চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৪-সূরা কামার


৫৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


 


 


 


assets/data_files/web

বাণিজ্যই হলো বিভিন্ন জাতির সাম্য সংস্থাপক। -গ্লাডস্টোন।


 


 


যখন কোনো দলের ইমামতি কর, তখন তাদের নামাজকে সহজ কর।


 


 


 


ফটো গ্যালারি
শাহরাস্তিতে যুবকের করুণ মৃত্যু
মঈনুল ইসলাম কাজল
২২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শাহরাস্তি বহুমুখী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোঃ আবুল কাশেমের বড় ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সুজন (২৪) দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। সে টাঙ্গাইল জেলার মির্জাগঞ্জে একটি সুতার কারখানায় দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে বেশ কদিন হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে পৃথিবী থেকে চির বিদায় নেয়।



পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মোঃ সাখাওয়াত হোসেন সুজন ১৯৯৫ সালে শাহরাস্তি উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। শাহরাস্তি সরকারি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোঃ আবুল কাশেমের বড় ছেলে সুজন। ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে তিনি ছেলেকে হাফিজিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি করান। সেখান থেকে সুজন কোরআনে হাফেজ হয়ে বের হয়। এরপর তাকে ভোলদিঘি কামিল মাদ্রাসায় ভর্তি করিয়ে দেয়া হয়। ২০১৪ সালে সুজন দাখিল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। এরপর তাকে চাঁদপুর পলিটেকনিকে রেফ্রিজারেটর এন্ড এয়ারকন্ডিশন টেকনোলজিতে ভর্তি করিয়ে দেয়া হয়। ২০১৮ সলে সুজন উক্ত বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হয়ে বের হয়ে টাঙ্গাইলের মির্জাগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত একটি সুতার কারখানায় ইন্টার্নি করার জন্যে যোগদান করেন। দুই মাস পূর্বে সুজন সফলভাবে ইন্টার্নি শেষের পর কারখানার মালিক তার কর্মদক্ষতা ও কাজের প্রতি আগ্রহ দেখে তাকে তার কারখানাতেই নিয়োগ দেন।



মাত্র দু মাসের মাথায় গত ৬ আগস্ট দুপুর সাড়ে ১১টায় কারখানায় মিশিনের সাথে হাত পেঁচিয়ে সে দুর্ঘটনায় পতিত হয়। সাথে সাথে তাকে ঢাকায় এনে উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়। এক সপ্তাহ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ার পর গত ১৩ আগস্ট দুপুর পৌনে ১২টায় ঢাকার বনশ্রীতে ফরাজী হাসপাতালে সুজন শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে। গত ১৩ আগস্ট বাদ এশা মনোহরগঞ্জ উপজেলার লালচাঁদপুরে অবস্থিত গ্রামের বাড়িতে তাকে দাফন করা হয়।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৮৪২৬৭
পুরোন সংখ্যা