ঢাকা, শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১ সফর ১৪৪২
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৬-সূরা দাহ্র বা ইন্সান


৩১ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


১২। আর তাহাদের ধৈর্যশীলতার পুরস্কারস্বরূপ তাহাদিগকে দিবেন উদ্যান ও রেশমী বস্ত্র।


১৩। সেথায় তাহারা সমাসীন হইবে সুসজ্জিত আসনে, তাহারা সেখানে অতিশয় গরম অথবা অতিশয় শীত রোধ করিবে না।


 


 


নিজের হাত ও পায়ের ওপর যে ভরসা করে সে ঠকে না।


-জনগো।


 


 


 


নামাজে তোমাদের কাতার সোজা কর, নচেৎ আল্লাহ তোমাদের অন্তরে মতভেদ ঢালিয়া দিবেন।


 


ফটো গ্যালারি
এক মাসে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় সড়কে ঝরে গেলো মতলবের ৪টি তাজা প্রাণ
মাহবুব আলম লাভলু
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


এক মাসে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে মতলব উত্তর উপজেলার ৪ তরুণ। ২০ আগস্ট থেকে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সড়কে ঝরে এ ৪টি তাজা প্রাণ।



২০ আগস্ট মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল ইউনিয়নের ইমামপুর গ্রামের মোঃ বাদশা খানের মেজো ছেলে মোঃ সালেহ আহমেদ খান মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় মারা যান।



মোঃ সালেহ আহমেদ খান ২০ আগস্ট মোটর সাইকেলে করে দুই বন্ধুকে সাথে নিয়ে দাউদকান্দি যাওয়ার পথে পদুয়া ইউনিয়নের মধ্যবর্তী শ্রীরায়েরচরে আনুমানিক ৩টা ৩০ মিনিটে ইজিবাইকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। চালকের অবস্থানে থাকা সালেহ আহমেদ খান বুকে প্রচ- আঘাত পান। সাথে থাকা আঘাতপ্রাপ্ত দুই বন্ধু সোহেল ও সোহাগসহ সালেহকে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েনিয়ে যাওয়া হয়। কর্মরত চিকিৎসক সালেহকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ঢাকা যাওয়ার সময় পথিমধ্যে সালেহ আহমেদ মারা যান।



মতলব উত্তর উপজেলার ইমামপুর পল্লীমঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৬ সালে এসএসসি এবং ঢাকার কবি নজরুল কলেজ থেকে ২০১৮ সালে এইসএসসি সম্পন্ন করে সালেহ আহমেদ খান। তারপর শান্তা মরিয়ম ইউনিভার্সিটিতে স্নাতকে অধ্যয়নরত ছিলেন।



৩০ আগস্ট কাভার্ড ভ্যান ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ হারায় সিজান ও রহিম। মতলব উত্তর উপজেলার গজরা বাজারের দক্ষিণ দিক সোনা মিয়া মার্কেটের সামনে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। লুধুয়া গ্রামের মানিক বেপারীর ছেলে সিজান (১৮) ও হেলাল মিয়ার ছেলে রাহিম (১৮) । নিহত সিজান জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ শ্রেণীতে ও রাহিম লুধুয়া স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীতে পড়তো।



পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঢাকা থেকে ছেংগারচর বাজারগামী ফ্রেশ কোম্পানির কাভার্ড ভ্যান গজরা বাজারের দক্ষিণে টরকি কান্দা চৌরাস্তায় আসলে বিপরীত দিক থেকে আসা মোটর সাইকেলটি ডান চাকায় পিষ্ট হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল চালক সিজান ও আরোহী রাহিম মারাত্মক আহত হয়। পরে চিকিৎসার জন্য তাদের মতলব দক্ষিণ স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েনেয়ার পথে চালক সিজান পথিমধ্যে মারা যায়। আহত মোটরসাইকেলের অপর আরোহী রাহিমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হচ্ছিল। পথিমধ্যে রাত সাড়ে নয়টার দিকে রহিমও (১৮) মারা যায়।



নিহত দু'জনের বাড়িই উপজেলার ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নের লুধুয়া গ্রামে। নিহত সিজান জমিলাখাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ শ্রেণীতে পড়তো এবং তার বাবার নাম মানিক বেপারী। নিহত রাহিম লুধুয়া স্কুল ও কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছিল এবং তার বাবার নাম হেলাল উদ্দিন।



৮ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৭টায় দুর্ঘটনায় নিহত হন মতলব উপজেলার জোড়খালী গ্রামের মোঃ হোসেন বেপারীর ছেলে রিয়াদ (২১)। মা সাভারের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। সকালের সূর্যের আলো প্রখর হওয়ার আগেই মাকে দেখার জন্য সাভারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন উবারের ভাড়ায় চালিত যানে। হাসপাতালে পৌছানোর পূর্বেই সাভারগামী প্রধান সড়কে একই দিকে যাওয়া একটি পিকআপের বেপরোয়া গতির কারণে উক্ত পিকআপের চাকায় পিষ্ট হয়ে যায় রিয়াদের দেহ। রক্তাক্ত রিয়াদকে হাসপাতালে নেয়ার পূর্বেই মারা যায়। ছেঙ্গারচর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৫ সাথে এসএসসি সম্পন্ন করেন তিনি।



এ উপজেলায় ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল ও তরুণদের বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেল চালানোর কারণে প্রায় দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। দুর্ঘটনায় মৃত্যু ছাড়াও আহত ও স্থায়ীভাবে পঙ্গুত্ববরণের হারও কম নয়।



দুর্ঘটনা পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, যুগোপযোগী আইনের অভাব, অপরিকল্পিত সড়ক-মহাসড়ক নির্মাণ, সড়ক-মহাসড়কগুলোর পাশে হাট-বাজার, পর্যাপ্ত ট্রাফিক ব্যবস্থার অভাব, অদক্ষ চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানো, ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন ব্যবহার, ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন, হেলপার দিয়ে গাড়ি চালানো ও চলন্ত অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলা ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনা বাড়ছে।



নিরাপদ সড়ক চাই মতলব উত্তর উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ কুদ্দুস বলেন, সড়ককে নিরাপদ রাখতে, জীবনকে নিরাপদ রাখতে আমরা সচেতনতামূলক কাজ করে যাচ্ছি। চালক এবং পথচারীকে সচেতন করতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। লাইসেন্সবিহীন মোটর সাইকেল ও চালকদের ভুলে অনেক বড় দুর্ঘটনা ঘটে যায়। অপ্রাপ্ত বয়সের ছেলেদের মোটর সাইকেল চালাতে দিয়ে পরিবার আজ কান্না বেছে নিয়েছে।



নিরাপদ সড়ক চাই মতলব উত্তর উপজেলা উপজেলার সাধারণ সম্পাদক হাসান আল মামুন বলেন, সব মানুষের জীবনই সমভাবে গুরুত্বপূর্ণ। তাই চালকদের পাশাপাশি পথচারীদেরও সচেতন হতে হবে। শুধুমাত্র চালকদের উপর দোষ চাপিয়ে সড়ক দুর্ঘটনা এড়ানো যাবে না।



 


এই পাতার আরো খবর -
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৮৭,২৯৫ ৩,৯৬,৩৮,১৮৮
সুস্থ ৩,০২,২৯৮ ২,৯৬,৭৮,৪৪৬
মৃত্যু ৫,৬৪৬ ১১,০৯,৮৩৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৯৫৮৮
পুরোন সংখ্যা