চাঁদপুর, শুক্রবার ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


 


 


 


আনন্দ এমন একটা ফল যা অনুন্নত দেশে দুষ্প্রাপ্য। -জন কেনড্রিক।


 


 


 


 


প্রত্যেক কওমের জন্য একটি পরীক্ষা আছে আর আমার উম্মতদের পরীক্ষা তাদের ধন-দৌলত।


 


 


অগ্নিকাণ্ডে সম্পূর্ণ নিঃস্ব হয়ে গেলো মতলব উত্তরের একটি পরিবার
বাবুল মুফতী
২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


মতলব উত্তর উপজেলার সুলাতানাবাদ ইউনিয়নের উত্তর টরকী গ্রামে বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক ২টায় আগুন লেগে হোসেন সরকারের বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। দিনাতিপাত করার মত একটি সুতাও রইল না। ফলে দিশেহারা হয়ে পড়েছে পরিবারটি।



সরেজমিনে দেখা গেছে, হোসেনের চৌচালা ঘরটি পুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। শুধু খুঁটিগুলো দাঁড়িয়ে আছে। ঘরের সব আসবাবপত্র, চাউল, পোশাকসহ ঘরে থাকা সবকিছুই পুড়ে ছাই হয়ে পড়ে আছে। বাঁচার কোনো উপায়ন্তর খুঁজে পাচ্ছে না পরিবারটি। কান্না আর হতাশা দেখা দিয়েছে তাদের মধ্যে। জানা গেল, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই পুরো ঘর পুড়ে অঙ্গার হয়ে গেছে।



হোসেনের স্ত্রী রাহিমা আক্তার বলেন, আমার ৩ শিশু সন্তান রাকিবুল হাসান, সাবি্বর হোসেন ও খিজির হায়াতকে নিয়ে রাতে ঘুমিয়ে ছিলাম। রাত ২টায় আগুনের দাউদাউ শব্দ শুনে ঘুম ভাঙ্গে। পরে তাড়াহুড়ো করে শিশু সন্তান নিয়ে ঘর থেকে কোনো মতে বের হই। মুহূর্তেই পুড়ে গেলো পুরো ঘরটি। তিনি আরও বলেন, ঘরের উত্তর পাশের বারান্দা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। ঘরে থাকা ৪ ড্রাম ভর্তি চাউল ছিল, দুটি খাট, ডাইনিং টেবিল, সোফা সেট, ফ্যান, সোকেস, গ্যাসের চুলা সবকিছু মুহূর্তেই জ্বলে পুড়ে শেষ হয়ে গেল। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাঁচার জন্যে সরকারের কাছে অনুদান দাবি করেন তিনি।



হোসেন সরকার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জে ছোট একটি চাকুরি করি। খবর পেয়ে সকালে বাড়িতে এসে দেখি এই কাণ্ড। আমার আর কিছুই রইলো না।



উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঢেউটিনসহ সার্বিক সহযোগিতা করা হবে।



 



 



 



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০০৪২৭১
পুরোন সংখ্যা