চাঁদপুর, শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬, ১৫ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৫-সূরা রাহ্মান


৭৮ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৭৫। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৬। উহারা হেলান দিয়া বসিবে সবুজ তাকিয়ায় ও সুন্দর গালিচার উপরে।


৭৭। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৮। কত মহান তোমার প্রতিপালকের নাম যিনি মহিমময় ও মহানুভব!


 


 


 


 


assets/data_files/web

বাণিজ্যই হলো বিভিন্ন জাতির সাম্য সংস্থাপক। -গ্লাডস্টোন।


 


 


কাহারো উপর অত্যাচার করা হইলে সে যদি সবর করিয়া চুপ থাকিতে পারে, আল্লাহ তাহার সম্মান বৃদ্ধি করিয়া দেন।


 


ফটো গ্যালারি
বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পেছনে স্বাধীনতাবিরোধীদের বিশাল চক্রান্ত ছিলো
-----------রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি
কামরুজ্জামান টুটুল
১৭ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পেছনে স্বাধীনতাবিরোধীদের বিশাল চক্রান্ত ছিলো। এ চক্রান্তের প্রধান ছিলো মোস্তাক ও বিরোধী দলের প্রধান। তরুণরাই জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবে। বঙ্গবন্ধু এতোদিন বেঁচে থাকলে এদেশ আজ উন্নত দেশে পরিণত হতো। তরুণ প্রজন্মই জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে দেশকে আরো এগিয়ে নেবে। এসব কথা বলেছেন মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি।



গত বৃহস্পতিবার বিকেলে হাজীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা, মিলাদ, দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি আরো বলেন, বিশ্বে যতোগুলো রাজনৈতিক হত্যাকা- ঘটেছে, বঙ্গবন্ধুর মতো নৃশংস হত্যাকা- কোনো দেশে ঘটেনি। খুনিরা শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেনি, তার আট বছরের শিশুসহ পরিবারের নারী ও শিশুসহ সকল সদস্যকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। অবশেষে শেখ হাসিনার সাহসী ভূমিকায় খুনিদের বিচার হয়েছে। খুনিদের কয়েকজনের ফাঁসির রায় কার্যকর হয়েছে। বাকি দ-প্রাপ্তদের খুঁজে বের করে সাজা প্রদান করা হবে।



তিনি আরো বলেন, ১৯৭৫ সালে জাতির জনককে হত্যার পর ২১টি বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নির্যাতিত-নিপীড়িত ছিলো। এ দলের অনেকে পার্শ্ববর্তী দেশে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। এদেশে স্বাধীনতার শ্লোগান 'জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু' বলা নিষিদ্ধ ছিলো। ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন করে।



বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে এ সাংসদ বলেন, বিএনপি কখনোই ক্ষমতার স্বাদ পাবে না। বাংলার জনগণ তাদের সকল কাজ প্রত্যাখ্যান করছে এবং করবে। তারা যেখানে আছে, সেখান থেকে ক্ষমতার মসনদ দেখা স্বপ্ন বৈ কিছুই না।



হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তির উন্নয়ন নিয়ে জনাব রফিকুল ইসলাম বলেন, ১৯৯৬ সালে আমি যখন এমপি হই, তখন এ দু উপজেলায় মাত্র ৫ কিলোমিটার সড়ক পাকা ছিলো। এখন সাড়ে ৩শ' কিলোমিটার সড়ক পাকা। ৫শ'র মতো প্রাইমারি স্কুল, কলেজ, হাইস্কুল, মাদ্রাসা ভবন পাকা করা হয়েছে। যে ডাকাতিয়া নদীর উপর একটি সেতুও ছিলো না এখন সেখানে ৮টি সেতু হয়েছে। হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি উপজেলা এখন শতভাগ বিদ্যুতায়িত এলাকা। বিদ্যুতের জন্যে কোনো হাহাকার নেই।



হাজীগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আ. স. ম. মাহবুব-উল-আলম লিপনের সভাপ্রধানে ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সৈয়দ আহমদ খসরুর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার, উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মাইনুদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ রোটাঃ আহসান হাবিব অরুণ।



অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ মুন্সী, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক মুরাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মির্জা শিউলি পারভীন মিলি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী আনোয়ারুল হক হেলাল, হাজী সেলিম, যুগ্ম সম্পাদক আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-২ হাজী জসিম, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী কবির কাজী, কাজী মনিরুজ্জামান মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান উল্যাহ্ মৃধা, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী বিল্লাল হোসেন, শহর যুবলীগের সাবেক সভাপতি সোহাগ আহমেদ মাইনু, শহর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ফেরদৌস আকতার, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাসুদ ইকবাল, যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন সোহেল, শহর যুবলীগের আহ্বায়ক ও ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হায়দার পারভেজ সুজন, যুগ্ম আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন, রামপুর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এসএম মানিক, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবায়েদুর রহমান খোকন বলি, সাধারণ সম্পাদক আবু ইউছুফ গাজী মোহন প্রমুখ।



আলোচনা সভাশেষে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদের জন্যে বিশেষ দোয়া করা হয়।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৭৪৯৯১
পুরোন সংখ্যা