চাঁদপুর, বুধবার ৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭, ১৬ জিলকদ ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিক সম্মাননা পেলেন ইকরাম চৌধুরী
স্টাফ রিপোর্টার
০৮ জুলাই, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


সাংবাদিক সম্মাননা পেলেন দৈনিক চাঁদপুর দর্পণ-এর সম্পাদক ও প্রকাশক এবং চ্যানেল আই ও জাগো নিউজ ডট কম-এর চাঁদপুর প্রতিনিধি, কীর্তিমান সাংবাদিক ইকরাম চৌধুরী। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটায় ইকরাম চৌধুরীর বাসভবনে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও ডিডিএলজি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান। এ সময় সম্মাননা প্রাপ্ত সাংবাদিক ইকরাম চৌধুরীর হাতে নগদ অর্থ, ক্রেস্ট এবং সম্মাননা স্মারকপত্র তুলে দেন প্রধান অতিথি।



তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ইকরাম চৌধুরী বলেন, সম্মাননা পাওয়া অবশ্যই সম্মানের। শপথ যে উদ্যোগ নিয়েছে তা প্রশংসনীয়। যে কোনো সম্মাননা নিজের কাজ ও দায়িত্বের প্রতি যত্নশীল করে তোলে। শপথ অনেক আগে থেকেই এ সম্মাননা দেয়ার চেষ্টা করে আসছিলো। কিন্তু নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে তা করা হয়ে উঠেনি। তিনি আরো বলেন, আমার চিকিৎসার প্রাক্কালে যে সম্মাননা দিয়েছে তা অবিস্মরণীয়। অবশ্যই মনে রাখার বিষয়। এটি আমার সুস্থতার ক্ষেত্রেও মনোবল বৃদ্ধি করবে। আমি আশা করি এমন ব্যতিক্রম কর্মকা-ের মাধ্যমে শপথ-এর পথচলা আরো সমৃদ্ধ হবে।



সম্মাননা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও ডিডিএলজি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, শপথ পত্রিকার উদ্যোগে গুণী এ সাংবাদিককে যে সম্মাননা দেয়া হলো, তা অবশ্যই ভালো কাজ। সাংবাদিক ইকরাম চৌধুরী অসুস্থ থাকার কারণে পারিবারিক কলেবরে এ সম্মাননা দেয়া হলো। আমি মনে করি এটি একটি চমৎকার উদ্যোগ। এ সম্মাননা অনুষ্ঠান আরো বড় পরিসরে করার পরিকল্পনা থাকলেও নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে হয়ে উঠেনি। সাংবাদিক হিসেবে সম্মাননা দেওয়া এ সময় ইকরাম চৌধুরীর জন্যে অনেক বড় অনুপ্রেরণা। তিনি যে চিকিৎসার জন্যে ঢাকা যাচ্ছেন এ কারণে তাঁর মনোবল কয়েকগুণ বেড়ে যাবে।



তিনি আরো বলেন, আমরা প্রার্থনা করি তিনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসেন। আর শপথ যে কাজটি করেছে এটি সকলের জন্যে অনুকরণীয়। আমি আশা করি, যারা সিনিয়র সাংবাদিক আছেন তাঁদের দেখে দেখে নতুন প্রজন্ম সাংবাদিকতায় উৎসাহিত হবে। গুণী সাংবাদিকদের এমন সম্মাননা অব্যাহত রাখলে নতুনদের মাঝে উৎসাহ আরো বেড়ে যাবে। শপথ সমৃদ্ধির দিকে অগ্রসর হোক।



এ বিষয়ে আয়োজক প্রতিষ্ঠান সাপ্তাহিক শপথ-এর সম্পাদক ও প্রকাশক কাদের পলাশ বলেন, শপথ প্রতি বছর দুইজন গুণী সাংবাদিককে সম্মাননা দেবে। এ বছর বড় পরিসরে এ সম্মাননা প্রদানের পরিকল্পনা থাকলেও প্রাকৃতিক কারণে তা করা হয়ে উঠেনি। ২০২০ সালে সম্মাননার জন্যে দৈনিক চাঁদপুর দর্পণ-এর সম্পাদক ও প্রকাশক ইকরাম চৌধুরী এবং চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক কাজী শাহাদাতকে মনোনীত করা হয়। খুব শীঘ্রই মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিক সম্মাননা-২০২১-এর জন্যে আরো দুইজন গুণী সাংবাদিককে মনোনীত করা হবে। বিস্তৃত পরিসরে একই অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধেয় কাজী শাহাদাতসহ বাকি দুইজনকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।



এ সময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও আরটিভি-এর চাঁদপুর প্রতিনিধি শরীফ চৌধুরী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী সদস্য মুনির চৌধুরী, চাঁদপুর টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও গাজী টিভির চাঁদপুর প্রতিনিধি রিয়াদ ফেরদৌস, বৈশাখী টিভির চাঁদপুর প্রতিনিধি ওয়াদুদ রানা এবং সাপ্তাহিক শপথ-এর স্টাফ রিপোর্টার বিল্লাল ঢালী প্রমুখ।



উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৪ জানুয়ারি শুক্রবার বিকেল ৩টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদ্বয়কে আনুষ্ঠানিক সম্মাননা জানানোর কথা ছিলো। সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ মুরাদ হাসান এমপি। অনিবার্যকারণ বশত সে অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ২০২০ সাল থেকে এ উদ্যোগ নিয়েছে 'সাপ্তাহিক শপথ' কর্তৃপক্ষ, যা অব্যাহত থাকবে।



 


হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭১-সূরা নূহ্


২৮ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২০। যাহাতে তোমরা চলাফেরা করিতে পার প্রশস্ত পথে।


২১। নূহ্ বলিয়াছিল, হে আমার প্রতিপালক! আমার সম্প্রদায় তো আমাকে অমান্য করিয়াছে এবং অনুসরণ করিয়াছে এমন লোকের যাহার ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তাহার ক্ষতি ব্যতীত আর কিছুই বৃদ্ধি করে নাই।


 


দুজন চাটুকার একসঙ্গে বেশি দূর ভ্রমণ করতে পারে না।


-জন ব্রো।


 


 


 


বিদ্যার মতো চক্ষু আর নেই, সত্যের চেয়ে বড় তপস্যা আর নেই, আসক্তির চেয়ে বড় দুঃখ আর নেই, ত্যাগের চেয়ে সুখ আর কিছুতেই নেই।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৩৬,৬৮৪ ৫,৫৪,২৮,৫৯৬
সুস্থ ৩,৫২,৮৯৫ ৩,৮৫,৭৮,৭০৩
মৃত্যু ৬,২৫৪ ১৩,৩৩,৭৭৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬২৭২৩১
পুরোন সংখ্যা