চাঁদপুর, রোববার ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
দুই ডজন মেয়র প্রার্থীর প্রচারণায় মুখরিত ফরিদগঞ্জ পৌরসভা
চমক আসছে একের পর এক
প্রবীর চক্রবর্তী
২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে ঘোষিত হবে পৌরসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার তফসিল। দ্বিতীয় ধাপে চাঁদপুরের ৬টি পৌরসভা অন্তর্ভুক্ত হতে পারে। পৌরসভাগুলো হলো হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ, শাহরাস্তি এবং কচুয়া। গত কয়েক মাস ধরে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। তবে এই পৌরসভাগুলোর মধ্যে মাঠে সবচেয়ে বেশি প্রার্থী ফরিদগঞ্জ পৌরসভার। আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ অন্য দলগুলো মিলিয়ে অন্তত দুই ডজনের বেশি মেয়র প্রার্থী রয়েছে। এছাড়া দিন যত গড়াচ্ছে ততই বাড়ছে প্রার্থী সংখ্যা। একইভাবে ৯টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও হুমড়ি খেয়ে প্রার্থী বাড়ছে। সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী প্রতিটি ওয়ার্ডে গড়ে ৭/৮জন করে কাউন্সিলর বর্তমানে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।



একবার এক প্রার্থী দলীয় সবুজ সংকেত পেয়েছেন বলে জানান দিয়ে মাঠে মোটর শোভাযাত্রা, কর্মীদের নিয়ে গণসংযোগ চালানোর পর, আরেক প্রার্থী এসে নিজেকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে আলোচনায় স্থান করে নিচ্ছেন। আবার এক প্রার্থী এমপি তাকে একমাত্র প্রার্থী হিসেবে অনানুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েেেছন বলে জানানোর পর স্থানীয় এমপিকে স্বয়ং পত্রিকায় বিবৃতি দিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থীকে একক প্রার্থী করেন নি বলে ঘোষণা দিতে হচ্ছে। ফলে দিনের পর দিন ফরিদগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে নানা রঙ ডানা মেলছে।



আবার মেয়র প্রার্থী একজনের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী আদালতে মামলার পর কয়েকজন প্রার্থী ওই মেয়র প্রার্থীর স্ত্রীকে অর্থ দিয়ে সহযোগিতার অভিযোগ এনেছেন ওই মেয়র প্রার্থী। আবার অনেকের মুখেই চাউর রয়েছে, চমকের আরো অনেক বাকি রয়েছে। কারণ পৌর আওয়ামী লীগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং জেলা আওয়ামী লীগ রেজুলেশন করে তিন বা এর অধিক নাম পাঠাবে। তারা কার কার নাম পাঠাবে তাও আলোচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।



আবার বিগত ফরিদগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের মতো উপজেলা ও জেলা থেকে পাঠানো তালিকার বাইরে গিয়ে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ফলে সেই আশংকা এবারো থাকছে বলে অভিজ্ঞজনরা বলছেন।



এত কিছু আলোচনা ও সমালোচনার পর বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান ও দিবসগুলোতে কুশল বিনিময় করে চলছেন সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। প্রতিদিন তারা জোহর, আছর কোনো না কোনো ????? মসজিদে পড়ে ভোটারদের কাছে দোয়া প্রার্থনা করছেন।



প্রার্থীর আধিক্য থাকলেও ফরিদগঞ্জ পৌরসভার বয়স মাত্র ১৫ বছর। ২০০৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর ১৯.৭৫ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে ফরিদগঞ্জ পৌরসভা যাত্রা শুরু করে। ৯টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত পৌরসভার সর্বশেষ ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী জনসংখ্যা ৩৪ হাজার ৬শ' ১১ জন দেখালেও বর্তমানে তা অর্ধ লক্ষ পার হয়েছে। প্রতিষ্ঠাকালে এটি 'খ' শ্রেণির হলেও ২০১৬ সালে ২০ জুন এটিকে 'খ' শ্রেণিকে উন্নীত করা হয়। সাবেক ১৩নং ফরিদগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের পুরো অংশ, ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের সাবেক ৯নং ওয়ার্ড এবং ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের একটি গ্রামের কিছু অংশ নিয়ে পৌরসভাটি গঠিত হয়। পৌরসভার গ্রামগুলো হলো : উত্তর কাছিয়াড়া, দক্ষিণ কাছিয়াড়া, কেরোয়া উত্তর, কেরোয়া দক্ষিণ, মিরপুর, রুদ্রগাঁও, ভাটিরগাঁও, নোয়াগাঁও, সাহাপুর, পূর্ব বড়ালি, পশ্চিম বড়ালি, সাফুয়া, চরহোগলা, চরকুমিরা, ভাটিয়ালপুর ও চরবসন্ত।



