চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫০-সূরা কাফ্

৪৫ আয়াত, ৩ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৩৪। তাহাদিগকে বলা হইবে, ‘শান্তির সহিত তোমরা উহাতে প্রবেশ কর; ইহা অনন্ত জীবনের দিন।’

৩৫। এখানে তাহারা যাহা কামনা করিবে তাহাই পাইবে এবং আমার নিকট রহিয়াছে তাহারও অধিক।


assets/data_files/web

শিক্ষা অলঙ্কারের মতো নয়। এর হারিয়ে যাবার সম্ভাবনা নেই।


-বার্নাস।


 


সাবধান ধর্ম সম্বন্ধে বাড়াবাড়ি কোরো না। (ধর্মের) বাড়াবাড়ির জন্য তোমাদের পূর্ববর্তী বহু জাতি ধ্বংস হয়ে গেছে।


 


 


ফটো গ্যালারি
অযত্নে অবহেলায় চাঁদপুর শহরের সড়কসমূহের নাম ফলক
সোহাঈদ খান জিয়া
২১ মে, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের সড়কের নাম ফলকগুলো অযত্নে-অবহেলায় পতিত। নাম ফলকগুলো উন্মোচন করার পর এর যত্ন নেয়ার ব্যাপারে কারো খবর ছিলো বলে মনে হয় না।



চাঁদপুর শহরের সড়কগুলো বিভিন্ন কীর্তিমান মানুষের নামে নামকরণ করা হয়েছে। এঁদের কেউ সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান, সাবেক পৌর মেয়র, লেখক, কবি ও মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন স্বনামধন্য ব্যক্তিবর্গ। এ নাম ফলকগুলোর উপরে বর্তমানে ধূলাবালি পড়ে আছে। যার কারণে রাস্তার নামকরণ দেখা যাচ্ছে না। আবার ময়লা আবর্জনাও নামফলকের পাশে পড়ে থাকতে দেখা যায়। অনেক নামকরণের লেখা মুছে গেছে। এসব তদারকি অথবা এর যত্ন নেয়ার প্রতি কারো মাথা ব্যথা নেই। মনে হচ্ছে, সড়কগুলোর নামকরণ খুব সাধারণ ব্যক্তিদের নামেই করা হয়েছে। নামফলকের দিকে নজর পড়লেই মনে হয় বহু বছর পূর্বে এগুলো স্থাপন করা হয়েছে। যা এখন অযত্নে অবহেলায় পড়ে রয়েছে। অনেক নামকরণের নিচের অংশ ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে।



যে সকল ব্যক্তির নামে সড়কের নামকরণ করা হয়েছে তারা আজ আমাদের মাঝ থেকে চির বিদায় নিয়ে পরপারে চলে গেছেন। কিন্তু তাদের নামের স্মৃতিগুলোও হয়তো তদারকি ও অযত্নে-অবহেলার কারণে হারিয়ে যেতে পারে। তাই তাঁদের স্মৃতি ধরে রাখার জন্যে তাঁদের নামে সড়কের নামফলকগুলোর সঠিক যত্ন নেয়ার পদক্ষেপগ্রহণ জরুরি। এ ব্যাপারে পৌর মেয়র, রাজনৈতিক ব্যক্তি ও সচেতন মহলের এগিয়ে আসা প্রয়োজন বলে জনগণ মনে করেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ২,৫৫,১১৩ ১,৯৫,৬২,২৩৮
সুস্থ ১,৪৬,৬০৪ ১,২৫,৫৮,৪১২
মৃত্যু ৩৩৬৫ ৭,২৪,৩৯৪
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৫৬৫৩
পুরোন সংখ্যা