চাঁদপুর, শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ৪ রজব ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬৫-সূরা তালাক


১২ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২। উহাদের 'ইদ্দাত পূরণের কাল আসন্ন হইলে তোমরা হয় যথাবিধি উহাদিগকে রাখিয়া দিবে, না হয় উহাদিগকে যথাবিধি পরিত্যাগ করিবে এবং তোমাদের মধ্য হইতে দুইজন ন্যায়পরায়ণ লোককে সাক্ষী রাখিবে; আর তোমরা আল্লাহর জন্য সঠিক সাক্ষ্য দিবে। ইহা দ্বারা তোমাদের মধ্যে যে কেহ আল্লাহ ও আখিরাতে বিশ্বাস করে তাহাকে উপদেশ দেওয়া হইতেছে। যে কেহ আল্লাহকে ভয় করে আল্লাহ তাহার পথ করিয়া দিবেন।


 


 


 


ঘুম পরিশ্রমী মানুষকে সৌন্দর্য প্রদান করে।


-টমাস ডেককার।


 


 


 


 


নামাজ হৃদয়ের জ্যোতি, সদ্কা (বদান্যতা) উহার আলো এবং সবুর উহার উজ্জ্বলতা।


 


 


ফটো গ্যালারি
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ভূমি কর্মকর্তা ম্যানেজ
ইব্রাহীমপুর ফেরিঘাটে সরকারি খাস জমির মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রির অভিযোগ
মিজানুর রহমান
২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরের ভূমি ও বালুখেকোরা দীর্ঘবছর যাবৎ সক্রিয় রয়েছে। সরকারকে রাজস্ব বঞ্চিত করে তাদের অপতৎপরতা থেমে নেই। এবার সরকারি খাস জমির মাটি ভেকু মেশিন দিয়ে কেটে ইটভাটায় বিক্রি করছে। পেশীশক্তি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি সম্পত্তির মাটি বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র। অথচ কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে নীরব।



চাঁদপুর সদর উপজেলার ১১নং ইব্রাহীমপুর ইউনিয়নস্থ ঈদগাহ ফেরিঘাট এলাকায় সরকারি খাস জমি থেকে ভূমিখেকোরা প্রায় ৪ লক্ষ ফুট মাটি বিক্রি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।



ইব্রাহীমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাশেম খান ও স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তাকে টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করে ভূমিদস্যুরা সরকারি খাস সম্পত্তি মাটি বিক্রি করছে বলে অনেকেই অভিযোগ করেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ও কোনো ভূমিকা না নেয়ায় জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।



সরজমিনে দেখা যায়, ঈদগাহ ফেরিঘাট এলাকার মায়ের দোয়া ব্রিকফিল্ড সংলগ্ন ফেরির নতুন রাস্তার পাশের সরকারি খাসের ১৫ দাগের জমি থেকে এলাকার কিছু অসাধু ব্যক্তি প্রকাশ্য দিবালোকে মাটি কেটে বিক্রি করছে।



বিগত দেড় মাস যাবৎ ওই এলাকার মান্নান গাজীর ছেলে মোঃ শাহ হোসেন গাজী, মুক্তার দেওয়ান ও জয়নাল শেখের ছেলে কালাম শেখসহ আরো কজন মিলে ইটভাটার ভেকু মেশিন দিয়ে সরকারি জমির মাটি কেটে পাশের ২টি ব্রিকফিল্ডের কাছে বিক্রি করে আসছে। অথচ তার পাশেই রয়েছে নরসিংপুর চাঁদপুর জোনের পুলিশ ফাঁড়ি, যাদের চোখের সামনে সরকারি জমির মাটি কেটে বিক্রি করছে ভূমিখেকোরা।



এলাকার অনেকে অভিযোগ করে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কাশেম খান প্রতি ফুটে ১ টাকা করে তাদের কাছ থেকে মাসোহারা নিচ্ছেন। তার সাথে আরো কজন রয়েছেন যারা মাসোহারা পায়। যার কারণে সরকারি জমির মাটি কেটে বিক্রি করছে ইটের ভাটায়। এমনও জানা যায়, দিনের বেলায় মাটি কেটে রাতের অাঁধারে শরীয়তপুর মাটি পাচার করছে।



এদিকে অবৈধভাবে এভাবে মাটি কাটার কারণে চলাচলের রাস্তাটি ভেঙ্গে যেতে পারে, তার সাথে বর্ষা মৌসুমে মেঘনার ভাঙনের শিকার হতে পারে ঈদগা ফেরিঘাটের বিরাট এলাকা। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ বসতভিটে ও কৃষি জমি ঝুঁকির মুখে রয়েছে।



অভিযুক্ত মোঃ শাহ হোসেন গাজী জানান, সরকারের কাছ থেকে কৃষি বীজ নিয়ে চাষাবাদ করেছি। এখন পানি জমে থাকায় মাছ চাষের জন্যে মাটি কেটে ঝিল তৈরি করার চেষ্টা করছি। আর পাশের ব্রিকফিল্ডের মাটি তাদের ভেকু মেশিন দিয়ে কেটে নিচ্ছে। এর সাথে এলাকার আরো কয়েকজন জড়িত রয়েছে।



অভিযোগের বিষয়ে ইব্রাহীমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাশেম খানের জবাব ছিলো দায়সারা গোছের। তিনি জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেছি কিছু মাটি কেটেছে, তাদের বাধা দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে মাটি কেটে নিলে আমার কিছুই করার নেই, প্রশাসন তা দেখবে।



এ বিষয়ে ইব্রাহীমপুর ইউনিয়নের ভূমি কর্মকর্তা জানান, সরকারি খাস সম্পত্তির মাটি কাটার বিষয়টি জানার পর তাদেরকে মৌখিকভাবে বলা হয়েছে। পরবর্তীতে কাটা হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক এ বিষয়ে জরুরি ব্যবস্থাগ্রহণ করে সরকারি সম্পদ রক্ষা করা এবং দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবি জানিয়েছে সচেতন মহল।


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৭১৪৫৬
পুরোন সংখ্যা