২০০৫ সালে গঠিত হওয়ার ?? পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত মেয়র মোঃ মঞ্জিল হোসেন। এরপরে ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী হন বর্তমান মেয়র মাহফুজুল হক। আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে মেয়র পদে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের রয়েছে একঝাঁক প্রার্থী। এছাড়া রাজপথের প্রধান বিরোধীদল বিএনপিরও রয়েছে বড় প্রার্থী তালিকা। প্রার্থীরা ইতিমধ্যেই উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় পর্যায়ে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে। এর বাইরে প্রার্থী নিয়েও ভোটারদের মধ্যে রয়েছে আলোচনা সমালোচনা। কে কেন এবং কিভাবে প্রার্থী হওয়ার আশা প্রকাশ করছেন এই নিয়ে চলছে চুলচেরা বিচার বিশ্লেষণ।



দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যকার রাজনৈতিক নেতারা মেয়র পদে মনোনয়ন প্রাপ্তির জন্য উচ্চমহলে দৌড়ঝাঁপের সাথে সাথে প্রতিদিনই পৌর এলাকার কোনো না কোনো এলাকায় চলছে উঠোন বৈঠক, মোটর শোভাযাত্রা ও গণসংযোগ । মেয়র পদে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের সংখ্যাই বেশি। এর মধ্যে আবার দুজন নারী প্রার্থীও রয়েছেন।



বর্তমানে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন : বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাহফুজুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সহ-সভাপতি ও সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক লোকমান তালুকদার, যুগ্ম-সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ওয়াহিদুর রহমান রানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন মিয়াজী, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ চাঁদপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হাজী কামরুল হাসান সাউদ, জেলা পরিষদ সদস্য সাইফুল ইসলাম রিপন, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক আকবর হোসেন মনির, পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর মোঃ খলিলুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান শাহীন, যুগ্ম-আহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন মিয়াজী, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সদস্য ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন পাটওয়ারী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক মাহবুব মোর্শেদ, পৌর যুবলীগের সভাপতি আব্দুল গাফ্ফার সজিব, পৌর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মাকসুদুল বাশার বাঁধন পাটওয়ারী, সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী সেলিনা আক্তার শেলী, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমুর বেগম, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম আমিনুল হক মাস্টারের পুত্র আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হোসেন রাসেল।



বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন : পৌর বিএনপির সভাপতি আমানত হোসেন গাজী, যুবদল নেতা ইমান হোসেন পাটওয়ারী, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক পাটওয়ারী। এছাড়া সাবেক পৌর মেয়র মঞ্জিল হোসেনও প্রার্থী হতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পৌর কাউন্সিলর জামাল হোসেনও মেয়র পদে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছেন।



জাতীয় পাটি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, জামায়াতে ইসলামী থেকে এখনো কারো নাম ঘোষণা হয় নি। প্রার্থী বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ওয়াহিদুর রহমান রানা বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটিতে অন্তত ১৭জন নেতা রয়েছেন যারা পৌরসভার বাসিন্দা। প্রত্যেকেই মেয়র পদে দাঁড়ানোর যোগ্যতা রাখেন। এরপর রয়েছে পৌর আওয়ামী লীগ।



অন্যদিকে বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হক বলেন, বিগত নির্বাচনে নৌকা নিয়ে আমি বিজয় অর্জন করে মেয়র হওয়ার পর পৌরসভায় দৃশ্যমান অনেক উন্নয়ন করেছি। তাই নৌকার কা-ারী হতে আওয়ামী লীগে এতো প্রার্থী। তবে দল যাকে মনোনয়ন দিবে আশা করছি সকলে তার জন্যে কাজ করবেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৮২-সূরা ইন্ফিতার


১৯ আয়াত, ১ রুকু, মক্কী


১৬। এবং উহারা উহা হইতে অন্তর্হিত হইতে পারিবে না।


১৭। কর্মফল দিবস সম্বন্ধে তুমি কী জান?


১৮। আবার বলি, কর্মফল দিবস সম্বন্ধে তুমি কি জান?


১৯। সেই দিন একে অপরের জন্য কিছু করিবার সামর্থ্য থাকিবে না; এবং সেই দিন সমস্ত কর্তৃত্ব হইবে আল্লাহর।


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


আমার মুক্তি আলোয়...।


-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।


 


 


 


 


 


 


যার দ্বারা মানবতা উপকৃত হয়, মানুষের মধ্যে তিনি উত্তম পুরুষ।


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৫,১২,৪৯৬ ৮,২৪,৩৫,৪৮২
সুস্থ ৪,৫৬,০৭০ ৫,৮৪,৪৩,৫১৫
মৃত্যু ৭,৫৩১ ১৭,৯৯,২৯৪
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬৮৩৭৫
পুরোন সংখ্যা