চাঁদপুর, শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬, ১৫ জিলহজ ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৫-সূরা রাহ্মান


৭৮ আয়াত, ৩ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


৭৫। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৬। উহারা হেলান দিয়া বসিবে সবুজ তাকিয়ায় ও সুন্দর গালিচার উপরে।


৭৭। সুতরাং তোমরা উভয়ে তোমাদের প্রতিপালকের কোন্ অনুগ্রহ অস্বীকার করিবে?


৭৮। কত মহান তোমার প্রতিপালকের নাম যিনি মহিমময় ও মহানুভব!


 


 


 


 


assets/data_files/web

বাণিজ্যই হলো বিভিন্ন জাতির সাম্য সংস্থাপক। -গ্লাডস্টোন।


 


 


কাহারো উপর অত্যাচার করা হইলে সে যদি সবর করিয়া চুপ থাকিতে পারে, আল্লাহ তাহার সম্মান বৃদ্ধি করিয়া দেন।


 


ফটো গ্যালারি
জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস
শেখ হাসিনা পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে দেশের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন
---------ভূমি সচিব মাকসুদুর রহমান পাটওয়ারী
মুহাম্মদ আবদুর রহমান গাজী
১৭ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি পালন করা হয়। ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা বিকেল ৬টা পর্যন্ত অর্ধনমিতভাবে রাখা হয়। সকাল ৯টায় চাঁদপুর শহরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়কস্থ অঙ্গীকারের সামনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়। প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ফুলে ফুলে শ্রদ্ধা জানান জাতির পিতার প্রতি। পরে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ র‌্যালিতে অংশ নেন এবং কালোব্যাজ ধারণ করেন। হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে শোকর‌্যালি বের হয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। র‌্যালি শুরুর পূর্বে সংক্ষিপ্ত উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক।



একইদিন সন্ধ্যায় চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খানের সভাপ্রধানের এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মাকসুদুর রহমান পাটওয়ারী। তিনি তাঁর বক্তব্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তাঁর সহধর্মিণী বেগম ফজিলাতুন্নেছা, তাঁর পরিবার ও জাতীয় চার নেতাসহ সকল শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, খুনি চক্র শুধু ক্ষমতা দখল করার জন্যই জাতির জনককে হত্যা করেনি। যদি তা করা হতো তাহলে তারা শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতো। তাঁর পরিবারের অন্যদের নির্মমভাবে হত্যা করতো না। তাদের উদ্দেশ্য ছিলো বাংলাদেশকে হত্যা করা। অর্থাৎ যে চেতনা ও আদর্শের ওপর মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে এ দেশ স্বাধীন হয়েছিলো, সে চেতনা ও আদর্শকে হত্যা করা। তিনি বলেন, খুনি চক্র ১৫ আগস্ট ঘটিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। নির্মম এ হত্যাকা-ের যেনো বিচার না হতে পারে সে আইনও তারা করে গেছে। তিনি বলেন, পনর আগস্টের পেছনের ষড়যন্ত্রকারীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।



সচিব মাকসুদ পাটওয়ারী আরো বলেন, খুনি চক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে এদেশের অসামপ্রদায়িক চেতনাকে চিরতরে নস্যাৎ করতে চেয়েছিলো, কিন্তু তা তারা পারেনি। তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পিতার স্বপ্ন পূরণ এবং দেশের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। দেশ আজ শিক্ষা, সংস্কৃতি, খাদ্য, স্বাস্থ্যসহ সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের মানুষ আজ নতুন নতুন উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে, দেশ আজ স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশ করছে, আমরা মহাকাশে পাড়ি দিচ্ছি। নিজেদের অর্থায়নে পদ্মাসেতু নির্মাণ হচ্ছে। পাতাল ট্রেন চালু করাসহ দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। তাই আজকের দিনে শোককে শক্তিতে পরিণত করে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবো এটাই হোক আমাদের অঙ্গীকার।



বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির বিপিএম, পিপিএম, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী প্রমুখ।



জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অজয় কুমার ভৌমিক এবং বিশিষ্ট চিকিৎসক ও লেখক ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ মাহমুদ জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ জামাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সাজেদা বেগম পলিন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শহীদ পাটোয়ারীসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন এবং জেলা, উপজেলা ও পৌর কমিউনিটি পুলিশিং কর্মকর্তাসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের ব্যাপক উপস্থিতিতে শোকসভাস্থল ছিলো কানায় কানায় ভরপুর।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২৪৫
পুরোন সংখ্যা