চাঁদপুর । মঙ্গলবার ১৭ জুলাই ২০১৮ । ২ শ্রাবণ ১৪২৫ । ৩ জিলকদ ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরের সুধীজন ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে নবাগত পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম বলেন, যে কোনো মূল্যে চাঁদপুরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখা হবে। এছাড়া তিনি সড়কে ট্রাক চলাচল বন্ধ রাখার সবপ্রকার চেষ্টা অব্যাহত রাখবেন
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৯-সূরা আয্-যুমার

৭৫ আয়াত, ৮ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৫১। তাদের দুস্কর্ম তাদেরকে বিপদে ফেলেছে, এদের মধ্যেও যারা পাপী, তাদেরকেও অতি সত্বর তাদের দুস্কর্ম বিপদে ফেলবে। তারা তা প্রতিহত করতে সক্ষম হবে না।

৫২। তারা কি জানেনি, আল্লাহ যার জন্যে ইচ্ছা রিজিক বৃদ্ধি করেন এবং পরিমিত দেন। নিশ্চয় এতে বিশ^াসী সম্প্রদায়ের জন্যে নিদর্শনাবলি রয়েছে।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


আস্থা ছাড়া বন্ধুত্ব থাকতে পারে না।

 -ত্রপিকিউরাস।


যে পরনিন্দা গ্রহণ করে সে নিন্দুকের অন্যতম।



 


ফটো গ্যালারি
পুরাণবাজার জগন্নাথ মন্দিরের রথযাত্রা মহোৎসবের ৩য় দিন
স্টাফ রিপোর্টার
১৭ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


'যে মানব জগন্নাথের রথ আকর্ষণ করিয়া যত পথ গমন করে সকল পদক্ষেপ স্থান যজ্ঞভূমি তুল্য হয়। নারীগণও রথযাত্রায় যোগদান করিলে মুক্তিলাভ করিয়া পিতৃকূল ও স্বামীকুলকে হরিধামে লইয়া যায়। যে সকল মানব রথস্থিত সবর্ে্বশ্বরেশ্বর ভগবানকে সেবা করে সেই সকল মানবদের যাত্রার উদ্দেশ্যে কৃতকাম্য ফলসমূহ ভগবান প্রদান করেন'। গতকাল সোমবার ছিলো রথযাত্রার তৃতীয়দিন। এদিন সকাল ১০টায় শ্রীশ্রী কালীবাড়ি মন্দিরে ভজনকীর্তণ, হরিনাম ও পাঠকীর্তণ অনুষ্ঠিত হয়। দুপুর ১২টায় ভোগআরতি অনুষ্ঠিত হয়। দুপুর ১টায় রাজবাড়ির উদ্ভবকৃষ্ণ দাসাধীকারী চৈতন্যচরিতামৃত পাঠ করেন। সন্ধ্যা ৭টায় আরতি কীর্তণ অনুষ্ঠিত হয়। রাত ৮টায় নারায়ণগঞ্জের সুভাষ গোস্বামী ভাগবত পাঠ করেন। প্রতিটি অনুষ্ঠানই হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষ, তরুণ-তরুণী ও সববয়সী ভক্ত উপস্থিত ছিলেন।



সকাল থেকে ভক্তরা জগন্নাথের পূজায় অংশ নিতে কালীবাড়ি মন্দিরে ভিড় জমায়। সন্ধ্যায় ভাগবত পাঠ অনুষ্ঠানে শত শত ভক্তের সমাগম ঘটে। তারা অনেক রাত পর্যন্ত সুভাষ গোস্বামীর ভাগবত পাঠ শ্রবণ করেছে। পুরাণবাজার জগন্নাথ মন্দির পরিচালনা কমিটির আয়োজনে রাতেও ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। জগন্নাথ মন্দিরের অধ্যক্ষ বিশাল গোবিন্দ দাসাধীকারী, সাধারণ সম্পাদক মনিমাধব দাসাধীকারী ও জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ এবং জেলা জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি গোপাল সাহা সার্বক্ষণিক জগন্নাথ দেবের এই উৎসবের দায়িত্ব পালন করেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৭২৪৪০
পুরোন সংখ্যা