চাঁদপুর, শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মহররম ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৫-সূরা রাহ্মান


৭৮ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৭৫। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৬। উহারা হেলান দিয়া বসিবে সবুজ তাকিয়ায় ও সুন্দর গালিচার উপরে।


৭৭। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৮। কত মহান তোমার প্রতিপালকের নাম যিনি মহিমময় ও মহানুভব!


 


 


 


 


assets/data_files/web

হিংসা একটা দরজা বন্ধ করে অন্য দুটো খোলে।


-স্যামুয়েল পালমার।


 


 


কাহারো উপর অত্যাচার করা হইলে সে যদি সবর করিয়া চুপ থাকিতে পারে, আল্লাহ তাহার সম্মান বৃদ্ধি করিয়া দেন।


 


ফটো গ্যালারি
আপা মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন করতে নিষেধ করেছেন : লেখক ভট্টাচার্য
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে প্রটোকল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, আপা (প্রধানমন্ত্রী) ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন করতে নিষেধ করেছেন। ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত কমিটির নেতাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান লেখক ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ছয় সহ-সভাপতি এবং ছয়জন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকসহ আল নাহিয়ান খান জয় ও লেখক ভট্টাচার্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী তাদের বলেন, মোটরসাইকেল নিয়ে প্রটোকল ছাত্ররাজনীতির সঙ্গে যায় না। ছাত্ররাজনীতি ক্ষমতা প্রদর্শনের জায়গা নয়। এটি আদর্শ চর্চার জায়গা। বাইক নিয়ে এসব শোডাউন করলে বিনয়ী হওয়া যায় না। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, তোমাদের তৃণমূল কর্মীদের মানোন্নয়নে কাজ করতে হবে। শিক্ষাভিত্তিক রাজনীতি চর্চা করতে হবে। আরও বেশি বিনয়ী হতে হবে।



এ বিষয়ে লেখক ভট্টাচার্য বলেন, বাইক নিয়ে শোডাউন বন্ধ। আপা (প্রধামনন্ত্রী) বিষয়টির সমালোচনা করেছেন। তিনি যা পছন্দ করেন না, তা আমাদের করা যাবে না।



প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।



এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান আল ইমরান বলেন, সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্যে আমি আপার কাছে অনুমতি চেয়েছি। তিনি অনুমতি দিয়েছেন। আমার আরেকটি দাবি ছিল, ছাত্রলীগের যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে যেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আপা সবাইকে নিয়ে কাজ করার কথা বলেছেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে।



প্রসঙ্গত ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে রেজওয়ানুল হক শোভন ও গোলাম রাব্বানীকে অপসারণের পর আল নাহিয়ান খান জয়কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও লেখক ভট্টাচার্যকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩২০১৯৮
পুরোন সংখ্যা