চাঁদপুর, শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৮ রবিউস সানি ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭১-সূরা নূহ্


২৮ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


২০। যাহাতে তোমরা চলাফেরা করিতে পার প্রশস্ত পথে।


২১। নূহ্ বলিয়াছিল, হে আমার প্রতিপালক! আমার সম্প্রদায় তো আমাকে অমান্য করিয়াছে এবং অনুসরণ করিয়াছে এমন লোকের যাহার ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি তাহার ক্ষতি ব্যতীত আর কিছুই বৃদ্ধি করে নাই।


 


assets/data_files/web

দুজন চাটুকার একসঙ্গে বেশি দূর ভ্রমণ করতে পারে না।


-জন ব্রো।


 


 


 


যিনি বিশ্বমানবের কল্যাণ সাধন করেন, তিনিই সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ।


 


 


ভুয়া দলিলে দিনমজুরের শেষ সম্বল বিক্রি মিথ্যে মামলা
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


কচুয়া উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের পরাণপুর গ্রামের অসহায় দিনমজুর আঃ কুদ্দসের একখ- সম্পত্তিই তার সম্বল। পৈত্রিক ভিটাবাড়ি না থাকায় অন্যের দয়ায় একটি কুঁড়েঘরই তার মাথা গোঁজার আশ্রয়। জানা গেছে, ওই গ্রামের মৃত ফজলুল হকের ছেলে কুদ্দুসের পরাণপুর রাস্তার পূর্ব পাশে বিলে সাবেক ১২২ হালে ১২৬নং পরাণপুর মৌজার সিএস ৪২,৩১ দাগে ৩০ শতাংশ জমি ভোগ দখল করে আসছিলো। মাথা গোঁজার কোনো আশ্রয় না থাকায় গ্রামবাসীর আর্থিক সহযোগিতায় তিনি পৈত্রিক জমি ভরাট করে একটি ঘর নির্মাণ করছেন। ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি ওই সম্পত্তি খারিজ করতে কচুয়া স্থানীয় তহসিল অফিসে গিয়ে জানতে পারেন তার পৈত্রিক দখলীয় সম্পত্তি একই উপজেলার লুন্তি গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে আলী আজগরের নামে রেকর্ডভুক্ত হয়ে আছে।



রেকর্ড সংশোধনের জন্যে আঃ কুদ্দুস চাঁদপুরে রেকর্ড সংশোধনী মামলা দায়ের করেন। রেকর্ড সূত্রে মালিক হয়ে আলী আজগরের তার পৈত্রিক সম্পত্তি দাবি করে পরাণপুর গ্রামের জামাল হোসেন ও তার স্ত্রী ঝরণা বেগমের নিকট বিক্রি করে দেয়।



পরাণপুর গ্রামের অসহায় দিনমজুর আঃ কুদ্দসের দাবি, আমার পৈত্রিক জমি ভুলক্রমে আলী আজগরের নামে রেকর্ড হওয়ার পর সে জায়গা অন্যত্র বিক্রি করে। সে আমার নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে। হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮১১০২৪
পুরোন সংখ্যা