চাঁদপুর, মঙ্গলবার ২৬ মার্চ ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৫, ১৮ রজব ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৮-সূরা ফাত্হ্

২৯ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মাদানী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪। তিনিই মু’মিনদের অন্তরে প্রশান্তি দান করেন যেন তাহারা তাহাদের ঈমানের সহিত ঈমান দৃঢ় করিয়া লয়, আকাশম-লী ও পৃথিবীর বাহিনীসমূহ আল্লাহরই এবং আল্লাহ সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।







 


সৌভাগ্যবান হওয়ার চেয়ে জ্ঞানী হওয়া ভালো।        


-ডাবলিউ জি বেনহাম।


স্বভাবে নম্রতা অর্জন কর।



 


ফটো গ্যালারি
আজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস
এএইচএম আহসান উল্লাহ
২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


আজ ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। এ দিবসটি বাঙালির এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের একটি স্বর্ণোজ্জ্বল দিন। ১৯৭১ সালের এ দিনে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়। এ দিনটি বাঙালির হাজার বছরের ইতিহাসে সবচে গুরুত্বপূর্ণ দিন। এদিনে বাঙালি জাতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে পাকিস্তানি শোষণ, অত্যাচার, নিপীড়ন ও জুলুমের বিরুদ্ধে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ শুরু করে। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে মুজিবনগর সরকারের দিকনির্দেশনায় ও নেতৃত্বে বাঙালি মুক্তি সংগ্রাম চালিয়ে যায়। এ দিনটি আসলেই বাঙালির মনে পড়ে যায় নিরস্ত্র বাঙালির উপর পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের সেই বর্বর কাহিনীর কথা। একই সাথে বাঙালির বীরত্বের ইতিহাসের কথাও মনে পড়ে যায়। এদিন বাঙালি জাতি বিনম্র শ্রদ্ধায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করে থাকে এবং একই সাথে শপথ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার।



মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসকে ঘিরে বরাবরের মতো এবারো চাঁদপুরে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। তবে এবার দিবসের প্রথম প্রহর ২৫ মার্চ দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটের পরিবর্তে আজ সূর্যোদয়ের সাথে সাথে অঙ্গীকারের পাশে রেললাইনে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা করা হবে। এরপর অঙ্গীকার বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। গত বছর থেকে তোপধ্বনি ও পুষ্পস্তবকের এ সময়সূচি পরিবর্তন করা হয়। জেলা প্রশাসনের গৃহীত কর্মসূচিই মূলত এ দিবসের প্রধান কর্মসূচি। এছাড়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগেও প্রত্যেক উপজেলায় ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। গতকাল এবং আজ ২৬ মার্চ জেলার সকল সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং শহরের শপথ চত্বর ও ইলিশ চত্বর আলোকসজ্জা করা হয়। তবে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসকে ঘিরে জেলা প্রশাসনের গৃহীত কর্মসূচি ১ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে। ১ মার্চ থেকে আজ ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দিনে নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে এবং আজ পালিত হবে। কর্মসূচিগুলো হলো_'বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের তাৎপর্য এবং উন্নয়ন ও অগ্রগতি' বিষয়ে আলোচনা, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও রচনা লেখা প্রতিযোগিতা, বঙ্গবন্ধুর জীবনালেখ্য ও স্বাধীনতাযুদ্ধের ইতিহাসভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, শিশুদের উপস্থিত বক্তৃতা, আবত্তি, দেশাত্মবোধক গান ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং গতকাল ২৫ মার্চ কালরাত স্মরণে রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত এক মিনিটের জন্যে প্রতীকী বস্ন্যাক আউট পালন করা হয়।



 



জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া দিবসের আজকের বিস্তারিত কর্মসূচি : আজ ২৬ মার্চ সূর্যোদয়ের সাথে সাথে মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ভাস্কর্য অঙ্গীকার সংলগ্ন রেললাইনের পাশে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা। এর পরপরই মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে অঙ্গীকার বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ প্রশাসন এবং পুলিশ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণের উপস্থিতিতে তোপধ্বনি ও পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। একই সময় সকল সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৮টায় চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, বিএনসিসি, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, কারারক্ষী, রোভার স্কাউটস্, স্কাউটস্, গার্লস গাইড ও কমিউনিটি পুলিশসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এবং শিশু কিশোর সংগঠনের সালাম গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ প্রদর্শন, ডিসপ্লে প্রদর্শন, সকাল ১১টায় সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে জেলা সদরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা প্রদান, একই সময় জেলার সকল সিনেমা হলে বিনা টিকেটে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, সুবিধাজনক সময়ে জাতির শান্তি, অগ্রগতি ও শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় সকল মসজিদে বিশেষ মোনাজাত, মন্দির ও গীর্জায় বিশেষ প্রার্থনা, বেলা ১টায় সরকারি হাসপাতাল, জেলখানা, এতিমখানা, সরকারি শিশু সদন এবং মূক-বধির বিদ্যালয়ে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন, বিকেল ৩টায় চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজে মহিলাদের আলোচনা সভা, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ, বিকেল ৪টায় চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন একাদশ বনাম চাঁদপুর পৌরসভা একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ এবং সন্ধ্যা ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে 'মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার' শীর্ষক আলোচনা সভা এবং আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।



 



এছাড়া আজ সারাদিন জেলার সকল স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের উপর আলোচনা সভা, ক্রীড়া অনুষ্ঠান, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।



 



এদিকে দিবসটি উপলক্ষে চাঁদপুর পৌরসভার পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে শহরের শপথ চত্বর, ইলিশ চত্বর ও পৌর ভবন আলোকসজ্জা করা হয়েছে। কালেক্টরেট ভবন, জেলা প্রশাসকের বাসভবন, সার্কিট হাউজ ও জেলা পরিষদের ডাকবাংলোসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানও গতকাল সন্ধ্যা থেকে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্যাপনকল্পে চাঁদপুর জেলার সবকটি উপজেলা সদরেও নেয়া হয়েছে ব্যাপক কর্মসূচি। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন দিবসটি যথাযথভাবে পালন করবে। চাঁদপুরের প্রায় সকল পত্রিকা নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করেছে। আবার কোনো কোনো পত্রিকা সরকারি ক্রোড়পত্রও প্রকাশ করেছে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৫০৮৩
পুরোন সংখ্যা