চাঁদপুর। মঙ্গলবার ২০ জুন ২০১৭। ৬ আষাঢ় ১৪২৪। ২৪ রমজান ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৮-সূরা কাসাস 


৮৮ আয়াত, ৯ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৬১। যাহাকে আমি উত্তম পুরস্কারের প্রতিশ্রুতি দিয়াছি, যাহা সে পাইবে, সে কি ঐ ব্যক্তির সমান যাহাকে আমি পার্থিব জীবনের ভোগ-সম্ভার দিয়াছি, যাহাকে পরে কিয়ামতের দিন হাযির করা হইবে?


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


দুষ্ট লোকেরা নিজেরাই নিজেদের নরক তৈরি করে।                                  -মিলটন।


 

বিদ্যা শিক্ষার্থীগণ বেহেশতের ফেরেশতাগণ কর্তৃক অভিনন্দিত হবেন।


চট্টগ্রামে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলা
চাঁদপুর জেলা বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশ
মিজানুর রহমান
২০ জুন, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চট্টগ্রামে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলার প্রতিবাদে চাঁদপুর জেলা বিএনপির আয়োজনে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১৯ জুন সোমবার বিকেলে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বৃষ্টি উপেক্ষা করে শত শত নেতা-কর্মী এ সমাবেশে যোগ দেয়।



সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডঃ সলিম উল্যাহ সেলিম। চাঁদপুর সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান মোঃ সফিকুজ্জামানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুব আনোয়ার বাবলু, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ হারুনুর রশীদ, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পদক অ্যাডঃ জহির উদ্দিন বাবর, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ শামসুল ইসলাম মন্টু, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি নজরুল ইসলাম, পৌর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাদির বেপারী, পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।



বক্তারা বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একজন ক্লিন ইমেজ এবং পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে দেশব্যাপী পরিচিত। অথচ তাঁর মতো এমন একজন বড়মাপের নেতার উপর আওয়ামী সন্ত্রাসীরা যে হামলা চালিয়েছে তা খুবই ন্যাক্কারজনক। আমরা এর তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাই।



বক্তারা বলেন, ১৮ জুন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চট্টগ্রামে কোনো রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাননি। তিনি মানবতার ডাকে সাড়া দিতে পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্যে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাচ্ছিলেন। অথচ আওয়ামী সন্ত্রাসী বাহিনী তাঁর উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ন্যাক্কারজনকভাবে হামলা চালিয়েছে। তারা মনে করেছে এভাবে হামলা চালালে বিএনপি আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে না। তারা জানে যে, অবাধ ও সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন হলে এদেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকা- আর লুটপাটের উচিত জবাব দেবে। তাই তারা বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে নানা রকম চক্রান্ত শুরু করেছে।



বক্তারা আরো বলেন, এখন থেকে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে আরো বেশি ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কারণ আওয়ামী সন্ত্রাসীরা আমাদের সিনিয়র নেতার উপর হামলা চালিয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে আমরাও রক্ষা পাবো না। বিএনপি ক্ষমতায় এলে একদিন এ সকল সন্ত্রাসী কর্মকা-ের জবাব দেবে। বক্তারা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আগামী দিনে সকল আন্দোলন-সংগ্রামে অংশ নেয়ার আহ্বান জানান। সমাবেশে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৭০৪৬৮
পুরোন সংখ্যা