ঢাকা। রোববার ১৩ জানুয়ারি ২০১৯। ৩০ পৌষ ১৪২৫। ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৫-সূরা জাছিয়া :

৩৭ আয়াত, ৪ রুকু, মক্কী

২৯। এই আমার লিপি, ইহা তোমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিবে সত্যভাবে। তোমরা যাহা করিতে তাহা আমি লিপিবদ্ধ করিয়াছিলাম।

৩০। যাহারা ঈমান আনে ও সৎকর্ম করে, তাহাদের প্রতিপালক তাহাদিগকে দাখিল করিবেন স্বীয় রহমতে। ইহাই মহাসাফল্য

 


assets/data_files/web

মনের যাতনা দেহের যাতনার চেয়ে বেশি। -উইলিয়াম হ্যাজলিট।


 


যদি মানুষের ধৈর্য থাকে তবে সে অবশ্য সৌভাগ্যশালী হয়।


 


ফটো গ্যালারি
রঘুনাথপুরে ট্রাক্টর উল্টে হেলপার নিহত চালক গুরুতর আহত
স্টাফ রিপোর্টার
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর সদরের রঘুনাথপুরে ট্রাক্টরের চাকার এঙ্লে ভেঙ্গে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মমিন পাঠান (২৫) নামে এক হেলপারের করুণ মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় সদর উপজেলার রঘুনাথপুর ওয়াপদা রাস্তার ভূঁইয়া বাড়ির সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চালক সোহাগ গাজী (৩২) গুরুতর আহত হয়েছেন। নিহত মমিন চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২নং চান্দ্রা ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিয়া গ্রামের ইসমাইল পাঠানের ছেলে। আহত চালক সোহাগ গাজী একই ইউনিয়নের বাখরপুর গ্রামের কাদির গাজীর ছেলে।



প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শনিবার সকালে তারা ট্রাক্টরে করে বালু আনার জন্যে চান্দ্রা থেকে রঘুনাথপুর যাওয়ার পথে ট্রাক্টরের সামনের চাকার এঙ্লে ভেঙ্গে পড়ে। এতে ট্রাক্টরটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে ওয়াপদার রাস্তার ওপর থেকে নিচে উল্টে পড়ে। এ সময় ট্রাক্টরে থাকা হেলপার মমিন পাঠান ও চালক সোহাগ গাজী গুরুতর আহত হন। প্রত্যক্ষদর্শীরা তাদের উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মমিন পাঠানকে মৃত ঘোষণা করেন। আর চালক সোহাগ গাজীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্যে তাকে তাৎক্ষণিক ঢাকায় প্রেরণ করেন।



চান্দ্রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটওয়ারী জানান, ট্রাক্টর চলাচল করা তো নিষিদ্ধ। তবুও অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে এমন দুর্ঘটনায় হেলপার নিহতের খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে এসেছি। আগামীতে আমাদের ইউনিয়নে এসব নিষিদ্ধ ট্রাক্টর যাতে চলাচল করতে না পারে আমরা সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখবো। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই মফিজুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ থানায় নিয়ে যান।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৮০১২
পুরোন সংখ্যা