চাঁদপুর। রোববার ১৮ নভেম্বর ২০১৮। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪৩-সূরা যূখরুফ


৮৯ আয়াত, ৭ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৭১। স্বর্ণের থালা ও পানপাত্র লইয়া তাহাদিগকে প্রদক্ষিণ করা হইবে; সেথায় রহিয়াছে সমস্ত কিছু, যাহা অন্তর চাহে এবং যাহাতে নয়ন তৃপ্ত হয়। সেথায় তোমরা স্থায়ী হইবে।


৭২। ইহাই জান্নাত, তোমাদিগকে যাহার অধিকারী করা হইয়াছে, তোমাদের কর্মের ফলস্বরূপ।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


 


 


ভয়ের অনেক চক্ষু আছে। -কারভানটেন।


 


 


 


দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত জ্ঞানচর্চায় নিজেকে উৎসর্গ করো।


 


 


ফটো গ্যালারি
বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের হাজীগঞ্জস্থ উপ-পরিচালক কার্যালয়
৪ পদের বিপরীতে কর্মকর্তা ১ জন
অবসরে যাওয়া অফিস সহকারী কাজ করছেন
কামরুজ্জামান টুটুল
১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন হাজীগঞ্জ উপজেলার উপ-সহকারী পরিচালক (বীজ বিপণন)-এর কার্যালয়ে ৪ জনের বিপরীতে কাজ করছেন অবসরে যাওয়া একজন অফিস সহকারী। উপ-সহকারী পরিচালক নিজে হাজীগঞ্জে চলতি দায়িত্বে থাকলেও অফিসে আসা-যাওয়া করেন নিজের মতো করে। উক্ত প্রতিষ্ঠানে লোকবল একেবারে কম হওয়ার কারণে এমনটা হচ্ছে বলে চাঁদপুর কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা অঞ্চলের উপ-পরিচালক নিগার হায়দার খান।



হাজীগঞ্জ উপজেলার উপ-সহকারী পরিচালক (বীজ বিপণন)-এর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এখানে উপ-সহকারী পরিচালক, গুদাম রক্ষক (স্টোর কিপার),পাহারাদার আর পিয়ন পদ রয়েছে। বর্তমানে উপ-সহকারী পরিচালক পদে চলিত দায়িত্বে রয়েছেন সাইফুর রহমান। বাকি পদগুলোর মধ্যে গুদামরক্ষক ও পাহারাদার পদ শূন্য রয়েছে দীর্ঘদিন, আর গত বছর হতে পিয়ন পদটি শূন্য রয়েছে। সাইফুর রহমান একই বিভাগের কুমিল্লায় মার্কেটিংয়ে অতিরিক্ত দায়িত্বের কারণে হাজীগঞ্জের কার্যালয়ে তেমন একটা আসেননি। গত জুলাইয়ে অবসরে যাওয়া একই প্রতিষ্ঠানের অফিস সহকারী গোলাম মোস্তফা নামের একজন এখানে নিয়মিত বসেন আর তার কাছ থেকে কৃষকরা বীজ ধান কিনে থাকেন।



সরজমিনে হাজীগঞ্জ উপজেলা উপ-সহকারী পরিচালক (বীজ বিপণন)-এর কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলা কমপ্লেঙ্রে মসজিদের দক্ষিণ পাশে ছোট একটি দো-চালা টিনশেডের ঘরের পশ্চিম পাশের রুমের পশ্চিম পাশে বসে একটি খাতা নিয়ে বসে আছেন সম্প্রতি অবসরে যাওয়া গোলাম মোস্তফা। দক্ষিণ পাশে কর্মকর্তার চেয়ার টেবিল রয়েছে, কিন্তু কর্মকর্তা নেই। রুমের বাইরে সিটিজেন চার্টার আর বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন অফিসের একটি সাইনবোর্ড সাঁটনো রয়েছে।



গোলাম মোস্তফা চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, আমি গত জুলাইয়ে অবসরে চলে গেছি। লোকবল না থাকার কারণে স্যার বলেছেন, তাই এখানে এসে কাজ করছি। তবে কৃষকরা আসলে ধান বিক্রি করি, না হলে বসে সময় কাটাই। বীজের বিষয়ে গোলাম মোস্তফা জানান, চলতি মৌসুমে বিআর ২৮ আর বিআর ২৯ ধানের বীজ ছাড়া আর কোনো বীজ নেই। তবে মৌসুম হিসেবে বিক্রি অনেক কম।



উপ-সহকারী পরিচালক (বীজ বিপণন) সাইফুর রহমান মুঠোফোনে চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, ৪টি পদের বিপরীতে কাজ করছি আমি একজন। গোলাম মোস্তফাকে দৈনিক হাজিরা হিসেবে বেতন দেয়া হচ্ছে, আর কোনো লোকবল নেই এখানে। বীজের বিষয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, মৌসুমের শুরুতে উপজেলা কৃষি অফিসে আমরা চাহিদা চাই আর সেই চাহিদার আলোকে আমরা বীজ এনে থাকি। অপর এক প্রশ্নে এই কর্মকর্তা বলেন, হাজীগঞ্জের দায়িত্বে থাকার পরে কুমিল্লায় কাজ করতে হয়, তাই মাঝে মধ্যে দেরি হয়।



হাজীগঞ্জ উপ-সহকারী কার্যালয়ে লোকবল সংকটের বিষয়টি নিশ্চিত করে বীজ বিপণন কুমিল্লা অঞ্চল-এর উপ-পরিচালক নিগার হায়দার খান জানান, জনবল নেই বিধায় হাজীগঞ্জে লোক দেয়া যাচ্ছে না। আসছে রোববার থেকে মাস্টাররোলে কাজ করছে এমন একজনকে পাঠানো হবে। উপরোক্ত কর্মকর্তার বক্তব্যের সূত্র ধরে গত রোববার শেষে পরবর্তী গত মঙ্গলবার ঐ অফিসে গিয়ে দেখা যায়, সেই গোলাম মোস্তফাকে ছাড়া অন্য কেউ নতুন করে আসেন নি। নতুন করে যে কেউ আসেন নি এমন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোলাম মোস্তফা নিজেই।



হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া বলেন, গত ১ বছর ধরে হাজীগঞ্জের উপ-সহকারী পরিচালককে দেখা যায়নি। আমার খবরে তিনি বৃহস্পতিবার এসেছেন, আর তাকে বলা হয়েছে সপ্তাহে কমপক্ষে দুই দিন হাজীগঞ্জে কাজ করতে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৮৫৪
পুরোন সংখ্যা