চাঁদপুর। শুক্রবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৭। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
kzai
muslim-boys

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৩-সূরা আহ্যাব

৭৩ আয়াত, ৯ রুকু, মাদানী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১২। আর স্মরণ কর, মুনাফিকরা ও যাহাদের অন্তরে ছিল ব্যাধি, তাহারা বলিতেছিল, ‘আল্লাহ এবং তাঁহার রাসূল আমাদিগকে যে প্রতিশ্রুতি দিয়াছিলেন তাহা প্রতারণা ব্যতীত কিছুই নহে।’

১৩। আর উহাদের এক দল বলিয়াছিল, ‘হে ইয়াছরিববাসী! এখানে তোমাদের কোন স্থান নাই, তোমরা ফিরিয়া চল’ এবং উহাদের মধ্যে একদল নবীর নিকট অব্যাহতি প্রার্থনা করিয়া বলিতেছিল, আমাদের বাড়িঘর অরক্ষিত; অথচ ওইগুলো অরক্ষিত ছিল না, আসলে পলায়ন করাই ছিল উহাদের উদ্দেশ্য।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


একজন লোকের জ্ঞানের পরিধি তার অভিজ্ঞতা দ্বারা খ-ায়িত করা যায় না।

-জনলক।


যে সব ব্যক্তি নিন্দুক এবং যারা অপমানকারী, তাদের সর্বনাশ, অর্থাৎ তারা কষ্টদায়ক পরিণতি প্রাপ্ত হবে।


শাহরাস্তিতে বিধবার অর্ধশত গাছ কর্তনের অভিযোগ
মোঃ মাহবুব আলম
০৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

শাহরাস্তি উপজেলায় এক অসহায় বিধবার অর্ধশত গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন দাদিয়াপাড়া গ্রামের মাইজবাড়িতে সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটে।

মাইজ বাড়ির মৃত আব্দুল মমিনের স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৬০) জানান, পৈত্রিক সম্পত্তি পাওয়ার অজুহাতে একই বাড়ির মৃত সিদ্দিকুর রহমানের পুত্র আব্দুল কাদের (৫০), মোঃ সিরাজুল ইসলাম (৫৬) ও মোঃ মমতাজুল ইসলাম (৬০) গং বহিরাগত ৪০/৫০জন সন্ত্রাসী দিয়ে আমার বসত ঘরের উঠানে জোরপূর্বক গাছ কর্তন করে। তাদের বাধা দিলে তারা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমাদের উপর হামলার চেষ্টা করে। আমি এক অসহায় বিধরা নারী, বাড়িতে কোনো পুরুষ লোক নেই, আমার ছেলেরা বাড়িতে থাকে না। আমি জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, উঠানে থাকা আম, সুপারি গাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফল-ফলাদির প্রায় ৫০টি গাছ তারা কেটে ফেলেছে। এতে ৩ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে তিনি দাবি করেছেন।

একই বাড়ির মৃত হাজী ছলিম উদ্দিনের পুত্র নুরুল ইসলাম জানান, বহিরাগত সন্ত্রাসীরা ইউপি সদস্য বিল্লালের উপস্থিতিতে গাছ কাটা শুরু করে। জনপ্রতিনিধি হিসেবে এ কাজটি ঠিক করেন নি। সুফিয়া বেগমের পুত্র মাসুদ জানান, আমরা বাড়িতে থাকি না, প্রতিপক্ষরা সন্ত্রাসী দিয়ে আমাদের গাছ কেটে ফেলেছে। আমাদেরকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। আমি ও আমার পরিবার জীবনের নিরপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার কামনা করছি।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য মোঃ বিল্লাল হোসেন বলেন, আরার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেয়া হয়েছে এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আমি গাছ কাটার অনুমতি দেই নি। একটি কলা গাছ কাটার অনুমতি দেয়ার এখতিয়ারও আমার নেই। তিনি আরও বলেন, যারা বহিরাগত লোক দ্বারা এ গাছ কর্তন করেছে তারা সেটি ঠিক করেনি। আমরা দুপরিবারের মাঝে সমস্যা সমাধানের জন্য ১৫/২০ দিন পূর্বে পারিবারিক বৈঠকে বসে সমাধানের চেষ্টা করেছি।

শাহরাস্তির খিলা ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক মুন্সি আশফাকুল ইসলাম জানান, এ নিয়ে এখনও তিনি অভিযোগ পাননি। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অভিযুক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আব্দুল কাদের গংয়ের পরিবারের সদস্যরা জানান, আমরা তাদের কাছ থেকে ৪ শতক জায়গা পাবো। এ কারণে আমরা গাছ কেটেছি। গাছ কেটে আমরা অপরাধ করেছি। আইনে যা হবে আমরা তা মেনে নিবো।

আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৫১৮৫৬
পুরোন সংখ্যা