চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


০৬। সেই দিন, যেদিন উহাদের সকলকে একত্রে উত্থিত করা হইবে এবং উহাদিগকে জানাইয়া দেওয়া হইবে যাহা উহারা করিতো; আল্লাহ উহার হিসাব রাখিয়াছেন, আর উহারা তাহা বিস্মৃত হইয়াছে। আল্লাহ সর্ববিষয়ে সম্যক দ্রষ্টা।


 


 


 


 


 


আনন্দ এমন একটা ফল যা অনুন্নত দেশে দুষ্প্রাপ্য। -জন কেনড্রিক।


 


 


প্রত্যেক কওমের জন্য একটি পরীক্ষা আছে আর আমার উম্মতদের পরীক্ষা তাদের ধন-দৌলত।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুরে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম
স্টাফ রিপোর্টার
২১ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরের পাইকারী ও খুচরা বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন বাজার মনিটরিং বৃদ্ধি করায় ২১০ টাকা কেজির পেঁয়াজ পাইকারী বাজারে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় এবং খুচরা বাজারে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এ নিয়ে আড়তদার ও ক্রেতাদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।



আড়তদাররা জানান, ১৮০ টাকা কেজি দামের পেঁয়াজ প্রশাসনের নির্দেশে তারা ১২০/১৩০ টাকায় বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। এর ফলে তাদের কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা লোকসান গুণতে হচ্ছে।



অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, সরকার পেঁয়াজের আমদানি আরো আগে বাড়ানোর উদ্যোগ নিলে তাদের ২০০ থেকে ২৫০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ কিনতে হতো না। প্রশাসনের জোরদার বাজার মনিটরিং অব্যাহত রাখতে পরামর্শ ক্রেতা সাধারণের।



বুধবার সরজমিনে চাঁদপুরে পেঁয়াজের প্রধান পাইকারী বাজার পুরাণবাজার ঘুরে দেখা যায়, বার্মা ও মিশর এই দুই দেশের আমদানি হওয়া পিঁয়াজ আড়তে বিক্রি হচ্ছে।



তাদের মূল্য তালিকায় মিশর ১১২টাকা ও বার্মার পেঁয়াজ ১২০ টাকা কেজি উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু পেঁয়াজের পাইকারদের সেই পেঁয়াজ ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা যায়।



পুরাণবাজার মসজিদপট্টির পেঁয়াজের বড় পাইকার সামছু মোল্লা জানান, এখন আমদানি বেশি হওয়ায় দাম কমছে। কার্গো বিমানে এবং পোর্টে অনেক পিঁয়াজ। তারপর দেশীয় পেঁয়াজও আসছে। সরবরাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় বাজার কমতির দিকে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১০২৬৭৫৯
পুরোন সংখ্যা