস্টুন ভাংচুর করে জাতির জনককে অপমানিত ও অসম্মান করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার দুপুরে চাঁদপুর সদর উপজলোর লক্ষ্মীপুর ও বহরিয়া এলাকায়। এ ঘটনায় লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নবাসী ও সচেতন মহল ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে।



এলাকাবাসী জয়নাল খান জানান, আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী চাঁদপুর সদর উপজেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক হাজী মোঃ জয়নাল খান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংবলিত ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার, ফেস্টুন ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের বিভিন্নস্থানে সাঁটান। সেসব ব্যানার ও ফেস্টুন এলাকার চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম খানের অনুসারীরা ভাংচুর করে। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অপমানিত ও অসম্মান করা হয়েছে। যা সুস্থ একজন মানুষ মেনে নিতে পারে না।



চাঁদপুর সদর উপজেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক হাজী মোঃ জয়নাল খান অভিযোগ করে বলেন, ব্যক্তির সাথে শত্রুতা থাকতে পারে। কিন্তু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে কিসের শত্রুতা? এটা কোন্ ধরনের রাজনীতি? যারা আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে অপরাজনীতি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে, তারাই আবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যানার ভাংচুর করেছে, তাদের কঠোর বিচার হওয়া দরকার। ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সেলিম খানের অনুসারীরা ও তাকে সমর্থনকারী বাহিনীর লোকেরাই ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার ভাংচুর করেছে। ভাংচুরকৃত ব্যানার দুর্বৃত্ত চক্র বহরিয়া বাজারের টয়লেটের পাশে নিক্ষেপ করেছে। যা জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চরমভাবে অপমানের সামিল বলে মন্তব্য করেছেন সচেতন মহল।



এদিকে ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নে বেশ কয়েকজন লোক জানান, লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক হাজী মোঃ জয়নাল খান। তার যে কোনো ব্যানার ও ফেস্টুন দেখা মাত্রই ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম খানের অনুসারীরা সেগুলো ভাংচুর করে। গত বছর ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জয়নাল খানের সাঁটানো ব্যানার ফেস্টুন একই কায়দায় ভাংচুর করেছে চেয়ারম্যানের লোকজন। সেই সময় ব্যানার সাঁটাতে গেলে চেয়ারম্যান নিজে পিস্তল ঠেকিয়ে তার লোকজনদের সাথে নিয়ে এলাকার আজম খান (৫৬), জসিম (৩৬), কাউছার (২৮), মমিন (৩০) ও রাকিব (৩০)কে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে তার বাড়িতে আটকে রাখেন। পরে পুলিশ পাঠিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। আহতরা বেশ কয়েক মাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বর্তমানে তারা অকর্মণ্য। কোনো কাজ-কর্ম করতে পারে না। সে ঘটনায় মামলা হলেও পরে হামলকারীরা হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে এসে আবারো এলাকায় রামরাজত্ব কায়েম করে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮২৩২১৮
পুরোন সংখ্যা