চাঁদপুর, বৃহস্পতবিার ৩০ জানুয়ারি ২০২০, ১৬ মাঘ ১৪২৬, ৪ জমাদউিস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • মতলব উত্তরের আমিরাবাদ এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের মুল বেড়িবাঁধে মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৬-সূরা দাহ্র বা ইন্সান


৩১ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৬। এমন একটি প্রস্রবণ যাহা হইতে আল্লাহ্র বান্দাগণ পান করিবে, তাহারা এই প্রস্রবণকে যথা ইচ্ছা প্রবাহিত করিবে।


৭। তাহারা কর্তব্য পালন করে এবং সেই দিনের ভয় করে, যেই দিনের বিপত্তি হইবে ব্যাপক।


 


 


assets/data_files/web

অশিক্ষিত সন্তানের চেয়ে সন্তান না থাকাই ভালো।


-জন হে উড।


 


 


 


কবরের উপর বসিও না এবং উহার দিকে মুখ করিয়া নামাজ পড়িও না।


 


 


ফটো গ্যালারি
আজ সরস্বতী পূজা
স্টাফ রিপোর্টার
৩০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


দেশের বিভিন্ন স্থানের ন্যায় চাঁদপুর জেলায় আজ অনুষ্ঠিত হবে শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা। সকাল ১১টা পর্যন্ত চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে পাড়া-মহল্লায় আয়োজিত পূজা মণ্ডপে সনাতন ধর্মাবলম্বী ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের ভক্তবৃন্দ ভক্তি শ্রদ্ধা সহকারে দেবীর আশীর্বাদ কামনায় দেবী চরণে অঞ্জলি প্রদান করবেন। গতকাল ২৯ জানুয়ারি অনেক রাত পর্যন্ত পূজা আয়োজনকারীগণ বাদ্য বাজনা বাজিয়ে নেচে-গেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে স্ব স্ব মণ্ডপে প্রতিমা স্থাপন করেন। শহরের কালীবাড়ি মন্দির, গোপাল জিউড় আখড়া, রামকৃষ্ণ আশ্রম, কুণ্ডের বাড়ি দুর্গা মন্দির, পুরাণবাজার হরিসভা মন্দির কমপ্লেঙ্, পুরাণবাজার বাতাসা পট্টি বারোয়ারী পূজামণ্ডপ, নিতাইগঞ্জ, দাসপাড়া, ঘোষপাড়া, মোরকাটিজ রোড, রয়েজ রোড, পাল পাড়া, মিনার্ভা পূজা মণ্ডপ, প্রেসক্লাব রোড, কদমতলাসহ শহরের সকল স্থানেই নজর কেড়েছে সুসজ্জিত পূজা মণ্ডপ। গতকাল থেকেই লাল-নীল আলোতে আলোকিত হয়ে উঠেছে পূজা মণ্ডপগুলো। ঢাক-ঢোল, ব্যান্ড পার্টির বাজনাসহ বাজছে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন গগণবিদারী ইকো সাউন্ডের বাজনা। আজ সন্ধ্যা থেকে অধিক রাত পর্যন্ত পূজা মণ্ডপে চোখে পড়বে দর্শনার্থীদের উপস্থিতি। চাঁদপুর জেলা শহরে এ বছর ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় দুই শতাধিক পূজার আয়োজন করা হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদ্যাপনে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ পূজারীদের সাথে সৌজন্য সভায় মিলিত হয়েছেন। সকলেরই লক্ষ্য চাঁদপুরে বিরাজমান সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি রক্ষা করা।



গত বছরের চেয়ে এ বছর প্রতিমাসহ পূজার উপকরণের দাম বেশি বলে জানিয়েছেন কদমতলা পূজা মণ্ডপের অন্যতম আয়োজনকারী সুমন সরকার জয়। তিনি জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর পূজার সামগ্রীর দাম বেশি হলেও আয়োজনকারীদের আয়োজনের কমতি নেই। আমরা যথাযোগ্য মর্যাদায় মাতৃ আরাধনায় রত হয়েছি। পূজা চলাকালীন যাতে কোনো প্রকার সমস্যা বা ভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের মাঝে আঘাত না আসে সেদিকে আমাদের লক্ষ্য থাকবে সর্বাগ্রে। আমরা মনে করি পূজা মানেই আনন্দ। পূজা মানেই ভ্রাতৃত্ববোধ। তিনি শহরের নতুনবাজার কদমতলা এলাকায় আয়োজিত পূজা পরিদর্শনে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে আমন্ত্রণ জানান এবং সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। পূজাকে কেন্দ্র করে ২/১টি মন্দিরে নর নারায়ণ সেবারও আয়োজন করা হয়েছে। গতকাল পুরাণবাজার বাতাসা পট্টিস্থ বারোয়ারী পূজা মণ্ডপে করা হয়েছে নর নারায়ণ সেবার আয়োজন। এদিন দুপুরে শ্রী শ্রী গৌর নিত্যানন্দ মহাপ্রভুর মন্দিরে মহাজন, কর্মচারী ছোট-বড় সকলে মিলে মহা আনন্দে প্রসাদ গ্রহণ করছেন। সকলের মাঝেই বিরাজ করছিল ভ্রাতৃত্ববোধ। ছিল না কোন ছোট-বড় ভেদাভেদ। পূজাকে কেন্দ্র করে সকলেই মিলে মিশে হয়ে গেছে একাকার।



বারোয়ারী পূজা মণ্ডপের অন্যতম আয়োজনকারী শিমুল সাহা, সুকান্ত সাহা টিটু, নেপাল সাহা জানান, ব্যবসায়িক দিক থেকে পুরাণবাজারের একটি সুনাম রয়েছে। ধারাবাহিকভাবে এ সুনাম রক্ষায় সকল ব্যবসায়ী আন্তরিক রয়েছেন। কাল আমরা সনাতন ধর্মাবলম্বীগণ দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনায় জ্ঞানের দেবী, বিদ্যার দেবী সরস্বতী মায়ের চরণে অঞ্জলি দিবো। গত বছরের চেয়ে এ বছর তাদের আয়োজন বেশি বলে তারা জানান এবং সকলকে তাদের পূজা মণ্ডপে আমন্ত্রণ জানান পূজা দেখার জন্য। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পূজার আয়োজন থাকলেও তা অঞ্জলি প্রদান আর প্রসাদ বিতরণের মাঝেই সীমাবদ্ধ থাকবে বলে জানা যায়। আগামীকাল ৩১ জানুয়ারি শুক্রবার বিকেলে প্রতিমা সহকারে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হবে বলে জানান সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্রধর। তিনি বলেন, বিকেল ৪টায় হাসান আলী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক অতিক্রম শেষে পুনরায় স্ব স্ব মন্দিরে গিয়ে শেষ হবে। তিনি শান্তিপূর্ণভাবে শোভাযাত্রা সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৩৯,৩৩২ ২,৯২,০১,৬৮৫
সুস্থ ২,৪৩,১৫৫ ২,১০,৩৫,৯২৬
মৃত্যু ৪,৭৫৯ ৯,২৮,৬৮৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০১৭৯৫৪
পুরোন সংখ্যা