চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, ১০ সফর ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৮-সূরা মুজাদালা


২২ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২০। যাহারা আল্লাহ ও তাঁহার রাসূলের বিরুদ্ধাচরণ করে, তাহারা হইবে চরম লাঞ্ছিতদের অন্তর্ভুক্ত।


২১। আল্লাহ সিদ্ধান্ত করিয়াছেন, আমি অবশ্যই বিজয়ী হইব এবং আমার রাসূলগণও। নিশ্চয় আল্লাহ শক্তিমান, পরাক্রমশালী।


 


 


assets/data_files/web

অসহায় দরিদ্রের যে অনুগ্রহ করে ভবিষ্যতে সে-ই নেতা হতে পারবে।


-উইল রোজার।


 


 


যে ভিক্ষাবৃত্তির দ্বার খুলিয়াছে, আল্লাহতায়ালা তাহার জন্য দরিদ্রতার দ্বার খুলিবেন।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
হাজীগঞ্জে ৯৯৯ নম্বরে কল করে সম্পত্তি দখল ঠেকালো ভুক্তভোগী পরিবার
হাজীগঞ্জ ব্যুরো
১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


হাজীগঞ্জে ৯৯৯ নম্বরে কল করে সম্পত্তি দখল ঠেকালো ভুক্তভোগী পরিবার। পুলিশ তৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে এসে কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে ভুক্তভোগী পরিবারের গৃহকর্তী আসমা বেগমের (৩৫) উপর হামলার ঘটনা ঘটে। অবশ্য এর আগে এ সম্পত্তি নিয়ে স্থিতাবস্থা জারি ছিলো। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার ভোরে পৌর এলাকার ৪নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ গ্রামে। আসমা বেগম ওই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী।



আসমা বেগম জানান, আমার স্বামী সিরাজুল ইসলাম দখলীয় সম্পত্তিতে মঙ্গলবার ভোরে স্থানীয় আজাদ হোসেন (৫৭) গং প্রায় ২০-৩০ জন লোক নিয়ে টিনের বেড়া ভেঙ্গে নতুন ঘর তোলার চেষ্টা করেন। আমরা প্রথমে তাদের বাধা দিই। কিন্তু তারা বাধা না মেনে ঘর তোলায় চেষ্টা চালানো অবস্থায় আমরা ৯৯৯-এ কল দিই। কিছুক্ষণের মধ্যে হাজীগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন এবং আজাদ ও আমার স্বামী সিরাজুল ইসলামকে থানায় নিয়ে যায়।



আসমা বেগম আরো বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চলে যাওয়ার পর প্রায় বেশ কয়েকজন মিলে আমার উপর এবং আমার বসতঘরে হামলা করে। এ সময় তারা আমাদের বসতঘরের মালামাল ভাংচুর ও স্টীলের আলমারি খুলে নগদ ৪ লাখ টাকা এবং ৬ ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায়। হামলাকারীদের মারধরে আমি নিজে আহত হই।



এ বিষয়ে থানায় সিরাজুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আব্দুল কাদের ও বিল্লালের মদদে আজাদ ২০-৩০ জন লোক নিয়ে আমার দখলকৃত সম্পত্তির টিনের বেড়া ভেঙ্গে ঘর তোলার চেষ্টা করে। তারা দীর্ঘদিন ধরে এই সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা করে আসছে। এ জন্য আমি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আবেদন (নং-৭৬৬/২০১৯) করি। আদালত গত ৪ আগস্ট উক্ত নালিশী ভূমিতে স্থিতাবস্থা বজায়সহ শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশন প্রদান করেন।



সিরাজুল ইসলাম বলেন, আব্দুল কাদেরের সাথে আমার ব্যবসায়িক লেনদেন ছিলো। আমি তার কাছ থেকে ২২ লাখ টাকা পাই। সে ১৮ লাখ টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করে। এ বিষয়ে পৌরসভা ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ে বেশ কয়েকটি সালিস হয়েছে। এরপর থেকেই আব্দুল কাদের গং আমার দখলকৃত সম্পত্তি দখলের পাঁয়তারা চালায়।



একই বিষয়ে থানায় আজাদের সাথে কথা হলে তিনি জানান, এখানে আমার সম্পত্তি রয়েছে। তাই আমি আমার সম্পত্তিতে কাঠ-মিস্ত্রি নিয়ে ঘর নির্মাণ করতে গিয়েছে। তারা পুলিশকে খবর দিয়েছে। পুলিশ এসে আমাকে এবং সিরাজকে থানায় নিয়ে এসেছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তারাই (সিরাজুল ইসলামের পরিবার) তাদের ঘর ভাংচুর করে।



এ বিষয়ে আব্দুল কাদের জানান, সিরাজুল ইসলাম টাকা পাবে তো দূরের কথা, তার সাথে আমার কোনো লেনদেন নেই। বরং আমি তার কাছ থেকে সাড়ে চার শতাংশ সম্পত্তি পাই। যার মূল্য ২২ লাখ টাকা ধরা হয়েছে। এই ২২ লাখ টাকা পরিশোধ না করে সিরাজুল ইসলাম তালবাহানা করে আসছে। বিভিন্নভাবে আমার নামে প্রপাগান্ডা ছড়াচ্ছে। যার ফলে আমি তার বিরুদ্ধে পৌরসভা, ব্যবসায়ী সমিতির এবং সর্বশেষ থানায় লিখিত অভিযোগ করি।



তিনি আরো বলেন, পৌরসভা ও ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ের বৈঠকে আমার বিরুদ্ধে ছড়ানো একটি প্রপাগান্ডারও প্রমাণ দিতে পারেনি সিরাজুল ইসলাম। অথচ সে আদালতে স্থিতাবস্থা চেয়েছে, যা আমি আইনিভাবে জবাব দিচ্ছি। আজকের ঘটনায় (মঙ্গলবার) আমি বা আমার পরিবারের কোনো লোকজন সেখানে ছিলেন না। আজও সিরাজুল ইসলাম আমার নামে মিথ্যে প্রপাগান্ডা ছড়াচ্ছে।



স্থানীয় বিল্লাল হোসেন বলেন, আমরা চারজন মিলে সম্পত্তি ক্রয় করি। অথচ সিরাজুল ইসলাম আমাদের সম্পত্তি বুঝিয়ে না দিয়ে আদালতে স্থিতাবস্থা চেয়েছে। আমি ও আব্দুল কাদের আইনিভাবে তার জবাব দিচ্ছি। আর এর সাথে আজাদ নেই। তাই আজ (মঙ্গলবার) আজাদ তার পাওনা সম্পত্তিতে ঘর তুলতে যায়। এতে সিরাজ ও তার পরিবার বাধা দেয়।



থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন রনি বলেন, ৯৯৯ নম্বরের কল পেয়ে থানা উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মেদ বেলাল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৬০১৬৮৯
পুরোন সংখ্যা